//

//

সেবা কিন্তু পরিষেবা কেন

সম বিষম ও সুষম  এবং পুরস্কার ও পরিষ্কার
ড. মোহাম্মদ আমীন

 সেবা, কিন্তু পরিষেবা, কেন? কেন ভুল হয় পরিসেবা লিখলে?

সন্ধিবদ্ধ পদের পরপদের বানানে কোথাও ‘দন্ত্য-স’  আবার কোথাও ‘মূর্ধন্য-ষ’ দেখা যায়। এর কারণ হলো— উপসর্গ। একই শব্দের পূর্বে বিভিন্ন উপসর্গ যুক্ত হওয়ায় বানানে কোথাও ‘দন্ত্য-স’ এবং কোথাও ‘মূর্ধন্য-ষ’ ব্যবহৃত হয়। যেমন : অসহ, কিন্ত বিষহ ও দুর্বিষহ। নমস্কার পুরস্কার, কিন্তু পরিষ্কার; মনস্কাম যশস্কাম, কিন্তু নিষ্কাম ও আয়ুষ্কাম। আসন্ন কিন্তু বিষণ্ন; মনস্ক তবে, জ্যোতিষ্ক প্রভৃতি। 

এই বানান ভিন্নতার কারণ কী? কারণ আছে এবং তা সহজে মনে রাখার মতো। ‘সম’ শব্দের পূর্বে বি, সু প্রভৃতি উপসর্গ থাকলে ‘দন্ত্য-স’ বর্ণটি ‘মূর্ধন্য-ষ’ হয়ে যায়। এজন্য ‘সুষম’, ‘বিষম’, কিন্তু অসম; ‘সেবা’, কিন্তু ‘পরিষেবা’। ‘ব্যাকরণ কৌমুদী’ গ্রন্থে এরকম আরও কয়েকটি নিয়ম আছে। এই নিয়মগুলো জানতে হলে ষত্ববিধান ও ব্যঞ্জনসন্ধির সূত্রগুলো জানা আবশ্যক। তবে সাধারণ পাঠকদের জন্য একটি সরল সূত্র উপস্থাপন করা হলো। বলতে পারেন এটি নিমোনিক। এ নিমোনিকটি মনে থাকলে এমন শব্দসমূহের বানানে ভুল হবে না। যেমন : অ এবং আ বর্ণের পরে দন্ত্য-স হবে। অন্যদিকে, ই এবং উ বর্ণের পরে ‘মূর্ধন্য-ষ’ হবে। ওপরের উদাহরণগুলো খেয়াল করলে এটি বোঝা যাবে।

বিসর্গের কেরামতি:  ‘দুঃসহ’ শব্দের বিসর্গের আগে উ-কার থাকা সত্ত্বেও ‘মূর্ধন্য-ষ’ না হয়ে ‘দন্ত্য-স’ হয়েছে কেন?। কারণ এই শব্দে বিসর্গ বজায় আছে।বানানে বিসর্গ বজায় থাকলে বর্ণিত নিয়ম প্রযোজ্য হবে না।

——————————————————————————————————————————————-

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন১

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন২

কি না  বনাম কিনা এবং না কি বনাম নাকি

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

দৈনন্দিন বিজ্ঞান লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

কীভাবে হলো দেশের নাম

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/১

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/২

এককথায় প্রকাশ

বাংলা ভাষার মজা, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবিলিকেশন্স লি.।

Share This
Language
error: Content is protected !!