অটোপাশ শব্দের বাংলা

ড. মোহাম্মদ আমীন

অটোপাশ শব্দের বাংলা

অনেক শুবাচি জানতে চেয়েছেন— অটোপাশ শব্দের বাংলা কী হতে পারে? অনেক কিছু হতে পারে। শব্দার্থ একটি ঘটনা, একটি কার্যকরণ বা একটি ইতিহাসের সংক্ষেপেণ। তাই একটি শব্দের নানা অর্থ হতে পারে। মূলত ওই ইতিহাস বা ঘটনা কিংবা কার্যকরণকে ভিত্তি করে শব্দার্থ নির্ধারণ করা হয়।
 
অটোপাশ এর বাংলা জানতে চাওয়া এক শুবাচির প্রশ্ন অনুমোদন হয়েছে। সেখানে সবাই অটোপাশ শব্দের আক্ষরিক অনুবাদ করেছেন— স্বয়ংক্রিয় পাশ। স্বয়ংক্রিয় পাশ হলে তো ভালো। এর মানে হয়— এমন মেধাবী যে তাকে পরীক্ষা না নিয়ে উচ্চতর শ্রেণিতে উত্তীর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। এরূপ অনেক ঘটনা আছে। অত্যন্ত মেধাবী শিক্ষার্থীদের বিশেষ বিবেচনায় স্বয়ংক্রিয় পাশ দেওয়া হয়।
 
কিন্তু আলোচ্য অটোপাশ তো নয়। যুদ্ধবিগ্রহ, মহামারি, প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রভৃতি সংকটের কারণে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হলে পরীক্ষা গ্রহণ ছাড়া যে পাশ দেওয়া হয় তা অত্যন্ত মেধার জন্য নয়, বরং সংকটের জন্য দেওয়া হয়। আলোচ্য অটোপাশ তেমন একটি সংকটের জন্য প্রদান করা হয়েছে। অতএব, এটি স্বয়ংক্রিয় পাশ নয়। সংকটের দেওয়া পাশ। সংকটের জন্য দেওয়া পাশ। তাই এটি শিক্ষার্থীর মেধার অবদান নয়, সংকটের অবদান।
 
ভিন্ন ভাষা হতে শব্দার্থ প্রকাশে সর্বদা আক্ষরিক অনুবাদ হয় না। তাহলে অর্ধচন্দ্র হয়ে যাবে হাফ মুন; ‘রবীন্দ্রনাথের চোখের বালি’ হয়ে যাবে আই স্যান্ড অব রবীন্দ্রনাথ। এজন্য পারিভাষিক শব্দের প্রয়োজন। ইংরেজির অনুবাদে word to word বাংলা অনুবাদ করলে অনেক সময় হাস্যকর হয়ে যেতে পারে। “My name is Amin.” এই ইংরেজি বাক্যের আক্ষরিক অনুবাদ হবে  “আমার নাম হয় আমীন।” তা ঠিক নয়। এজন্য আক্ষরিক অনুবাদ নয়, ভাবানুবাদই করতে হয়। শব্দের ক্ষেত্রে বিষয়টি আরও গভীরভাবে বিবেচনার দাবি রাখে।
 
আলোচ্য অটোপাশ শব্দের কার্যকরণ পর্যালোচনা করলে এর বাংলা হতে পারে সংকটপাশ= সংকটের কারণে প্রদেয় পাশ; সংকটের জন্য পরীক্ষা নিতে না পারায় বিশেষ বিবেচনায় প্রদেয় পাশ, সংকটের দেওয়া পাশ। এটি মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাস।
 
নানা সংকটের কারণে পরীক্ষা নেওয়া না গেলে এমন পাশ দেওয়া হয়। তাই এর পরিভাষা হতে পারে সংকটপাশ। কারণ পাশটি ব্যক্তি তার কাজ দ্বারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে অর্জন করেনি। সংকটই তাকে দিয়েছে কিংবা সংকটের কারণে কর্তৃপক্ষ বিশেষ বিবেচনায় তাকে দিয়েছে।
 
এটি আমার নিজস্ব মত। আপনারা নিজেদের মত দিতে পারেন। আরও সুন্দর শব্দ বলতে পারেন। তবে আক্ষরিক অনুবাদ করবেন না। শব্দের অর্থ পরিস্থিতি আর কার্যকরণ প্রকাশের জন্য ব্যবহৃত হয়। তাই আঠারো মাসে বছর মানে Eighteen Months নয়।
 
অনুবাদ বলতে এক ভাষা থেকে অন্য ভাষায় রূপান্তরকেই বোঝায়। অর্থাৎ অনুবাদ মানে ভাষান্তর (Translation)। তবে লিপ্যন্তরকে (Transliteration) অনুবাদ বলা উচিত নয়। কারণ ভাষান্তর ব্যতীত শুধু লিপ্যন্তর করে অজানা কোনো ভাষার ভাব বোঝা বা অর্থোদ্ধার করা মোটেও সম্ভব হবার নয়। ভালো লাগল। ভাবানুবাদ না হলে তাকে বলে যান্ত্রিক অনুবাদ। কোনো যান্ত্রিক অনুবাদই আসলে অনুবাদ নয়, এটাকে বলে হনুবাদ। এক জনের কণ্ঠ যেমন অন্যের কণ্ঠের সঙ্গে মেলানো যায় না, তেমনি এক ভাষাকে অবিকল অন্য ভাষায় অনুবাদ করা যায় না। তাই কেবল ভাবানুবাদকে বলা হয় আদর্শ অনুবাদ। I am a boy- এর অনুবাদ আমি হই একজন বালক; ভাবানুবাদ- আমি একজন বালক।
 
 
দেখুন আক্ষরিক অনুবাদ করলে কী হয়: ক্যমব্রিজের বাংলা-শিক্ষণ ক্লাসের একটি ঘটনা। নেট থেকে বাংলা পত্রিকার শিরোনাম নিয়ে শিক্ষার্থীদের অনুবাদ করতে দেওয়া হয়। বিদেশিদের বাংলা শেখানোর এটি একটি কৌশল ছিল আমার। সেদিন প্রথম আলো পত্রিকার প্রথম শিরোনামটি শিক্ষার্থীরা ইংরেজি করে নিয়ে এল: Golam Azam is a fisherman. আসলে প্রথম আলো পত্রিকার শিরোনাম ছিল: “গোলাম আজম জেলে।” শিক্ষার্থীরা বাক্যটির ইংরেজি অনুবাদ করলেন: Golam Azam is a fisherman.
 
মধুচন্দ্রিমা  ইংরেজি honeymoon শব্দের অনুকরণে গঠিত শব্দ। বাংলায় এর অর্থ (বিশেষ্যে) নবদম্পত্তির প্রমোদবিহার। প্রমোদবিহার নির্দিষ্টকালের জন্য হয়।নবদম্পত্তির প্রমোদবিহারের সঙ্গে মধু ও চন্দ্রের আদৌ কোনো সম্পর্ক নেই।এটি honeymoon শব্দের অনুবাদ মাত্র, অনেকে বলেন হনুবাদ। হনুবাদ হলেও জনপ্রিয়তা পেয়ে গেছে সে। অমাবস্যাতেও মধুচন্দ্রিনাম করা যায়, কোনোরূপ মধু ছাড়াই। বরং অমাবস্যার মধুচন্দ্রিমা আরও মধুর হয়। তখন আকাশের তারাদল চন্দ্রালোকিত রাতের চেয়েও বেশি জ্বলজ্বল করে।দেখুন, মধুচন্দ্রিমায় কী প্রয়োজন; কেবল মায়া-আর মমতা:
“এই মধু রাত শুধু ফুল পাপিয়ার
এই মায়া রাত শুধু তোমার আমার। ( গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার)
 
সূত্র: পৌরাণিক শব্দের উৎসকথন ও বিবর্তন (ব্যাবহারিক পৌরাণিক অভিধান)।

 

 
error: Content is protected !!