আর: ভালোবাসা আর ভালোবাসা; আর শব্দের বৈচিত্র্যময় অর্থ

ড. মোহাম্মদ আমীন
সংযোগ: https://draminbd.com/আর-ভালোবাসা-আর-ভালোবাসা-আ/
‘আর’ একটি বৈচিত্র্যময় খাঁটি বাংলা শব্দ। সংস্কৃত অপর শব্দ থেকে এর উদ্ভব। বাক্যে ‘আর’ শব্দটি অব্যয়, বিশেষণ, ক্রিয়া-বিশেষণ এবং সর্বনাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়। উদাহরণ-সহ ‘আর’ শব্দের আর অর্থ নিচে দেওয়া হলো:
(ক) অব্যয়
১. আর (এবং): তুমি আর আমি শুধু জীবনের খেলা ঘর।
২. আর (ও): হাসি আর গানে ভরে তুলব।
৩. আর (অথবা): মারো আর কাটো ভালোবাসা দিবসে আমি অমর একুশে গ্রন্থমেলায় যাবই।
৪. আর (তদুপরি): আর কষ্ট দিয়ে কী লাভ।
৫. আর (এখন): সেদিন কি আর আছে!
৬. আর ( যেন): স্বর্গ আর কী!
৭. আর (কাজেই): ওখানে যাওয়ার আর প্রশ্নই আসে না।
৮. আর (হতাশা অবসাদ ক্রোধ বিস্ময় বিরক্তি প্রভৃতিবোধক শব্দ): দ্রব্যমূল্যের কথা আর বলো না।
৯. আর (অতএব): আর যেন নেই কোনো ভাবনা ।
(খ) বিশেষণ
১০. আর (দ্বিতীয়): এ বিষয়ে তার চেয়ে ভালো আর কেউ নেই।
১১. আর (বিগত): আর বছর আমি দেশে ছিলাম না।
১২. আর (আগামী): আর মাসে আমি অক্সফোর্ড যাব।
১৩. আর (অপর, অন্য): আর কেউ যেন না আসে।
১৪. আর (অধিক, এর বেশি): তুমি আর একটি দিন থাকো।
১৫. আর (অভিন্ন, সামান্য ব্যবধান): উনিশ আর বিশ, একুশ টাকা দিস। এ আর কী ব্যবধান!
(গ) ক্রিয়া বিশেষণ
১৬. আর (দুবার, দ্বিতীয় বার): এমন দিন আসবে না আর, হয়তো জীবনে আমার।
১৭. আর (আবার): আর এ বিষয়ে আলাপ করা ঠিক হবে না।
১৮. আর (তদবধি): যুদ্ধের সময় গেছে ছেলেটি আর ফেরিনি।
১৯. আর (ভবিষ্যতে): এমন কাজ আর করো না কখনো।
২০. আর (যুগপৎ): পড়ি আর অবাক হই, অবাক হই আর পড়ি।
২১. অর (পরপর): যাব আর আসব।
২২. আর (পক্ষান্তরে): সবাই কাজ করে মরছে আর তুমি বসে বসে গান শুনছ।
২৩. আর (অব্যবহিত পরেই): আমি বের হলাম আর বৃষ্টিও পড়তে শুরু করল।
(ঘ) সর্বনাম
২৪. আর (অন্য ব্যক্তি বা বস্তু): একে চায় আরে পায়।
অভিধানে ‘আর’ শব্দের অর্থ দেখানো হয়েছে নিম্নরূপ:
 অব্য. ১. এবং, ও (তুমি আর আমি)। ২. এরপর (আমি আর ওখানে যাচ্ছি না)। ৩. অথবা (মারো আর কাটো ও যাবে না)। ৪. তদুপরি (আর কষ্ট দিয়ে কী লাভ)। ৫. এখন (সেই দিন কি আর আছে)। ৬. যেন (নবাবপুত্র আর কি)। ৭. কাজেই (সেখানে আর যাওয়ার প্রশ্ন ওঠে না)। ৮. আক্ষেপ অবসাদ হতাশা ক্ৰোধ বিস্ময় বিরক্তি প্রভূতিবোধক শব্দ (ওর কথা আর বোলো না)।
বিণ, ১. দ্বিতীয় (এই বিষয়ে ওঁর চেয়ে ভালো শিক্ষক আর নেই)। ২. বিগত (আর বছরে ভালো ফলন হয়েছিল)। ৩. আগামী (আর বুধবারে আমিও যাব)। ৪. অপর, অন্য (আর কেউ জানে না)। ৫. অধিক, এর বেশি (এরপর আর কী বলব)। ৬. অভিন্ন (উনিশ আর বিশ)।
ক্লিবিণ, ১ দুবার (এমন সুসময় আর আসবে না)। ২ আবার (আর এসব বিষয়ে আলোচনা করো না)। ৩. তদবধি (সেই যে গেছে আর ফেরেনি)। ৪. ভবিষ্যতে (আর এমন কাজ করো না)। ৫. যুগপৎ (দেখি আর অবাক হই)। ৬. পরপর (আমি কেবল যাব আর আসব)। ৭. পক্ষান্তরে (ও খেটে মরছে আর তোমরা বসে আছ)। ৮. অব্যবহিত পরেই (তুমিও গেলে আর বৃষ্টিও থামলো)। সর্ব, অন্য ব্যক্তি বা বস্তু (একে চায় আরে পায়)।
সমু. অব্য. ১. এবং, ও (তুমি আর আমি); ২. এর বেশি (অনেক লিখেছি, আর কী লিখব?); ৩. অতঃপর (রাত হয়েছে, আর গল্প নয়); ৪. অথবা, কিংবা (চাও আর না চাও); ৫. যুগপত্ (এইসব দেখি আর দুঃখ পাই); ৬. পক্ষান্তরে, কিন্তু (শক্তের ভক্ত আর নরমের যম); ৭. পুনরায়, আবার (আর সেকথা কেন?); ৮. এখনও (আর কেন বৃথা চেষ্টা); ৯. এখন (আর সেদিন নেই); ১০. কখনো (ধানগাছে কি আর তক্তা হয়); ১১. আগে বা পরে কখনো (এমনটি আর হবে না); ১২. অবশ্য (তুমি তো আর গরিব নও); ১৩. তদবধি (গেলে আর ফিরলে না)। 
বিণ. ১ অন্য, অপর (আর কেউ, আর পারে আমবন); ২. দ্বিতীয়, অন্য একটি (আর এমন লোক পাবে না); ৩. বিগত (আর বছর এসেছিল); ৪. আগামী (আর শনিবারে যাব)। 
সর্ব. অন্য কিছু (এক করতে আর হয়)। [সং. অপর > আবার > আর]।
আর-আর অব্য. বিণ. অন্যান্য (আর-আর লোকে, আর-আর দিন)।আরও অব্য. বিণ. বিণ-বিণ. ক্রি-বিণ. ১. অধিকতর (আরও কষ্ট, আরও ভালো, আরও কাঁদবে); ২.  এ ছাড়া অন্য (আরও লোকে জানে); ৩. অধিকন্তু (আরও শোনো)।
সূত্র :  বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন  প্রয়োগ ও অপপ্রয়োগ, ড. মোহাম্মদ আমীন,  পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.।  
error: Content is protected !!