ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আমলে বাংলার গভর্নর জেনারেল : সকল গভর্নর জেনারেল/১

ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আমলে বাংলার গভর্নর জেনারেল : সকল গভর্নর জেনারেল/১

ড. মোহাম্মদ আমীন

পদনাম পরিবর্তন : গভর্নর থেকে গভর্নর জেনারেল: ১৭৭৩ খ্রিষ্টাব্দের রেগুলেটিং অ্যাক্ট অনুযায়ী জন কার্টিয়ারের পর ‘বাংলার গভর্নর’ পদবি পরিবর্তন করে “বাংলার গভর্নর জেনারেল” করা হয়। ১৭৭২ খ্রিষ্টাব্দে কোম্পানি কলকাতায় রাজধানী স্থাপন করে এবং ওয়ারেন হেস্টিংসকে গভর্নর-জেনারেল নিয়োগ দিয়ে প্রত্যক্ষভাবে বাংলার শাসনকার্যে অংশগ্রহণ করতে শুরু করে। ওয়ারেন হেস্টিংস বাংলার প্রথম গভর্নর জেনারেল।

বাংলার মোট গভর্নর জেনারেল: ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির অধিনে ১৭৭৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৮৩৩ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বাংলায় মোট ১৪ জন গভর্নর জেনারেল দায়িত্ব পালন করেন। ১৪তম গভর্নর জেনারেল লর্ড উইলিয়াম বেন্টিংক বাংলার সর্বশষ গভর্নর জেনারেল। তিনি ১৭৩২ খ্রিষ্টাব্দের ৬ই ডিসেম্বর অক্সফোর্ডশায়ারে জন্মগ্রহণ করেন এবং ৮৫ বছর বয়সে ১৮১৮ খ্রিষ্টাব্দের ২২ শে অগাস্ট ডেইলসফোর্ডের গ্লুচেস্টারশ্যায়ারে মারা যান।

. ওয়ারেন হেস্টিংস; (১৭৭৪—১৭৮৫ )

ওয়ারেন হেস্টিংস (Warren Hastings ) ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি নিয়োজিত বাংলার প্রথম “গভর্নর জেনারেল” বা ev Governor of the Presidency of Fort William (Bengal)অনেকে মনে করেন তিনি  ভারতের প্রথম “গভর্নর জেনারেল”। প্রকৃতপক্ষে, “ভারতের গভর্নর জেনারেল পদ সৃষ্টি করা হয় ১৮৩৩ খ্রিষ্টাব্দে। ওয়ারেন হেস্টিংস ১৭৭২ খ্রিষ্টাব্দ হতে ১৭৭৪ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বাংলার গভর্নর এবং ১৭৭৪ খ্রিষ্টাব্দের ২০ শে অক্টোবর থেকে ১৭৮৫ খ্রিষ্টাব্দের ১লা ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাংলার তথা প্রেসিডেন্সি অব ফোর্ড উইলিয়ামের গভর্নর জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সুতরাং তিনি একাধারে বাংলার সর্বশেষ গভর্নর এবং বাংলার প্রথম গভর্নর জেনারেল। ওয়ারেন হেস্টিংস ১৭৩২ খ্রিষ্টাব্দের ৬ই ডিসেম্বর অক্সফোর্ডশ্যায়ারের চার্চিলে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৮১৮ খ্রিষ্টাব্দের ২২ শে অগাস্ট ইংল্যান্ডের গ্লুচেস্টারশ্যায়ারে মারা যান।

. স্যার জন ম্যাকপারসন (১৭৮৫—১৭৮৬)

স্যার জন ম্যাকপারসন এর পুরো নাম (Sir John Macpherson, 1st Baronet)। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি তাঁকে বাংলার গভর্নর জেনারেল হিসেবে নিয়োগ প্রদান করেন। তিনি ১৭৮৫ খ্রিষ্টাব্দের ১লা ফেব্রুয়ারি থেকে ১৭৮৬ খ্রিষ্টাব্দের ১২ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলার ভারপ্রাপ্ত গভর্নর জেনারেল ছিলেন। জন ম্যাকপারসন ১৭৪৫ খ্রিষ্টাব্দে স্কটল্যান্ডের স্লিটে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৮২১ খ্রিষ্টাব্দের ১২ই জানুয়ারি ব্রোমটন গ্রোভে মারা যান। তিনি ছিলেন চিরকমুমার।

. চার্লস কর্নওয়ালিস (১৭৮৬—১৭৯৩)

চার্লস কর্নওয়ালিস (Charles Cornwallis, 1st Marquess Cornwallis) ছিলেন ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি নিয়োজিত বাংলার তৃতীয় গভর্নর জেনারেল। তিনি ১৭৮৬ খ্রিষ্টাব্দের ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ১৭৯৩ খ্রিষ্টাব্দের ২৮ শে অক্টোবর পর্যন্ত বাংলার গভর্নর জেনারেল ছিলেন। ভারতের ভূ-মালিকানা ব্যবস্থায় যুগান্তকার পরিবর্তন আনেন লর্ড কর্নওয়ালিস। তিনি ১৭৯৩ খ্রিস্টাব্দে চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত প্রথা প্রবর্তন করেন। এই প্রথা কার্যত ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি সরকার ও বাংলার জমি মালিকদের মধ্যে সম্পাদিত একটি চুক্তি। এই চুক্তির আওতায় জমিদারগণ ঔপনিবেশিক রাষ্ট্রব্যবস্থায় ভূ-সম্পত্তির নিরঙ্কুশ স্বত্বাধিকারী হন। জমির স্বত্বাধিকারী হওয়া ছাড়াও জমিদারগণ স্বত্বাধিকারের সুবিধার সঙ্গে চিরস্থায়ীভাবে অপরিবর্তনীয় এক নির্ধারিত হারের রাজস্বে জমিদারিস্বত্ব লাভ করেন। কর্নওয়ালিস ১৭৩৮ খ্রিষ্টাব্দের ৩১ শে ডিসেম্বর লন্ডনের গ্রসভেনর স্কয়ারে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৮০৫ খ্রিষ্টাব্দের ৬ই অক্টোবর ভারতের গাজীপুরের গাউসপুরে মারা যান।

. স্যার জন শোর (১৭৯৩—১৭৯৮)

স্যার জন শোর (John Shore, 1st Baron Teignmouth) ১৭৯৩ খ্রিষ্টাব্দের ২৮ শে অক্টোবর থেকে ১৭৯৮ খ্রিষ্টাব্দের ১৮ই মার্চ পর্যন্ত বাংলার গভর্নর জেনারেল ছিলেন। তিনি ব্রিটিশ অ্যান্ড ফরেইন বাইবেল সোসাইটির প্রথম প্রেসিডেন্ট ছিলেন। ফারসি ও বাংলা ভাষার প্রতি ভালোবাসার সূত্রে তিনি এক ভারতীয় নারীর পাণিগ্রহণ করেন। ওয়ারেন হেস্টিংসের শাসনকালে, জন শোর ছিলেন তাঁর প্রধান রাজস্ব উপদেষ্টা। বাংলার রাজস্ব সংক্রান্ত বিষয়াদি, বাংলার গণপ্রতিষ্ঠানাদি, প্রথা ও আচার অনুষ্ঠান সম্বন্ধে তাঁর জ্ঞান কোর্ট অব ডাইরেক্টর্সকে এতই প্রভাবিত করে যে, তাঁরা তাঁকে গভর্নর জেনারেলের পরিষদের সদস্য নিয়োগ করেন। স্যুবৃত্তি করে রাতারাতি ধনী হওয়া কোম্পানির অনেক কর্মচারীর নীতিতে পরিণত হয়েছিল। শোর ছিলেন এর ব্যতিক্রম।  জন শোর ১৭৫১ খ্রিষ্টাব্দের ৫ই অক্টোবর পিকাডিলির সেন্ট জেমস স্ট্রিটে জন্মগ্রহণ করেন ১৮৩৪ খ্রিষ্টাব্দের ১৪ই ফেব্রুয়ারি লন্ডনের পোর্টম্যান স্কয়ারে তাঁর বাসভবনে মারা যান।

জন শোর এবং এশিয়াটিক সোসাইটি: জন শোর  প্রাচ্যের সংস্কৃতিকে ভালবাসতেন। প্রাচ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ এবং সুপ্রিম কোটের বিচারক স্যার উইলিয়ম জোনসকে স্যার জন শোর প্রাচ্য বিষয়ক সকল প্রকল্প বাস্তবায়নে সহায়তা করেন এবং ১৭৯৪ খ্রিষ্টাব্দে জোনসের মৃত্যুর পর তাঁর উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এশিয়াটিক সোসাইটিকে শক্তিশালীকরণে শোর সহায়তা করেন। শোরের সভাপতিত্বেই এশিয়াটিক সোসাইটি রাজকীয় মঞ্জুরি লাভ করে এবং সোসাইটি ভবন নির্মাণের জন্য একখন্ড জমি বরাদ্দ পায়।

. স্যার অ্যালুরেড ক্লার্ক (১৭৯৮)

 ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর মেজর জেনারেল অ্যালুরেড ক্লার্ক (Sir Alured Clarke)  ছিলেন ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি নিয়োজিতবাংলার পঞ্চম গভর্নর জেনারেল। তিনি ১৭৯৮ খ্রিষ্টাব্দের ১৮ই মার্চ থেকে ১৭৯৮ খ্রিষ্টাব্দের ১৮ই মে পর্যন্ত বাংলার ভারপ্রাপ্ত গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৭৭৪ খ্রিষ্টাব্দের ২৪ শে নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন এবং  ১৮৩২ খ্রিষ্টাব্দের ১৬ই সেপ্টেম্বর মারা যান।

৬.  রিচার্ড ওয়েলেসলি (১৭৯৮—১৮০৫)

আইরিশ ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ ও ঔপনিবেশিক প্রশাসক রিচার্ড ওয়েলেসলি (Richard Colley Wellesley, 1st Marquess Wellesley) ১৭৯৮ খ্রিষ্টাব্দের ১৮ই মে থেকে ১৮০৫ খ্রিষ্টাব্দের ৩০ শে জুলাই পর্যন্ত বাংলার গভর্নর জেনারেল ছিলেন। এরপর তিন ব্রিটেনের পররাষ্ট্র সচিব হন। মহীশুরের টিপু সুলতান ইংরেজদের অধীনতামূলক মিত্রতা বশ্যতা গ্রহণে অস্বীকার করলে ওয়েলেসলি তাঁর বিরুদ্ধে চতুর্থ মহীশুরের যুদ্ধ পরিচালনা করেন। টিপু সুলতান পরাজিত হন এবং তাঁর রাজ্যের একটি বৃহৎ অংশ ব্রিটিশ ভূখন্ডের সঙ্গে সংযুক্ত করা হয়। টিপু সুলতানের পিতা হায়দার আলী মহীশূরের যে পুরাতন রাজ পরিবারকে উৎখাত করেছিলেন সে রাজবংশের এক সন্তানকে অধীনতামূলক মিত্রতায় ওয়েলেসলি নিজ হেফাজতে আনেন। ওয়েলেসলি সুরাট, তাঞ্জোর ও কর্ণাটক নিজ দখলে আনেন। কুশাসনের অভিযোগে তিনি অযোধ্যার নওয়াবকে তাঁর রাজ্যের কিছু এলাকা ব্রিটিশদের নিকট সমর্পণ এবং সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিতে বাধ্য করেন। আগ্রাসন ও জবরদখলের জন্য তাঁর নীতি স্বদেশের কর্তৃপক্ষকে বিরক্ত কললে ১৮০৫ খ্রিষ্টাব্দে তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়। ওয়েলেসলি ভারতীয় প্রাকৃতিক ইতিহাস কোম্পানির শৈলী সম্বন্ধীয় ২৫০০ এরর বেশি আঁকা মিনিয়েচারের বিরাট সংগ্রহ গঠন করেছিলেন। তিনি ১৭৬০ খ্রিষ্টাব্দের ২০ শে জুন আয়ারল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৮৪২ খ্রিষ্টাব্দের ২৬ শে সেপ্টেম্বর ইংল্যান্ডের নাইটসব্রিজে মারা যান।

. চার্লস কর্নওয়ালিস

চার্লস কর্নওয়ালিস এর আগে একবার বাংলার গভর্নর জেনারেল ছিলেন। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি নিয়োজিত বাংলার গভর্নর হিসেবে এটি ছিল তাঁর দ্বিতীয় নিয়োগ। এই মেয়াদে তিনি ১৮০৫ খ্রিষ্টাব্দের ৩০ শে জুলাই থেকে ১৮০৫ খ্রিষ্টাব্দের ৫ই অক্টোবর পর্যন্ত বাংলার গভর্নর জেনারেল ছিলেন।


বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয় সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আমলে বাংলার গভর্নর : সকল গভর্নর

ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আমলে বাংলার গভর্নর জেনারেল : সকল গভর্নর জেনারেল/১

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

শুদ্ধ বানান চর্চা/১

শুদ্ধ বানান চর্চা/২

শুদ্ধ বানান চর্চা /৩

শুদ্ধ বানান চর্চা /৪

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/১

error: Content is protected !!