উগান্ডা (Uganda) : নামকরণ ও ইতিহাস

[su_heading size="21" margin="30"]উগান্ডা (Uganda) : নামকরণ ও ইতিহাস[/su_heading]

[su_dropcap style=”flat” size=”4″]উ[/su_dropcap]গান্ডা পূর্ব আফ্রিকায় একটি স্থলবন্দি দেশ। এর পূর্বে কেনিয়া, উত্তরে দক্ষিণ আফ্রিকা, পশ্চিমে কঙ্গো, দক্ষিণ-পশ্চিমে রুয়ান্ডা এবং দক্ষিণে তানজানিয়া অবস্থিত। দক্ষিণাংশে অবস্থিত লেক ভিক্টোরিয়া, কেনিয়া ও তানজানিয়া উভয় দেশের মধ্যে অবস্থিত। ১৮০০ খ্রিস্টাব্দ হতে উগান্ডায় ব্রিটিশ শাসন শুরু হয়। উগান্ডার সরকারি নাম রিপাবলিক অব উগান্ডা এবং রাজধানী কাম্পালা। ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দের ৯ অক্টোবর উগান্ডার পতাকা গৃহীত হয়।

 

[su_dropcap style=”flat” size=”4″]উ[/su_dropcap]গান্ডার মোট আয়তন ২,৪১,০৩৮ বর্গকিলোমিটার বা ৯৩,০৬৫ বর্গমাইল। তন্মধ্যে জলীয় ভাগের পরিমাণ ১৫.৩৯%। ২০১৪ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, উগান্ডার জনসংখ্যা ৩,৭৮,৭৩,২৫৩ এবং প্রতি বর্গকিলোমিটার লোকসংখ্যা ১৩৭.১ জন । আয়তন বিবেচনায় উগান্ডা পৃথিবীর ৮১-তম, জনসংখ্যা বিবেচনায় ৩৫-তম। কিন্তু জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় পৃথিবীর ৮০-তম জনবহুল দেশ। ২০১২ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, উগান্ডার জিডিপি (পিপিপি) ৫০.৪৩৯ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং মাথাপিছু আয় ১,৪১৪ ইউএস ডলার। মুদ্রার নাম শিলিং। উগান্ডার অধিবাসীদের সরকারিভাবে উগান্ডান বলা হয়।

১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দের ৯ অক্টোবর দেশটি যুক্তরাজ্য হতে স্বাধীনতা লাভ করে। ইংরেজি ও সাওহিলি (ঝধিযরষর) উগান্ডার সরকারি ভাষা। দেশের ৮৫% অধিবাসী খ্রিষ্টান ও ১২.১% মুসলিম। উগান্ডা পূর্ব আফ্রিকার বৃহৎ হ্রদ অঞ্চলের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত। দেশটির আয়তনের প্রায় ১৮% হ্রদ এবং অন্যান্য জলাভূমি নিয়ে গঠিত। ১২% এলাকা জাতীয় উদ্যান হিসেবে সংরক্ষিত। বাকি ৭০% এলাকা বনভূমি এবং তৃণভূমি। নিল নদের কিয়দংশ উগান্ডার ওপর দিয়ে প্রবাহিত। এখানে ৮০টির মতো উপজাতি রয়েছে। ৫০% উগান্ডান প্রতিদিন ১ ডলার বা তারও কম অর্থ দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। তবু মদ্যপান বিবেচনায় এটি পৃথিবীর প্রথম সারির অন্যতম একটা দেশ। পৃথিবীর মোট পাখির ১০.২ প্রজাতির পাখি এখানে পাওয়া যায়। উগান্ডায় উৎপাদিত হয় পৃথিবীর সবচেয়ে সেরা কলা, আনারস, আম ও অ্যাভোক্যাডোস। [জাম্বিয়া]

error: Content is protected !!