উচিত সার্থক ধৈর্য নিমোনিক

সার্থক ও স্বার্থক নিমোনিক :

সংস্কৃত ‘সার্থ (‘স+অর্থ)’ শব্দের অর্থ – বিশেষণে তাৎপর্যপূর্ণ, অর্থপূর্ণ, ধনবান, বিশেষ্যে বণিকদল এবং বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত সার্থ (√সৃ+থ) শব্দের অর্থ- সঙ্গী, সাথি, সমূহ, পশুর পাল প্রভৃতি। সংস্কৃত ‘সার্থক (স+অর্থ+কপ্)’ শব্দের অর্থ – সফল, অর্থযুক্ত, সুসম্পাদিত।বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত সংস্কৃত ‘স্বার্থ (স্ব+অর্থ) শব্দের অর্থ – নিজ প্রয়োজনের বিবেচনা, নিজের মঙ্গল বা হিত প্রভৃতি।

‘সার্থক’ বানান লিখতে গিয়ে অনেকে লিখেনে ‘স্বার্থক’। ‘স’ আর ‘স্ব’ এর উচ্চারণ অভিন্ন হওয়ার কারণে এমন ভুল হয়। তাই স্মৃতিজাগানিয়া হিসেবে একটি সূত্র ব্যবহার করা যায়। দেখুন সূত্রটি কাজ দেয়ে কি না :

‘স্ব’ মানে নিজ এবং ‘স’ মানে সহ বা সবার। মনে করুন, ‘স্ব’ কেবল নিজের কল্যাণকে এবং ‘স’ সবার কল্যাণকে নির্দেশ করছে। যে কেবল নিজের কল্যাণ বা ‘স্ব’ নিয়ে ব্যস্ত থাকে সে সফল বা সার্থক হতে পারে না। তাই ‘সফল’ প্রসঙ্গে ‘সার্থক’ লেখার সময় ‘স্ব’ বর্জন করুন, লিখুন সার্থক।

উচিত নিমোনিক:
উচিত (√উচ্‌+ত) সংস্কৃত শব্দ। বাক্যে সাধারণত বিশেষণ পদ হিসেবে ব্যবহৃত শব্দটির অর্থ – যোগ্য, যথাযথ প্রভৃতি। শব্দটির শেষ বর্ণ উচ্চারণে হসন্ত। তাই বানানে ‘খণ্ড-ৎ’ হবে না কি ‘আস্ত-ত’ হবে তা নিয়ে সংশয়ে লেগে যায়। সংশয় দূর করার জন্য একটা নিমোনিক মনে রাখুন : অপূর্ণ বর্ণ হিসেবে খণ্ড-ৎ অনুচিত বর্ণ। তাই ‘উচিত’ বানানে উচিত বর্ণ ‘আস্ত-ত’ দিয়ে লিখুন।

ধৈর্য : ‘ধৈর্য’ শব্দের সঙ্গে ‘সহ্য’ শব্দের মিল থাকলেও ‘ধৈর্য’ বানানে য-আছে তাই শব্দটির বানানে পুনরায় য-রূপী ‘য-ফলা’ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। দিলে তেমনি য-ফলা দেবেন না ধৈর্যচ্যুত, ধৈর্যচ্যুতি, ধৈর্যশীল, ধৈর্যবান, ধৈর্যধারণ, ধৈর্যময়ী, ধৈর্যশালী, ধৈর্যশীল, ধৈর্যহানি, ধৈর্যহারা, ধৈর্যহীন, ধৈর্যাবলম্বন প্রভৃতি শব্দেও।

 

error: Content is protected !!