এক্ষুনি বনাম এখনই আর এখনি; এক্ষুনি আর এক্ষণে

ড. মোহাম্মদ আমীন
 
এই পেজের সংযোগ: https://draminbd.com/এক্ষুনি-বনাম-এখনই-আর-এখনি/
 
 
এক্ষুনি: বাক্যে ক্রিয়াবিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত এক্ষুনি অর্থ— এই মুহূর্তেই, অবিলম্বে, কালবিলম্ব না করে, এখনই, এখনি। এটি বাংলা শব্দ এবং উচ্চারণ: এক্‌খুনি।
প্রয়োগ:
এক্ষুনি যাও।
এক্ষুনি ট্রেন ধরতে হবে।
এক্ষুনি যদি না যাও তো আর গিয়ে লাভ নেই।
 
 
এখনই: এখনই বাংলা শব্দ। ক্রিয়াবিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃহত এখনই অর্থ—  এই মুহূর্তেই, অবিলম্বে, কালবিলম্ব না করে, এখনি, এক্ষুনি।শব্দটির উচ্চারণ: অ্যাখনি। ‘এখনই উঠিবে চাঁদ’ অমর রায়ের লেখা একটি বই।
 
প্রয়োগ:
এখনই যাও।
এখনই ট্রেন ধরতে হবে।
এখনই যদি না যাও তো আর গিয়ে লাভ নেই। 
 
 
এখনি: এখনি বাংলা শব্দ।  ক্রিয়াবিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত এখনি অর্থ— এই মুহূর্তেই, অবিলম্বে, এখনই, কালবিলম্ব না করে, এক্ষুনি, এখনই।শব্দটির উচ্চারণ: অ্যাখনি। 
প্রয়োগ:
এখনি যাও।
এখনি ট্রেন ধরতে হবে।
এখনি যদি না যাও তো আর গিয়ে লাভ নেই। 
 
অর্থ বিশ্লেষণে দেখা যায়,  এক্ষুনি, এখনই এবং এখনি পরস্পর সমার্থক তিনটি শব্দ। অর্থের মতো শেষ দুটি শব্দের উচ্চারণও অভিন্ন। বাক্যে বা রচনায় সমার্থে তিনটি শব্দের যে-কোনো একটি লেখা যায়। তবে একই লেখায় কিংবা একই রচনায় বা একই গ্রন্থে যে-কোনো একটি লেখা সমীচীন। উচ্চারণের কারণে এক্ষুনি শব্দটি কাব্যে কম ব্যবহৃত হয়। এখনই/এখনি দিয়ে প্রণব রায়ের কথায়, সুবল দাসগুপ্তের সুরে শিল্পী কুন্দলাল সায়গলের গলায় জনপ্রিয় গানের কয়েকটি পঙ্‌ক্তি— 
 
এখনই/এখনি উঠিবে চাঁদ,
আধো আলো আধো ছায়াতে
কাছে এসে প্রিয়,
হাতখানি রাখো হাতে৷৷
এখনই/এখনি জাগিবে ভীরু চামেলী,
জোছনায় নয়ন মেলি।
ফিরিবে কপোত নীড়ে,
প্রিয় পাশে তরু শাখাতে৷
https://draminbd.com/এক্ষুনি-বনাম-এখনই-আর-এখনি/
 
 
 
 
এক্ষণ ও এক্ষণে বানানে মূর্ধন্য-ণ; কিন্তু এক্ষুনি বানানে দন্ত্য-ন কেন?
এক্ষণ ও এক্ষণে তৎসম। তাই মূর্ধন্য-ণ। কারণ ক্ষ= ক্‌+ষ। তৎসম শব্দে ক্ষ-এর পর ন-এর জায়গায় ণ হয়। এক্ষুনি অতৎসম। অতৎসম শব্দে ণত্ববিধি প্রযোজ্য নয়। এজন্য এক্ষুনি বানানে ক্ষ-এর পর দন্ত্য-ন।
কিন্তু ব্যাকরণের তৎসম-অতৎসম জটিল বিষয় মনে না-থাকলে কী করব?
ড. মোহাম্মদ আমীন
খুনি বানানে মূর্ধন্য-ণ আছে?
নেই।
খুনি বানানে মূর্ধন্য-ণ দেন?
না।
সুতরাং, এক্ষুনি বানানেও মূর্ধন্য-ণ দেবেন না। দুনিয়ার কোনো খুনি বানানে মূর্ধন্য-ণ দেবেন না, দন্ত্য-ন দেবেন। যেমন: তক্ষুনি। ক্ষণ বানানের ণ, চলে গেলে তা ক্ষুনি হয়ে যায়।
সূত্র: ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
 

এক মিনিটের পাঠশালা /১৭

উহ্য নয়, লিখুন ঊহ্য।
উৎকর্ষতা নয়, লিখুন উৎকর্ষ।
ঊনিশ নয়, উনিশ (কিন্তু ঊনবিংশ)।

এককৃত নয়, লিখুন একীকৃত।
একনিষ্ট নয়, লিখুন একনিষ্ঠ
একভূত নয়, লিখুন একীভূত।

একাধিক্রমে নয়, লিখুন একাদিক্রমে।
এক্ষুণি নয়, লিখুন এক্ষুনি (কিন্তু এক্ষণ, এক্ষণে)।
এতদোদ্দেশ্যে নয়, লিখুন এতদুদ্দেশ্যে (তেমনি এতদুপলক্ষ্যে।
 
এতদ্ব্যতীত নয়, লিখুন এতদ্‌ব্যতীত।
এতদ্‌সঙ্গে নয়, লিখুন এতৎসঙ্গে (তেমনি এতৎসত্ত্বেও)।
এশিয় নয়, লিখুন এশীয় [( তেমন কানাডীয়, ভারতীয়, আরবীয় প্রভৃতি ) ‘-ঈয়’ প্রত্যয় যুক্ত হওয়ায় বিদেশি শব্দ হওয়া সত্ত্বেও বানানে ঈ-কার এসেছে।]
সূত্র : সূত্র: ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
—————————- — √———————
এক মিনিটের পাঠশালা (১০-১৬) একসঙ্গে : http://www.draminbd.com/2019/11/28/এক-মিনিটের-পাঠশালা-২/ ‎
এক মিনিটের পাঠ শালা (১- ১০) একসঙ্গে http://www.draminbd.com/2019/11/13/এক-মিনিটের-পাঠশালা/
শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
আমি শুবাচ থেকে বলছি
 
— — — — — — — — — — — — — — — — —
প্রতিদিন খসড়া
error: Content is protected !!