ওহি বহি বই পুস্তক book

ড. মোহাম্মদ আমীন
সংযোগ:  https://draminbd.com/ওহি-বহি-বই-পুস্তক-book/
বাংলায় বহুল পরিচিত বই(book) শব্দের অব্যবহিত পূর্বরূপ ‘বহি’। আরবি ওহি থেকে বহি এবং আরবি বহি থেকে বাংলা বই শব্দের উদ্ভব। যার একটি প্রতিশব্দ পুস্তক।
আরবি ওয়াও (و) বর্ণটি ‘ব’-এর মতো উচ্চারিত হয়। সে হিসেবে ওহি উচ্চারিত হয় বহি। ওহি থেকে উদ্ভূত বহি বাংলায় বই হিসেবে স্থিত, যার অর্থ পুস্তক।
বাংলায় এসে ওহি থেকে উদ্ভূত বহি শব্দটি পূর্বের অর্থ ছেড়ে পুস্তক অর্থ ধারণ করে আরও বিকশিত ও কালজয়ী হয়েছে। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, বই আরবি উৎসের বাংলা শব্দ। ওই অভিধান মতে, আরবি বহি থেকে উদ্ভূত বাংলা বই অর্থ: একসঙ্গে গেঁথে সেলাই করা বা আঠা দিয়ে জোড়া এবং মোড়কে আবৃত লিখিত বা মুদ্রিত পৃষ্ঠার সংকলন, পুস্তক, গ্রন্থ, খাতা (হিসাবের বই, তালিকার বই)।
বইমেলায় বই কিনতে যাব।

গনিমত loot

বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, আরবি গনিমত অর্থ (বিশেষ্যে) যুদ্ধক্ষেত্রে পরাজিত পক্ষের নিকট থেকে লুণ্ঠিত দ্রব্যসামগ্রী; সৌভাগ্য। বাংলায় গনিমত কথাটির আলংকারিক অর্থ (বিশেষণে) অনায়াসলব্ধ, বিনাশ্রমে লব্ধ, সহজ উপায়ে লব্ধ। ইংরেজিতে গনিমত কথার অর্থ loot.
————————————
গনিমত আরবি শব্দ হলেও যুদ্ধক্ষেত্রে পরাজিতদের মালামাল লুণ্ঠন প্রাগৈতিহাসিক যুগ থেকে চলে আসা একটি চিরন্তন যুদ্ধরীতি। পৃথিবীর সব সভ্যতা এভাবে গড়ে ওঠেছে। যুদ্ধে যেখানে অসংখ্য মানুষের জীবন কিছু না, সেখানে পরাজিতদের সম্পদ লুণ্ঠন সামান্য বিষয়। পৃথিবীর ইতিহাসে এমন কোনো স্থানে এমন কোনো যুদ্ধ হয়নি যেখানে পরাজিতদের সম্পদ লুণ্ঠন করা হয়নি। যুদ্ধ হয় লুট করার জন্য কিংবা লুট প্রতিরোধের জন্য। ভালোবাসা-বাসি করার জন্য নয়।

লাক্স শব্দের অর্থ

“জনপ্রিয় LUX (লাক্স) সাবানের লাক্স অর্থ কী?”
লাক্স একটি সাবানের নাম। ১৯২৪ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত ও বর্তমানে বিশ্বখ্যাত এই সাবানের জন্ম যুক্তরাজ্যে। উইলিয়াম হেসকেথ এবং তাঁর সহোদর জেমস- লাক্স সাবান ব্র্যান্ডটির উদ্যোক্তা।
ল্যাটিন ভাষায় লাক্স অর্থ ‘আলো’। অনেকের ধারণা, ল্যাটিন লাক্স থেকে সাবানের লাক্স নামটি গৃহীত। আমারও এমন ধারণা ছিল। তবে, প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্রদের ভাষ্য অনুযায়ী, LUX নামটি ইংরেজি লাক্সারি(luxury) শব্দের প্রথম তিনটি বর্ণ নিয়ে গঠন করা হয়েছে। যার অর্থ করা যেতে পারে— শৌখিন, সমৃদ্ধ, প্রমোদ, আনন্দ, জমকালো, জাঁকজমক, বিলাস, মাধুর্য, সুন্দর, অনিন্দ্য প্রভৃতি।

অপাঙ্‌ক্তেয়

পঙ্‌ক্তির সাথে নেতিবাচক অ-প্রত্যয় যুক্ত হয়ে অপাঙ্‌ক্তেয় শব্দের উৎপত্তি। এর অর্থ অনুপযুক্ত বা অসমকক্ষ। শব্দটির বুৎপত্তিগত অর্থ হল একই পঙ্‌ক্তিতে বা একই সারিতে বসার অনুপযুক্ত। সামাজিক আচার-অনুষ্ঠানে সমবেত মর্যদাশীল ব্যক্তিদের পঙ্‌ক্তিতে বা সারিতে নিম্নশ্রেণির মানুষদের বসতে বা খেতে দেয়া হত না। তাই তাদের বলা হত অপাঙ্‌ক্তেয় বা পঙ্‌ক্তিতে বসার অনুপযুক্ত। তখন অপাঙ্‌ক্তেয় বলতে একঘরে, পতিত, ঘৃণিত, নিন্দিত ও অবজ্ঞেয় ব্যক্তিবর্গকে বুঝানো হত। এখন অযোগ্য, অনুপযুক্ত কিংবা অসমকক্ষ বুঝাতে শব্দটি ব্যবহৃত হয়।
error: Content is protected !!