কাঁচ কাচ, গোঁড়া গোড়া, গাঁথা গাথা, গাঁ গা, দাঁড়ি দাড়ি: চন্দ্রবিন্দু নিমোনিক

ড. মোহাম্মদ আমীন

কাঁচ কাচ, গোঁড়া গোড়া, গাঁথা গাথা, গাঁ গা, দাঁড়ি দাড়ি

.https://draminbd.com/কাঁচ-কাচ-গোঁড়া-গোড়া-গাঁ/

কাঁচ কাচ 
কাচ (GLASS) বানানে চন্দ্রবিন্দু আছে কি? নেই। অভিধানে পৃথকভুক্তিতে তিনটি কাচ আছে। কোনো কাচ বানানেচন্দ্রবিন্দু নেই। শুধু তাই নয়, অভিধানে কাঁচ বানানের কোনো শব্দই নেই। কাঁচা বানানে চন্দ্রবিন্দু আছে। কাঁচকলা বা কাঁচপোকা, কাঁচকড়া কিন্তু কাচ নয়। এরা সম্পূর্ণ ভিন্ন একক বাংলা শব্দ। এবার দেখি কাচ শব্দের ভুক্তিসমূহ:
পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি

প্রথম ভুক্তি glass কাচ: সংস্কৃত কাচ (√কচ্+অ) অর্থ— (বিশেষ্যে) সোডা পটাশ বালি ইত্যাদি গলিয়ে তৈরি (সাধারণত স্বচ্ছ) চকচকে কঠিন ও ‍ভঙ্গুর পদার্থবিশেষ। ইংরেজিতে যাকে বলা হয় glass. Glass শব্দের আর একটি অর্থ জলপান পাত্র। সংস্কৃত বা তৎসম শব্দে কখনো চন্দ্রবিন্দু বসে না। তাই glass কাচ বানানেও চন্দ্রবিন্দু নেই।

নিমোনিক: কাচের জিনিস ভেঙে গেলে চন্দ্রও ভেঙে যেতে পারে। তাই কাচ বানানে চন্দ্রবিন্দু দেবেন না। একটা মাত্র চাঁদ। তা ভেঙে গেলে জ্যোৎস্না আপুর কী হবে?
.
দ্বিতীয় কাচ: বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত দ্বিতীয় ভুক্তির দেশি কাচ অর্থ— সাজ, বেশভূষা, অভিনয়কালে শিল্পীর সাজপোশাক।
.
তৃতীয় কাচ: তৃতীয় ভুক্তির কাচও দেশি শব্দ। বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত দেশি কাচ অর্থ— অর্থ লীলাখেলা, অভিনয়, ক্রীড়াকৌতুক, রঙ্গতামাশা, বাতিক, বাই।
অর্থাৎ কাচ বানানে চন্দ্রবিন্দু নেই। কাঁচ বানানের কোনো শব্দও কোনো অভিধানে নেই।
গোঁড়া গোড়া 
গোঁড়া: বাংলা গোঁড়া শব্দের অর্থ— (বিশেষণে) কোনো বিষয়ে অন্ধবিশ্বাসী, রক্ষণশীল মনোভাবাপন্ন, একগুঁয়ে, অত্যধিক পক্ষপাতযুক্ত। যে নিজের মতবাদ ছাড়া অন্য সবার মতবাদকে বাতিল করে দেয়; কারো মতবাদকে সহ্য করে না, ভিন্ন মতাবলম্বীকে ঘৃণা করে, হেয় করে, অপদস্থ করে, অকল্যাণ কামনা করে তাদের— গোঁড়া বলে। ইংরেজিতে যাদের orthodox বলা হয়। গোঁড়া শব্দের আর একটি অর্থ স্ফীত নাভিযুক্ত। এর বানানে চন্দ্রবিন্দু অনিবার্য। গোড়া: বাংলা গোড়া অর্থ— (বিশেষ্যে) মূল, সূত্রপাত, ভিত্তিমূল, মূল কারণ, সান্নিধ্য প্রভৃতি। এই গোড়ায় চন্দ্রবিন্দু নেই।
নিমোনিক: কীভাবে মনে রাখবেন কোনটায় চন্দ্রবিন্দু? গোড়া গাছের নিচে থাকে, কিন্তু চাঁদ থাকে আকাশে। তাই মূল বা গাছের গোড়া অর্থদ্যোতক গোড়া বানানে চন্দ্রবিন্দু নেই।
.
গাঁথা  গাথা 
‘গাথা’ অর্থ: বীরত্ব কাহিনি; কবিতা, শ্লোক, গান, পালাগান। ‘গাঁথা’ অর্থ:একটির সঙ্গে আর একটি সন্নিবেশ করার কাজ (যেমন মালা গাঁথা), প্রস্তুত, নির্মাণ (ইট গাঁথা) ইত্যাদি। অর্থ আর বানানে তফাত থাকলেও লেখার সময় অনেকে দ্বিধায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েন।
নিমোনিক: ‘মালা’ গাঁথার সময় সুই লাগে। সুই হচ্ছে চন্দ্রবিন্দু। তাই ‘মালা গাঁথা’ বানানে চন্দ্রবিন্দু অপরিহার্য। কবিতা, বীরত্বকাহিনী বা শ্লোক লেখায় সুই লাগে না। তাই এসব গাথায় চন্দ্রবিন্দু নেই।
.
গাঁ গা
‘গা’ যদি শরীর হয় তার ওপর চন্দ্রবিন্দু দেবেন না। গাঁ যদি গ্রাম হয়, তার ওপর চন্দ্রবিন্দু দিতে হবে। শরীরের ওপর চন্দ্রবিন্দু থাকে না; গ্রামের ‍ওপর চন্দ্রবিন্দু থাকে। কোনো এক গাঁয়ের বধূর কথা তোমায় শোনাই শোনো রূপকথা নয় সে নয়—। হেমন্ত বাবুর গাওয়া গানটি মনে রাখবেন।
দাঁড়ি  দাড়ি 

মুখের দাড়িতে চন্দ্রবিন্দু দিতে নেই, কিন্তু বাক্যের দাঁড়িতে চন্দ্রবিন্দু লাগবে। মুখের ‘দাড়ি’ নিচের দিকে ঝুলে থাকে। তাই চন্দ্রবিন্দু দিলে পড়ে যায়। এজন্য মুখের ‘দাড়ি’ চন্দ্রবিন্দু ছাড়া লিখতে হয়। বাক্যের দাঁড়ি, দাঁড়িয়ে থাকে। তার মাথায় চন্দ্রবিন্দু দিলে পড়ে যায় না। এজন্য বাক্যের ‘দাঁড়ি’ চন্দ্রবিন্দু দিয়ে লিখতে হয়।

সূত্র: নিমোনিক প্রমিত বাংলা বানান অভিধান, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.

#subach

You cannot copy content of this page

poodleköpek ilanlarıankara gülüş tasarımıantika alanlarPlak alanlarantika eşya alanlarAntika mobilya alanlarAntika alan yerlerpoodleköpek ilanlarıankara gülüş tasarımıantika alanlarPlak alanlarantika eşya alanlarAntika mobilya alanlarAntika alan yerler
Casibomataşehir escortjojobetbetturkeyCasibomataşehir escortjojobetbetturkey