Warning: Constant DISALLOW_FILE_MODS already defined in /home/draminb1/public_html/wp-config.php on line 102

Warning: Constant DISALLOW_FILE_EDIT already defined in /home/draminb1/public_html/wp-config.php on line 103
ক্যামেরুন (Cameroon) ইতিহাস ও নামকরণ – Dr. Mohammed Amin

ক্যামেরুন (Cameroon) ইতিহাস ও নামকরণ

ড. মোহাম্মদ আমীন

ক্যামেরুন (Cameroon)

ক্যামেরুন মধ্য অফ্রিকায় অবস্থিত একটি দেশ। এর সরকারি নাম রিপাবলিক অব ক্যামেরুন । ক্যামেরুনের পশ্চিমে নাইজেরিয়া, উত্তর-পূর্বে চাদ, পূর্বে মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্র এবং দক্ষিণে ইকুয়েটরিয়াল গিনি, গ্যাবন ও রিপাবলিক অব দ্যা কঙ্গো অবস্থিত। বনির বাঁকে (Bight of Bonny) গিনি উপসাগর ও আটলান্টিক মহাসাগরের কিছু অংশব্যাপি ক্যামেরুনের তটরেখা অবস্থিত।

পতুর্গিজ রিউ ডি ক্যামারোয়েস (Rio deCamarões) শব্দগুচ্ছ হতে ক্যামেরুন শব্দের উদ্ভব। পতুর্গিজ রিউ ডি ক্যামারোয়েস শব্দের অর্থ চিংড়ি নদী (Shrimp River)। পর্তুগিজ ক্যামারোয়েস শব্দ হতে ফ্রেঞ্চ ক্যামেরোউন (Cameroun), জার্মান কামেরুন (Kamerun) এবং ইংরেজি ক্যামেরুন (Cameroons) শব্দের উৎপত্তি। ক্যামেরুনের ওউরি নদীতে  প্রচুর গোস্ট চিংড়ি পাওয়া যেত। অত্যন্ত সুস্বাদু এ গোস্ট চিংড়ির প্রাচুর্য হতে ১৪৭২ খ্রিস্টাব্দে এলাকাটির নাম রাখা হয় ক্যামেরুন বা চিংড়ি নদী।

ক্যামেরুনের মোট আয়তন ৪,৭৫,৪৪২ বর্গকিলোমিটার বা ১,৮৩,৫৬৯ বর্গমাইল। ২০১৩ খ্রিস্টাব্দের হিসাবমতে জনসংখ্যা ২,২৫,৩৪,৫৩২ জন এবং প্রতি বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যা ৩৯.৭ জন। আয়তন বিবেচনায় ক্যামেরুন পৃথিবীর ৫৪-তম বৃহত্তম দেশ কিন্তু জনসংখ্যা বিবেচনায় ৫৬-তম। আবার জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় ক্যামেরুন পৃথিবীর ১৬৭-তম জনবহুল দেশ। ক্যামেরুনের রাজধানী ইয়ায়ুন্ডি এবং মুদ্রার নাম ফ্রাংক। দেশের অধিবাসীদের ক্যামেরোনিয়ান বলা হয়। দুই-তৃতীয়াংশ ক্যামেরোনিয়ান খ্রিস্টান এবং দি¦তীয় স্থানে রয়েছে মুসলিম।

২০১৪ খ্রিস্টাব্দের হিসাবমতে, ক্যামেরুনের মোট জিডিপি (পিপিপি) ৬৭.২৫৫ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং মাথাপিছু আয় ২,৯৮১ ইউএস ডলার। অন্যদিকে, জিডিপি (নমিনাল) ৩২.১৬৩ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং মাথাপিছু আয় ১,৪২৬ ইউএস ডলার। ১৯৬০ খ্রিস্টাব্দের ১ জানুয়ারি ফ্রান্স হতে স্বাধীনতা ঘোষণা করে। ১৯৬১ খ্রিস্টাব্দের ১ অক্টোবর প্রাক্তন ব্রিটিশ ক্যামেরুনের সঙ্গে একীভূত হয়। ১৯৭৫ খ্রিস্টাব্দের ২০ মে ক্যামেরুনের বর্তমান পতাকা গৃহীত হয়।

ক্যামেরুনের সরকারি ভাষা ফ্রেঞ্চ ও ইংরেজি। তবে দেশে ২৩০টির মতো ভাষা ও ২৫০ টির মতো নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী রয়েছে। প্রচলিত আছে। ক্যামেরুন ১৯৬০ খ্রিস্টাব্দের ১ অক্টোবর ফ্রান্স ও ইংল্যান্ড হতে স্বাধীনতা লাভ করে। ওই দিনটি তারা স্বাধীনতা দিবস হিসাবে পালন করে। কামেরুনের জনগণ প্রধানত খ্রিস্টান ও দ্বিতীয়ত ইসলাম ধর্ম অনুসরণ করে থাকেন। দেশের ৩০% অধিবাসীকে দৈনিক ১.২৫ ডলারের কর্ম অর্থ দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতে হয়। ক্যামেরুন কফি, কোকো, তুলা, কলা ও তৈলবীজ উৎপাদনে বিখ্যাত। ক্যামেরুনের মাউন্ট ক্যামেরুন পশ্চিম আফ্রিকার উচ্চতম পর্বত। এখানে বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ১০২৮ সেন্টিমিটার। কাজেই এটি পৃথিবীর বৃষ্টিবহুল স্থানের একটি।

ইউরোপীয়ানদের মধ্যে প্রথম পতুগিজরাই ১৪৭২ খ্রিস্টাব্দে ক্যামেরুন আসে। এর আগে ক্যামেরুন সম্পর্কে খুব কমই জানা ছিল ইউরোপের মানুষের। ক্যামেরুন ১০টি প্রদেশ বিভক্ত। এটি একটি গরীব রাষ্ট্র। দেশের এক তৃতীয়াংশ লোক দরিদ্র সীমার নিচে বাস করে। ক্যামেরুন আফ্রিকার প্রথম দেশ, যে বিশ্বকাপ ফুটবলে কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছে। এ দেশে সাতটি ন্যাশনাল পার্ক রয়েছে।

ক্যাপ ভার্দে