খ্রিষ্ট খ্রিষ্টীয় খ্রিষ্টান খ্র্রিষ্টাব্দ এবং পানি শব্দের প্রকৃত উৎস: বাংলা একাডেমির অনুচিত সিদ্ধান্ত

ড. মোহাম্মদ আমীন
ড. মোহাম্মদ আমীন
সংযোগ: https://draminbd.com/খ্রিষ্ট-খ্রিষ্টীয়-খ্রিষ্/
খ্রিষ্ট খ্রিষ্টীয় খ্রিষ্টান খ্র্রিষ্টাব্দ:  খ্রিষ্ট [(Christ)উচ্চারণ: খ্রিস্‌টো] শব্দটি ভাষিক উৎসে চিহ্নিত করা হয়নি। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে ‘খ্রিষ্ট’ কথাকে ব্যক্তি চিহ্নিত করা হয়েছে। অভিধানে ‘খ্রিষ্ট’  অর্থ দেওয়া হয়েছে: খ্রিষ্ট ধর্মের প্রবর্তক, যিশু। ব্যক্তি বা ব্যক্তির নাম কেবল ওই নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে নির্দেশ করে। এছাড়া অন্য কোনো অর্থ নির্দেশ করে না। তাই খ্রিষ্টকে ভাষিক উৎস হিসেবে দেখানো হয়নি। এজন্য  ‘খ্রিষ্ট’ কথাটি কোন ভাষা হতে এসেছে তা নির্দেশ না করে ব্যক্তি নির্দেশ করে পক্ষান্তরে সর্বভাষার সর্বজনীন মহাগৌরব বিভূষিত শব্দ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। তাই ‘খ্রিষ্ট’ তৎসম অতৎসম সংস্কৃত অসংস্কৃত বাংলা হিন্দি ইংরেজি উর্দু আরবি পোর্তুগিজ চায়নিজ তুর্কি ফারসি. . . সব। এজন্য বানানে মূর্ধন্য-ষ। অথচ, খ্রিষ্ট শব্দের উৎস আছে। খ্রিষ্ট শব্দটি গ্রিক Χριστός (Christos) শব্দ হতে উদ্ভূত। যার অর্থ anointed (অভিষিক্ত) এবং ইংরেজিতে যা messiah হিসেবে অনূদিত। তাহলে বাংলা একাডেমি এমন করল কেন? তাহলে কি যিশুর পিতার মতো খ্রিষ্ট কথার ভাষাও ঐশ্বরিকভাবে অদৃশ্যমান?
ঠিক আছে, তা না হয় কর্তার ইচ্ছায় কর্ম হিসেবে মেনে নিলাম বাধ্য হয়ে। মুহম্মদ কথাটিও তো ব্যক্তি। মুহম্মদ হচ্ছেন আল্লাহর প্রেরিত সর্বশেষ দূত ও ইসলাম ধর্মের প্রবর্তক হজরত মুহাম্মদ (সা.)। সুতরাং, ‘মুহম্মদ’ শব্দটিও ব্যক্তি। বর্ণিত অভিধানে, খ্রিষ্ট কথাকে ব্যক্তি  নির্দেশপূর্বক মহাগৌরবে বিভূষিত করা হলেও মহাগৌরবান্বিত  মুহম্মদ কথাকে কেন ব্যক্তি নির্দেশ করা হয়নি? সম্মানিত ব্যক্তি হিসেবে  খ্রিষ্ট মহাসম্মানে সংস্কৃতে আত্তীকৃত, তাহলে মুহাম্মদ কথাটি হবে না কেন? 
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানের মাধ্যমে বাংলা একাডেমির এমন সিদ্ধান্ত খুব গর্হিত মনে হয়। 
খ্রিষ্ট হতে খ্রিষ্টীয়। বাংলা  একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান মতে খ্রিষ্টান ইংরেজি উৎসের শব্দ। এটিও ঠিক নয়। খ্রিষ্ট গ্রিক উৎসের শব্দ। সে হিসেবে খ্রিষ্টানও গ্রিক উৎসের। অথচ, বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান বলছে ইংরেজি উৎসের। প্রসঙ্গত, খ্রিষ্টান অর্থ খ্রিষ্টধর্মের অনুসারী ব্যক্তি, খ্রিষ্টধর্মাবলম্বী, খ্রিষ্টধর্মসম্বন্ধীয়। ওই অভিধান মতে, ব্যক্তি খ্রিষ্ট ও সংস্কৃত অব্দ মিলে খ্রিষ্টাব্দ।

পানি শব্দের উৎস: সংস্কৃত পানীয় থেকে উদ্ভূত ‘পানি’ তদ্ভব বা খাঁটি বাংলা শব্দ। এর সমার্থক শব্দ জল বারি। ইংরেজিতে water. তদ্ভব শব্দের অপর নাম খাঁটি বাংলা শব্দ। জল সংস্কৃত শব্দ। বাংলায় যাকে বলা হয় তৎসম। 

জানা অজানা অনেক মজার বিষয়: https://draminbd.com/?s=অজানা+অনেক+মজার+বিষয়
শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
আমি শুবাচ থেকে বলছি
— — — — — — — — √— — — — — — — — —
error: Content is protected !!