গাধা গাধা আমি জাতি

 
ড. মোহাম্মদ আমীন
 
বাবা তার দুই যমজ ছেলেকে ইংরেজি পড়াচ্ছেন।
বলো তো, হত্যাকাণ্ড ইংরেজি কী?
Assassination, দুই ছেলে সমস্বরে বলল।
বানান করো।
পারি না।
‘গাধা’ ইংরেজি কী? বাবা প্রশ্ন করলেন।
Ass
‘আমি’ ইংরেজি কী?
I
‘জাতি’ ইংরেজি কী?
Nation.
বাহ্! তোমরা তো Assassination বানান জানতে। গাধার মতো মিথ্যা বললে কেন?
কীভাবে জানতাম? দুই ছেলে প্রশ্ন করল।
বাবা বললেন, মনে করো তোমরা দুজন গাধা। এক গাধার ‍(ass) সামনে আর এক গাধা (ass)। তার সামনে আমি (i)। তার সামনে জাতি (nation)। কী হলো?
গাধা গাধা আমি জাতি।
এই বাক্যটিকে ইংরেজি করলে হত্যাকাণ্ড হয়ে যাবে। এবার হত্যাকাণ্ড ইংরেজি বানান করো।
দুই ছেলে সমস্বরে বলল, Assassination।
গুড, বাবা বললেন।
ছেলেরা বলল, তোমার বাবাও কি তোমরা দুই ভাইকে এভাবে হত্যাকাণ্ড ইংরেজি শিখিয়েছেন?
এক গাধার সামনে আর এক গাধা। তারা সামনে আমি। তার সামনে জাতি। হত্যাকাণ্ড হয়ে গেল। অত প্রশ্ন করার দরকার নেই ।
 
উৎস: ড. মোহাম্মদ আমীন, পুথিনিলয়, বাঙালির বাংলা হাসি, বাংলাবাজার, ঢাকা।
 
 

ভদ্রলোকের মন খারাপ

ড. মোহাম্মদ আমীন
 
ফ্যাঙ্কলিন পি জোনস (১৯০৮ খ্রি.—১৯৮০ খ্রি.) মন খারাপ করে বসে আছেন। তার স্ত্রী, ছেলে সন্তান প্রসব করেছেন। বাড়ির সবাই আনন্দে মাতোয়ারা— ঘরে নতুন অতিথি এসেছে। এক বন্ধু নতুন অতিথির আগমনে শুভেচ্ছার নিদর্শনস্বরূপ ফুলের তোড়া তুলে দিয়ে জোনসকে বললেন, “ এমন আনন্দের দিন মন খারাপ করে বসে আছ কেন?
জোনস বললেন, আগামী দশ বছরের বোঝার কথা চিন্তা করে আমার মেজাজ খারাপ হয়ে যাচ্ছে।
কী বোঝা?
এতদিন যেটা অন্যের কাছে ছিল।
মানে?
সন্তানটা আমার বউ দশ মাস রেখেছে।আমাকে রাখতে হবে দশ বছর। আমার মন খারাপ হবে না তো তোমার মন খারাপ হবে? আনন্দ আমার নয়, আমার স্ত্রীর।
 
সূত্র: ড. মোহাম্মদ আমীন. বিখ্যাতদের কৌতুক হাস্যরস ও প্রজ্ঞাযশ, পুথিনিলয়, বাংলাবাজার, ঢাকা।
error: Content is protected !!