গোদের উপর বিষফোড়া, ন্যাড়া বেলতলায় একবার‌ই যায়

ড. মোহাম্মদ আমীন

গোদের উপর বিষফোড়া, ন্যাড়া বেলতলায় একবার‌ই যায়

গোদের উপর বিষফোড়া

মশাবাহিত পরজীবী সুতাকৃমির সংক্রমণের ফলে জীবদেহের কোনো অঙ্গে লসিকা প্রবাহ বাধাপ্রাপ্ত হওয়ার কারণে ওই অঙ্গের অস্বাভাবিক স্ফীতিকে গোদ রোগ বলা হয়। বাংলায় রোগটি শ্লীপদ ও শোথ নামেও পরিচিত। সাধারণত পায়ে এই রোগের অধিক সংক্রমণ দেখা যায়।
গোদ রোগে আক্রান্ত মানুষের পা ফুলে অনেকটা হাতির পায়ের মতো হয়ে যায়। তাই ইংরেজিতে এটাকে elephantiasis বলা হয়। এ রোগ শরীরের জন্য খুব কষ্টকর। হাঁটা যায় না, বসা যায় না, শোয়া যায় না।
 
যদি গোদ রোগে আক্রান্ত স্থানে বিষাক্ত ফোড়া হয় তবে সেটা আরো ভয়াবহ হয়ে যায়। যাকে বলা যায় বিপদের ওপর বিপদ । এভাবে বাংলায় প্রচলিত “গোদের উপর বিষফোড়া” প্রবাদটির উদ্ভব। যার অর্থ এক বিপদের ওপর আর এক বিপদ।
 
মনে রাখবেন:
ফোড়া: সংস্কৃত স্ফোটক থেকে উদ্ভূত ফোড়া অর্থ (বিশেষ্যে) জীবদেহের ত্বকে উদ্‌গত সচরাচর পুঁজযুক্ত অর্বুদ, স্ফোটক, ব্রণ প্রভৃতি। এই ফোড়ায় চন্দ্রবিন্দু নেই। পুঁজযুক্ত স্থানে এত সুন্দর চাঁদ থাকবে কেন?
ফোঁড়া: বাংলা ফোঁড়া অর্থ (ক্রিয়াবিশেষণে) ভেদ করা, বিদ্ধ করা, ছিদ্র করা। ছিদ্র করার জন্য জন্য এ ফোঁড়ায় চন্দ্রবিন্দু দিতে হয়। চন্দ্রবিন্দুর ধারালো প্রান্ত দিয়ে সহজে ফোঁড়াফুঁড়ি করা যায়।
 
ন্যাড়া বেলতলায় একবার‌ই যায়: কথার উৎস ও ব্যাখ্যা
প্রবাদটি নিয়ে একটি গল্প আছে। ন্যাড়ার হাত দেখে একজন জ্যোতিষী বলেছিলেন তার অপঘাতে মৃত্যু হবে। এই মৃত্যুটা হবে তার মাথায় গাছ থেকে বেল পড়ার আঘাতে। ন্যাড়ার মা এটি নিয়ে খুবই চিন্তিত ছিলেন। কারণ ন্যাড়াদের এলাকাসহ আশেপাশের এলাকায় প্রচুর বেলগাছ। নিরাপত্তার জন্য মা, তার ন্যাড়া ছেলেকে  বোনের বাড়ি পাঠিয়ে দিলেন। সে এলাকায় কোনো বেল গাছ নেই।
 
ন্যাড়া বোনের বাড়ি যাওয়ার পর ভালোই দিন কাটছিল। হঠাৎ একদিন অন্য এলাকায় ঘুরতে গিয়ে সে একটি বেলগাছ তলায় চলে গেল। তখনই একটা পাকা বেল তার মাথার ওপর পড়ে। এই আঘাতেই ন্যাড়ার মৃত্যু হয়। একারণে বলা হয় ন্যাড়া বেল তলায় একবারই যায়। কেননা মারা যাওয়ার কারণে সে দ্বিতীয় বার বেল তলায় যাওয়ার সুযোগ পাবে না।
 
এই প্রবাদটি দিয়ে  বোঝানো হয় একবার ভুল থেকে শিক্ষা নেওয়ার পর দ্বিতীয়বার সেই ভুল কেউ করে না। ন্যাড়ামাথার কেউ যদি বেলতলায় একবার যায়, তাহলে তার মাথায় পাকা বেল পড়ে সে মারা যায। দ্বিতীয়বার আর যাওয়ার সুযোগ থাকে না। এজন্য বলা হয়ে থাকে, ন্যাড়া বেলতলায় একবারই যায়।
 
error: Content is protected !!