গোরুর মুখবন্ধনী, গুমাই, টুনি, গুম, গুমি

ড. মোহাম্মদ আমীন
গোরুর মুখবন্ধনী:জমিতে হালচাষ করার সময় কিংবা ফসলের মাঠ পেরিয়ে আনা-নেওয়ার সময় গোরু যাতে ঘাস খাওয়ার চেষ্টা করে হালচাষে বিঘ্ন সৃষ্টি কিংবা খেতের ফসল নষ্ট না করতে পারে সেজন্য মুখে সাধারণত বাঁশের তৈরি যে মুখবন্ধনী পরানো হয় তাকে গুমাই বা টুনি বলা হয়। এটি বাছুরের মুখেও এটি লাগানো হয়, যাতে  সে তার মা গোরুর দুধ খেয়ে ফেলতে না পারে। নেত্রকোণা ও সুনামগঞ্জ জেলার ওপর দিয়ে সর্পিলাকারে প্রবহমান গুমাই নদীর দৈর্ঘ্য ৪৪ মিটার এবং প্রস্থ  ২০ মিটার। রাঙ্গুনিয়া ও চন্দ্রঘোনায় রয়েছে গুমাই বিল। অনেক এলাকায় বলা হয় লাগাম। তবে, লাগাম আর গুমাই ভিন্ন জিনিস। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান মতে, ফারসি উৎসের লাগাম অর্থ: নিয়ন্ত্রণ রাখার জন্য ঘোড়ার মুখে লাগানো বলগা, রাশ। আলংকারিক অর্থ: নিয়ন্ত্রণ, সংযম (লাগামছাড়া কথা)। পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের কিছু অঞ্চল এবং বীরভূম অঞ্চলের কোথাও কোথাও একে টুঁড়ি বলা হয়ে থাকে।
গোরুর মুখবন্ধনী বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন নামে পরিচিত। যেমন:  উহা, উপা, ওফা, উফা, ওহা, কইয়ুর, কাওইর কয়ল, কাঁ, কাঁই, কাইর, কঁইর, কাপাই (ত্রিপুরা, ভারত), কাপা, কাপাইর, কাফারি, কাবারি,  কাপাই, কয়ার, কামুড়, কাউর, কাইল, কাউম, কা-ই-র, কোঁড়,  খুলি, খোঁপা, খঁইর, গোমা, গোমই, গুমোই, চুটি, জমা, জাবি, জোম, টনা, টুনা, টুনি, টুহা, টুই, টুয়া, টোয়া, টোপা, টোলা, ঠনা, ঠুঁশি, ঠুই, ঠুলি, ঠুড়ি, ঠোয়া, ঠুসি, ঠুসো, ঠোনাই, ডিগরা, তুরি, তুড়ি, নাহা, নাফা (চট্টগ্রাম), পুফা, ফুহা, ফুফা, ফোপা, মুখরি, মুখার, মুখাড়, মুকেরি, মুখরি, মুখকইল, মোহা,  মুখাইড়, মোহা, লাগাম, হওর,  হইর (অঁইর), হাম্মা,  হুহা, হোঁয়াইর, হোঁর, হুফা, হুফাই , হোফা প্রভৃতি। অধুনা অনেক জায়গাল এটাকে মাস্ক বলা হচ্ছে।
গুম: অভিধানে গুম শব্দের দুটি ভুক্তি রয়েছে। একটি দেশি গুম এবং আরেকটি ফারসি গুম। দেশি গুম অর্থ অব্যয়ে অপ্রকাশিত বা বদ্ধ অবস্থাসূচক ভাব (এমন গুমোট ভাব আর ভালো লাগে না); বিশেষ্যে গুম অর্থ উচ্চ ও গম্ভীর শব্দ (আকস্মিক গুম শব্দে কেঁপে উঠল জানালা) এবং বিশেষণে শব্দটির অর্থ নির্বাক, নিশ্চুপ ও গম্ভীর, স্তম্ভিত, স্তব্ধ ( ছেলের মৃত্যুর পর হতে তিনি গুম)। ফারসি গুম অর্থ (বিশেষ্যে) গায়েব, নিখোঁজ, লাপাত্তা এবং (বিশেষণে) গুপ্ত, লুকায়িত।
 গুমি:  গুমি ফারসি উৎসের শব্দ।  অর্থ (বিশেষণে) লুকায়িত। (পেয়াদারা চারিদিকে তল্লাস করিল, কিন্তু গুমি পাইল না”, আলালের ঘরের দুলাল।  বিশেষ্যে গুমি অর্থ নিখোঁজ ব্যক্তি, যে ব্যক্তিকে গুম করা হয়েছে বা লুকিয়ে ফেলা হয়েছে। “এখন গুমি গেরেপ্তারি লাঠি দাঙ্গা ফোর্জ চলবে না” হুতোম প্যাঁচার নক্সা, কালীপ্রসন্ন সিংহ। গুম ও গুমি সমার্থক।

নরুন:

যে যন্ত্র দিয়ে নখ কাটা হয় তাকে ইংরেজিতে বলা হয় নেইল-কাটার।  বাংলায় বলা হয় নরুন। উচ্চারণ— নোরুন্। শব্দটি সংস্কৃত ‘নখহরণী’ থেকে উদ্ভূত খাঁটি বাংলা শব্দ। অভিধান মতে, ‘নরুন’ অর্থ— নখ কাটার অস্ত্রবিশেষ।
জানা অজানা অনেক মজার বিষয়:
error: Content is protected !!