চাক্ষুষ প্রত্যক্ষ সমক্ষ : বাংলা ব্যাকরণ সমগ্র

বাংলা ব্যাকরণ সমগ্র

ড. মোহাম্মদ আমীন

চাক্ষুষ প্রত্যক্ষ সমক্ষ

চাক্ষুষ : সংস্কৃত ‘চাক্ষুষ (চক্ষুস্‌+অ)’ শব্দের অর্থ হচ্ছে, চোখে চোখে লব্ধ, চোখে দেখা, প্রত্যক্ষ (চাক্ষুষ প্রমাণ) ইত্যাদি। বাক্যে এটি বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

প্রত্যক্ষ : সংস্কৃত ‘প্রত্যক্ষ (প্রত্যক্ষ+অ)’ শব্দের অর্থ, দৃষ্ট, চাক্ষুষ (প্রত্যক্ষ প্রমাণ), ইন্দ্রিয়গ্রাহ্য, প্রত্যক্ষজ্ঞান প্রভৃতি। বাক্যে এটি বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

সমক্ষ: সংস্কৃত, ‘সমক্ষ (সমক্ষ+অ)’ শব্দের অর্থ– প্রত্যক্ষ, অগ্রবর্তী প্রভৃতি।

শাব্দিক অর্থ পর্যালোচনায় দেখা যায়, শব্দ তিনটির (চাক্ষুষ প্রত্যক্ষ সমক্ষ ) অর্থের মধ্যে মিল রয়েছে এবং আপাত-বিবেচনায় বাক্যে অভিন্ন অর্থ প্রকাশে ব্যবহার করা যায়। তবে অর্থের মিল থাকা আর অভিন্ন শব্দ হওয়া এক নয়। যমজ ভাইয়ের চেহারা অভিন্ন হতে পারে, দুজন মানুষের চেহারাও প্রায় অভিন্ন হতে পারে, কিন্তু অবয়ব আর আচরণে অবশ্যই ভিন্নতা থাকে। নইলে, ‘উভয়’ শব্দটির প্রয়োজন হতো না। কেউ বলতে পারেন, দুজনের চেহারা একই, কিন্তু কেউ বলতে পারেন না– দুজন অভিন্ন। ভাষার প্রতিটি শব্দের ক্ষেত্রেও এটি প্রযোজ্য। শব্দের এমন বৈচিত্র্যময়তা ভাষিক সৌন্দর্যের অন্যতম দিক।

বাক্যে শব্দত্রয় (চাক্ষুষ প্রত্যক্ষ সমক্ষ ) অভিন্ন অর্থে প্রয়োগ করা গেলেও একই বিষয় প্রকাশে একই বাক্যে অভিন্ন শব্দে প্রয়োগ করা যায় না। তা করতে গেলে অর্থে, অনর্থ কিংবা বাক্যের সৌন্দর্যের হানি ঘটতে পারে, লাঞ্ছিত হতে পারে বাক্যের উদ্দেশ্য, দ্যোতনা এবং মোহনীয়তা। অভিন্নার্থের হলেও একাধিক শব্দের প্রয়োগের ধরণ বাক্যের প্রকৃতি ও গঠনের উপর নির্ভর করে। আলোচ্য তিনটি শব্দেরই সাধারণ অর্থ ‘প্রত্যক্ষ’, কিন্তু এই অর্থ প্রকাশে তিনটি শব্দ অভিন্ন ঘটনের বাক্যে প্রয়োগ করা হলে তা সুবুদ্ধির হবে না। যেমন :
একটি ঘটনা ঘটেছে, এটি কোনো ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে নয়, স্যাটেলাইটেও নয়; আপনি নিজ চোখে আপনার সামনে ঘটনাটি ঘটতে দেখেছেন, মানে প্রত্যক্ষ করেছেন। বিষয়টা আপনি সহজে কীভাবে বলবেন? আমি হলে বলতাম :
(১) ঘটনাটা আমি প্রত্যক্ষ করেছি।
(২) চাক্ষুষ ঘটনা।
চাক্ষুষ, প্রত্যক্ষ ও সমক্ষ- শব্দের সাধারণ একটি অর্থ ‘প্রত্যক্ষ’ বলে যদি লিখে বসি :
(২) ঘটনাটা আমি সমক্ষ করেছি।
(৩) ঘটনাটা আমি চাক্ষুষ করেছি।
তাহলে, আমার প্রকাশ আদর্শ হয়েছে এমন বলা যাবে না। আপনি প্রত্যক্ষ করে বলুন, শেষের দুটি বাক্য কেমন মনে হয়? মনে রাখতে হবে, সাধারণত বাক্যের গঠন আর বক্তার উদ্দেশ্যের উপর শব্দের প্রয়োগ নির্ভর, অর্থের উপর নয়। তা না হলে,
“বল, বুদ্ধিমানেরা বুদ্ধি দিয়ে বল খেলে, বল দিয়ে নয়” বাক্যের তিনটি ‘বল’ এর অর্থ ‘বলা, ফুটবল বা শক্তি’ হয়ে যেত।

এ বিষয়ে আপনারা আরও উদাহরণ ও ব্যাখ্যা দিয়ে নিবন্ধটিকে সমৃদ্ধ করতে পারেন।

সূত্র : শুদ্ধ বানান চর্চা : প্রমিত বাংলা ব্যাকরণ, ড. মোহাম্মদ আমীন, অনুভব প্রকাশনী, বাংলাবাজার, ঢাকা।


আজব ব্যাকরণ গজব কার্যকরণ

পুরুষায়ন সমাস বা সমাসের লিঙ্গায়ন

লিঙ্গসর্বস্বতত্ত্ব বা লিঙ্গসর্বস্ব ব্যাকরণ

বাংলা ব্যাকরণ সমগ্র : ব্যুৎপত্তি ও ব্যুৎপত্তিগত শব্দের অর্থ

পাণিনি বানান: বাংলা ব্যাকরণ সমগ্র

বাংলা বাঙলা বাঙ্গলা ও বাঙ্গালা : বাংলা ব্যাকরণ সমগ্র

মাননীয় সভাপতি কচুর সভাপতি : বাংলা ব্যাকরণ সমগ্র

সরকারি কিন্তু সহকারী : বাংলা ব্যাকরণ সমগ্র

error: Content is protected !!