চিনাবাদাম শব্দের অর্থ ও উৎস; প্রশংসায় পঞ্চমুখ, অধুনালুপ্ত; কাল, কালা, কালি, কু

ড. মোহাম্মদ আমীন

চিনাবাদাম শব্দের অর্থ ও উৎস; প্রশংসায় পঞ্চমুখ, অধুনালুপ্ত; কাল, কালা, কালি, কু

সংযোগ: https://draminbd.com/চিনাবাদাম-শব্দের-অর্থ-ও-উ/

চিনাবাদাম শব্দের অর্থ ও উৎস

অনেকে মনে করেন, চিনাবাদাম নামে পরিচিত খুদে আকারের বাদামের জাতটি চীন বা চায়না নামে পরিচিত দেশ থেকে এসেছে। তাই নাম চিনাবাদাম। এরূপ মনে করে, অনেকে লিখেন— চীনাবাদাম। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানেও লেখা আছে চীনাবাদাম। এটি ব্যুৎপত্তিজনিত অজ্ঞতা কিংবা মুদ্রণপ্রমাদ হতে পারে।

প্রথমে বলে রাখি, এর শুদ্ধ বানান, প্রকৃতপক্ষে চীনাবাদাম নয়, চিনাবাদাম। চিনাবাদাম নামের বীজটি চীন বা চায়না হতে আসেনি। চিনাবাদাম নাম হলেও এই বাদামের সঙ্গে জনসংখ্যার দিক দিয়ে বিশ্বের বৃহত্তম দেশ ‘গণপ্রজাতন্ত্রী চীন’ নামের দেশটির কোনো সম্পর্ক নেই।

চিনাবাদাম ও তার প্রারম্ভে অঙ্গীভূত চিনা শব্দের আদি উৎস দক্ষিণ ভারত। এর আসল নাম চিন্নাবাদাম। চিন্না হলো তামিল বা তেলেগু ভাষার শব্দ। যার অর্থ— ছোটো, খুদে, ক্ষুদ্র। অন্যদিকে, বাদাম হচ্ছে— ফারসি উৎসের শব্দ।

অর্থাৎ তামিল চিন্না ও ফারসি বাদাম নিয়ে গঠিত চিন্নাবাদাম নামের বীজটিই আমাদের পরিচিত চিনাবাদাম।

আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, ফারসি উৎসের বাদাম অর্থ (বিশেষ্যে)— ভারতীয় উপমহাদেশ-সহ বিশ্বের উপ-উষ্ণমণ্ডলীয় অঞ্চলে চাষ করা হয় এমন দ্বিবীজবিশিষ্ট উদ্ভিদের মাটির নিচে জাত কঠিন খোলসাবৃত তেল প্রোটিন ও ভিটামিন বি এবং ই সমৃদ্ধ শক্ত বীজবিশেষ।

সুতরাং, চিনাবাদাম অর্থ ছোটো বাদাম, খুদে বাদাম।

প্রাসঙ্গিক ভাবনা ও চিনাবাদাম বনাম চীনাবাদাম
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে লিখেছে— চীনাবাদাম। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে ভুল থাকলে আমাকে ভুল লিখতে হবে, এমনটি আমি মনে করি না। এই অভিধানে অনেক ভুল আছে। যারা লিখেছেন তারা হয়তো ব্যুৎপত্তি জানেন না। চিনাজোঁক বানানটিও ভুল লিখেছেন। চীনেমাটি কীভাবে হয়? চীনা বানানে কীভাবে ঈ-কার হয়? চীন বানানে ঈ-কার হতে পারে, কারণ এটি তৎসম বলা হচ্ছে। চীনা, চীনে এগুলো বাংলা প্রত্যয়যোগে গঠিত শব্দ এবং তৎসম নয়। বাদাম ফারসি। আর চিন্না> চিনা তামিল শব্দ। সুতরাং, ঈ-কার বিধেয় নয়।
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, চিনাঘাস, চিনাজোঁক, চিনাবাদাম, চিনামাটি, চিনেজোঁক, চিনেমাটি, চিনেবাদাম প্রভৃতি অতৎসম (বাংলা/বিদেশি/মিশ্র) শব্দ। বাংলা একাডেমি প্রণীত প্রমিত বাংলা বানানবিধিতে বলা হয়েছে, “অতৎসম শব্দে ঈ-কার হয় না।” তাই বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান যদি এসব শব্দের বানানে ঈ-কার দিয়ে থাকে, তাহলে ধরে নিতে মুদ্রণপ্রমাদ। আক্কেল থাকলে আগামী সংস্করণে শুদ্ধ করে নেবে।

প্রশংসায় পঞ্চমুখ: প্রশংসায় পঞ্চমুখ কথাটিতে পঞ্চমুখ বলার কারণ কী? ষষ্ঠ বা অষ্টমুখও তো হতে পারত; পারত, কিন্তু পঞ্চমুখ বলার যথেষ্ট কারণ আছে। প্রশংসায় পঞ্চমুখ বাগ্‌ভঙ্গিটি পৌরাণিক কাহিনির সঙ্গে সম্পর্কিত। পুরাণ অনুসারে শিবের পাঁচটি মাথা। তাই শিব পঞ্চমুখ বা পঞ্চানন। শিব এই পঞ্চ বা পাঁচ মুখ দিয়ে বিষ্ণুর গুণগান বা প্রশংসা করতেন। সে সূত্রে  কেউ উচ্ছসিত হয়ে কারো প্রশংসা করলে বলা হয় প্রশংশায় পঞ্চমুখ।  

অধুনালুপ্ত: অধুনা ও লুপ্ত মিলে অধুনালুপ্ত। অধুনা বা সম্প্রতি যা লোপ পেয়েছে বা লুপ্ত হয়েছে তাই অধুনালুপ্ত। কিছুকাল আগেও বিদ্যমান ছিল, কিন্তু সম্প্রতি বা অল্পকাল আগে লুপ্ত হয়েছে, বিলোপ হয়েছে বা পরিত্যক্ত হয়েছে এমন। যেমন: অধুনালুপ্ত ছিটমহল; অধুনালুপ্ত বিসিএস ইকোনমিক ক্যাডার।

কাল কালা কালি কু

Partha Tanveer Naved

এই শব্দগুলোর অনেক অর্থ আছে। চলুন দেখে নিই-কাল-
১। সংস্কৃত √কলি+অ = কাল-এর অর্থ সময়, ঋতু (বর্ষাকাল)। এর আরেক অর্থ যুগ। এর আরেক অর্থ মানবজীবনের বিভিন্ন স্তর বা সময়বিভাগ (শিশুকাল)। এর আরেক অর্থ আয়ুষ্কাল (কাল পূর্ণ হওয়া)। এর আরেক অর্থ অবসর (কালভাব)। এর আরেক অর্থ যম; মৃত্যু (অসুখটা তার কাল হলো)। এর শেষ অর্থ (ব্যাকরণে) অতীত বর্তমান ভবিষ্যৎ প্রভৃতি।

২। সংস্কৃত কল্য থেকে আসা কাল-এর অর্থ পরবর্তী দিন, আগামীদিন (কাল আবার এসো)। এর আরেক অর্থ পূর্ববর্তী দিন, আগের দিন।
৩। আঞ্চলিক শব্দ কাল-এর অর্থ অতিশয় ঠান্ডা, হিমশীতল। এর আরেক অর্থ শৈত্য।কালা-
১। বাংলা শব্দ কালা-এর অর্থ কানে শোনে না এমন, বধির।

২। আরেক বাংলা শব্দ কালা-এর অর্থ শ্রীকৃষ্ণ। এর আরেক অর্থ কালো, কৃষ্ণবর্ণ। এর আরেক অর্থ কলঙ্কিত। এর শেষ অর্থ অবাঞ্ছিত, আপত্তিকর।
৩। আরেক বাংলা শব্দ কালা-এর অর্থ অতিশয় শীতল।কালি-
১। সংস্কৃত কালী থেকে আসা কালি-এর অর্থ লেখার জন্য ব্যবহৃত কালো তরল পদার্থ, মসি (লেখার কালি)। এর আরেক অর্থ মলিনতা (মনের কালি)। এর আরেক অর্থ কলঙ্ক। এর শেষ অর্থ কৃষ্ণবর্ণ।

২। সংস্কৃত কল্য থেকে আসা কালি-এর অর্থ (কাব্যে) আগামীদিন, পরদিন; আগের দিন, পূর্বদিন, গতকাল।
৩। সংস্কৃত কাল থেকে আসা কালি-এর অর্থ ক্ষেত্র বা ঘন পদার্থের আয়তন, বর্গফল; ঘনফল। এর আরেক অর্থ সংকলন।কু-
১। সংস্কৃত √কু+উ = কু-এর অর্থ পৃথিবী, ধরণি; ভূমি। এর আরেক অর্থ বেদাঙ্গের ব্যাখ্যা। এর আরেক অর্থ পাপ। এর আরেক অর্থ খারাপ। এর শেষ অর্থ অমঙ্গলজনক; কুটিল (কুমন্ত্রণা)।

২। ফরাসি থেকে আসা কু-এর অর্থ বলপূর্বক অবৈধ পথে ক্ষমতা দখল, সামরিক অভ্যুত্থান, coup।
৩। দেশি শব্দ কু-এর অর্থ (বাংলাদেশে গ্রামাঞ্চলে মেয়েদের মধ্যে প্রচলিত) পরিচিতজনের ডাকে সম্মতিসূচক সাড়া দেওয়ার জন্য ব্যবহৃত শব্দ, আজ্ঞা।
শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
আমি শুবাচ থেকে বলছি

 

error: Content is protected !!