চীন মালদ্বীপ শ্রীলংকা বানানে ঈ-কার কেন, মলদ্বীপ না মালদ্বীপ

ড. মোহাম্মদ আমীন

চীন মালদ্বীপ শ্রীলংকা বানানে ঈ-কার কেন

বাংলা একাডেমি প্রণীত প্রমিত বাংলা বানানবিধি অনুসারে বিদেশি শব্দের বানানে ‘ঈ-কার’ বসে না। অনেকের প্রশ্ন: মালদ্বীপ শ্রীলংকা চীন বিদেশি শব্দ। তবুও বানানে ঈ-কার কেন?
শ্রীলংকা: প্রথমে বলে রাখি, শ্রীলংকা কোনো অতৎসম বা বিদেশি শব্দ নয়; বহুল পরিচিত তৎসম। প্রাচীন সংস্কৃত গ্রন্থ ও পুরাণাদিতে নামটির ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ করা যায়। হুনুমানের শ্রীলঙ্কা/ শ্রীলংকা কাহন ভারতীয় পুরাণের অতি পরিচিত কাহিনি। তাই সংস্কৃত বানান অনুসারে ‘শ্রীলংকা’ বানানে ‘ঈ-কার’। কিন্তু লঙ্কা নয় কেন? লঙ্কা লিখলে কি ভুল হবে? না। তবে লংকা বানানই প্রমিত। যেমন: লংকাবাটা, লংকাফোড়ন। এমন বানান কেন?
ম্ এর সঙ্গে স্পর্শ বর্ণের সন্ধি হলে ম্- এর স্থানে অনুস্বার বা সংশ্লিষ্ট বর্গের পঞ্চম বর্ণ হয়। শ্রীলংকা বানানে ক বর্ণ থাকায় ক-বর্গের পঞ্চম বর্ণ ঙ দিয়ে বানান হওয়ার কথা: শ্রীলঙ্কা। তবে এখন অনুস্বার দিয়ে লেখা হয়। যেমন:
শম্+কর = শংকর বা শঙ্কর
প্রিয়ম্+কর= প্রিয়ংকর বা প্রিয়ঙ্কর
প্রিয়ম্+বদা = প্রিয়ংবদা বা প্রিয়ম্বদা
ভয়ম্+কর = ভয়ংকর বা ভয়ঙ্কর,
সম্+ কর = সংকর বা সঙ্কর,
সম্ +গতি = সংগতি বা সঙ্গতি,
সম্+গীত = সংগীত বা সঙ্গীত,
সম্+ কলন = সংকলন বা সঙ্কলন,
সম্ +কট = সংকট বা সঙ্কট,
অনুরূপ: লম্+কা= লংকা।
মালদ্বীপ: মনে করা হয়, মালদ্বীপ নামটি খ্রিষ্টপূর্ব যুগের ‘মালে দিভেহী রাজ্য’ হতে উদ্ভূত। এর অর্থ: মালে অধিকৃত দ্বীপরাষ্ট্র।প্রাচীন সংস্কৃতে লক্ষদ্বীপ নামের একটি অঞ্চলের কথা উল্লেখ রয়েছে। লাক্কাদ্বীপপুঞ্জ অথবা চাগোস দ্বীপপুঞ্জও এর অন্তর্ভুক্ত ছিল। কেউ কেউ মনে করেন, তামিল ‘মালা তিভু’ হতে লাক্কাদ্বীপের পরিপ্রেক্ষিতে নামটির উদ্ভব। যার অর্থ দ্বীপমাল্য। মধ্যযুগে ইবন বতুতা ও তদ্‌পরবর্তী আরব পর্যটকগণ এই অঞ্চলকে ‘মহাল দিবিয়াত’ উল্লেখ করেছেন। আরবি ভাষায় মহাল অর্থ প্রাসাদ। বর্তমানে এই নামটিই মালদ্বীপের রাষ্ট্রীয় প্রতীকে লেখা হয়।
ইংরেজিতে দেশটির নাম Maldives, বাংলায় লেখা হয় মালদ্বীপ। এটি দেশটির অবিকল রাষ্ট্রীয় নাম নয়, সংস্কৃত নাম। ‘মালে’ শব্দটি সংস্কৃত, আরবি না তামিল তা নিয়ে বিতর্ক আছে। তবে ‘দ্বীপ (দ্বী+অপ্+অ)’ সংস্কৃত শব্দ এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। মালে শব্দের সঙ্গে সংস্কৃত দ্বীপ যুক্ত হয়ে গঠিত হয়েছে মালদ্বীপ। তাই মালদ্বীপ বানানে ঈ-কার।
চীন: বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, ‘চীন’ তৎসম শব্দ। সংস্কৃত ‘চীন’ হতে চীনা শব্দের উদ্ভব। প্রাচীন সংস্কৃত গ্রন্থে বানানটিতে ঈ-কার রয়েছে। চীন সংস্কৃত শব্দ এবং চীনা তা থেকে উদ্ভূত। তাই এবং বহুল প্রচলনের কারণে ‘চীন’ বানানে ‘ঈ-কার’ অক্ষুণ্ন রাখা হয়েছে।

মলদ্বীপ না কি মালদ্বীপ

জনাব Tanmay Manna-এর পৃষ্ট বিষয়: ‘মালদ্বীপ’ না কি ‘মলদ্বীপ’— কোন বানানের শব্দটি সঠিক? যুক্তি-সহ উত্তর কাম্য। মলদ্বীপ বা মালদ্বীপ ভারত মহাসাগরে শ্রীলঙ্কা হতে প্রায় ৪০০ মাইল দক্ষিণ পশ্চিমে এক হাজারের অধিক প্রবাল দ্বীপ নিয়ে গঠিত ১২০ বর্গমাইল আয়তনের একটি খুদে দ্বীপ রাষ্ট্র। ধিবেহি এই রাষ্ট্রের সরকারি ভাষা। মলদ্বীপ বা মালদ্বীপের ইংরেজি নাম Maldives. উচ্চারণ মলদিভ্স। তবে বাংলাদেশে লেখা হয় মালদ্বীপ। পশ্চিমবঙ্গে লেখা হয় মলদ্বীপবাংলা বানান (মালদ্বীপ) অনুসারে উচ্চারণ করলে প্রকৃত উচ্চারণের কাছাকাছি যায় না। মলদ্বীপ কথাটি মূল উচ্চারণের অনেকটা কাছাকাছি হয়। কিন্তু বাংলাদেশে সর্বপর্যায়ে বহুল প্রচলিত বানান— মালদ্বীপ নামকরণ: মহল থেকে মল। মহলদ্বীপ থেকে মলদ্বীপ। এখানে মল মানে মহল আর মহল মানে প্রসাদ। আরব পর্যটক ইবনে বতুতা বর্তমানে Maldives নামে পরিচিত দ্বীপ রাষ্ট্রটিকে বলেছেন, ‘মহল দ্বীপ’ বা রাজপ্রাসাদের দ্বীপ। Maldives-এর রাষ্ট্রীয় প্রতীকে  ইবনে বতুতার ব্যাখ্যার পরিপ্রেক্ষিতে মহল/মল বা রাজপ্রাসাদের ছবি ব্যবহার করা হতো। এছাড়াও নামকরণের একাধিক প্রবাদ প্রচলিত। তবে সরকারিভাবে এটিই গৃহীত।

Leave a Comment

You cannot copy content of this page

poodleköpek ilanlarıankara gülüş tasarımıantika alanlarPlak alanlarantika eşya alanlarAntika mobilya alanlarAntika alan yerlerfree cheats
Casibomataşehir escortjojobetbetturkeypashagamingjojobet