ঢাকাই বুলি: কলকাতার চিঠি

ইউসুফ খান

ঢাকাই বুলি: কলকাতার চিঠি

কলকাতায় বসে আমরা যারা ঢাকাই নাটক দেখি বা ঢাকাই লেখা পড়ি তখন ঢাকার মানুষের মুখের কয়েকটা কথা বা ইডিয়াম আমাদের কানে নতুন লাগে, অন্যরকম লাগে, মজার লাগে। প্রথম প্রথম এগুলো খুব কানে লাগতো, এখন অভ্যেস হয়ে গেছে এবং

ইউসুফ খান

শুনতে শুনতে অনেকগুলোর মানেও বুঝে গেছি। কিন্তু এখনও কিছু কিছু বুঝতে পারিনি। আমি কিছু নোট করেছি। দেখুনতো ঠিক বুঝেছি কি না। যেগুলো বুঝিনি সেগুলো একটু বুঝিয়ে দিন। ঢাকাই উদাহরণগুলো আমার বানানো, তাই এতে কলকাত্তাইয়া বাঙাল ভাষার প্রভাব প্রকট। ওগুলোর কারেকশনগুলোও বলবেন। তারপর আপনারা বলবেন কলকাতার কথায় কী কী আপনাদের নতুন লাগে, কানে লাগে। = চিহ্ন দিয়ে বুঝিয়েছি আমি যা বুঝেছি তার কলকাতাইয়া রূপ
————————————————–

অনেক
কলকাতায় বলে – খুব বা ভীষণ
ও তোমাকে অনেক ভালোবাসে = ও তোমাকে খুব ভালোবাসে।
ছবিটা অনেক সুন্দর আঁকছিস= ছবিটা ভীষণ সুন্দর এঁকেছিস।
রিকশায় অনেক সুন্দর মেয়ে দেখলাম = রিকশায় খুব সুন্দর একটা মেয়ে দেখলাম।
কলকাতায় রিকশায় অনেক সুন্দর মেয়ে দেখলাম মানে – রিকশায় অনেকগুলো সুন্দর সুন্দর মেয়ে দেখলাম। অনেক মানে কলকাতায় শুধুই মেনি, লটস অফ।

দেয়া
ফোন দেয়া ঘোষণা দেয়া। কলকাতায় বলে – করা
অরে একটা ফোন দে = ওকে একটা ফোন লাগা, ওকে একবার ফোন কর, ফোন মার।
কলকাতায় ওকে একটা ফোন দে মানে ওকে একটা মোবাইল সেট গিফট কর।
হাসিনা ঘোষণা দিয়েছে = হাসিনা ঘোষণা করেছে।

খবর আছে
কলকাতায় বলে – হচ্ছে, বারোটা বাজছে, মার হচ্ছে, মার পড়বে
তুই বাড়ি আয়, তোর খবর আছে = তুই বাড়ি আয়, তোর হচ্ছে
মা জানলেই তোর খবর করে দেবে = মা জানলেই তোর বারোটা বাজিয়ে দেবে

জোশ
কলকাতায় বলে – দারুন, হেব্বি, সলিড, ফাটাফাটি
বিরিয়ানিটা জোশ ছিলো = বিরিয়ানিটা দারুন ছিলো।
জবাবটা জোশ দিছিস = জবাবটা সলিড দিয়েছিস।

চাপা, চাপাবাজি
কলকাতায় বলে – ঢপ, ঢপবাজি: চুপকি, চুপকিবাজি
অত চাপা দিবার লাগবো না, সব বুঝছি = অত ঢপ দেবার দরকার নেই, সব বুঝে গেছি।
কলকাতায় চাপা মানে – ঢাকা, কভার, শোবার সময় গায়ে দেওয়ার জন্য বেডকভার ইত্যাদি।

মাত্র
কলকাতায় বলে – এই মাত্র, সবে মাত্র
মাত্র এলাম = এইমাত্র এলাম, এখুনি এলাম।
মাত্রই-তো দেখা হলো = সবে তো দেখা হলো। সবে মাত্র তো দেখা হলো।

আসলেই
কলকাতায় বলে – সত্যি সত্যিই
ছেলেটা আসলেই ভালো = ছেলেটা সত্যি সত্যিই ভালো
আসলেই দেরি হয়ে গেছে = সত্যি সত্যিই দেরি হয়ে গেছে

ভাব, ভাব নেওয়া
কলকাতায় বলে – ঘ্যাম, ঘ্যাম নেয়া, ঘ্যাম দেখানো
ফকিন্নির পোলা, ভাব নিচ্ছে যেন শারুখ খান = ব্যাটা ভিখারি, এদিকে ঘ্যাম নিচ্ছে যেন শারুক খান
অত ভাব নেওয়ার কী আছে = অত ঘ্যাম দেখানোর কী হয়েছে
ছেলেটার ভাব আছে = ছেলেটার ঘ্যাম আছে।
কলকাতায় ভাব মানে ভাব-ভালোবাসা।

সমস্যা নাই
কলকাতায় বলে – ঠিক আছে
সমস্যা নাই, আমি তোর বাসায় চলে আসবো = ঠিক আছে, আমি তোর বাড়িতে চলে আসবো
নো প্রবলেম অর্থে সমস্যা নাই কথাটা ঢাকাই নাটকে একটু বেশিই শুনি।

এক পর্যায়ে
কলকাতায় বলে – এক সময়ে, একটা সময়, শেষ পর্যন্ত
রাইগা গিয়া এক পর্যায়ে সার তাকে চড় দিলেন = রেগে গিয়ে একটা সময় স্যার ওকে চড় মারলেন।
মুখের কথায় যেমন সমস্যা নাই বেশি বেশি ব্যবহার দেখি, তেমনি লেখায় এক পর্যায়ে কথাটা বেশি বেশি দেখি

ভেজাল
কলকাতায় বলে – ঝামেলা
এহানে ভেজাল করনের দরকার নাই, আপনে যান = এখানে ঝামেলা করতে আসবেন না, আপনি ফুটুন
মাইয়া মানষের লগে যাস না, ভেজালে পড়বি = মেয়েদের ব্যাপারে থাকিস না, ঝামেলায় পড়বি।

মামা
কলকাতায় বলে – দাদা
মামা ভার্সিটি যাবেন = দাদা ইউনিভার্সিটি যাবেন
ঢাকায় রিকশাওয়ালা ছাড়া আর কাউকে মামা বলে কি না সেটা নাটক থেকে বুঝতে পারিনি।

ধুর মিয়া
কলকাতায় বলে – ধ্যার মোশাই
আরে ধুর মিয়া, অত ভেজাল করেন ক্যান, বাড়ান দেহি = আরে ধ্যার মশাই, অত ঝামেলা করছেন কেন, কাটুন দেখি

সে তাকে
কলকাতায় বলে – ও ওকে
ঐ যে মাইয়াটার পাশে পোলাডা দাঁড়াই আছে, সে কে? তাকে ডাইহা ল এহান দে = ঐ যে মেয়েটার পাশে ছেলেটা দাঁড়িয়ে আছে ওটা কে, ওকে ডাক এখানে।

বাথরুমে ধরা
কলকাতায় বলে – বাথরুম পাওয়া
আমারে বাথরুমে ধরছে = আমার বাথরুম পেয়েছে।
কলকাতার বাথরুম পাওয়া মানে হাগা মোতা যেকোনওটাই হতে পারে। ঢাকায় কোনটা বোঝায় জানি না।

দোস্তো
কলকাতায় বলে – ভাই
কী দোস্তো কী অবস্তা = কী ভাই কেমন চলছে
কী দোস্তো কী করো = কী রে ভাই কী ব্যাপার

অস্থির
কলকাতায় বলে – ফাটাফাটি
অস্থির হাসির ভিডিও =ফাটাফাটি হাসির ভিডিও

চরম
কলকাতায় বলে – দারুন ব্যাপার, ফাটাফাটি ব্যাপার
এইটা চরম হইছে = এটা দারুন ব্যাপার হয়েছে

ধরা খাওয়া
কলকাতায় বলে – ধরা পড়া
চাপা দিয়া ধরা খাইছে = ঢপ দিয়ে ধরা পড়ে গেছে

মজা
কলকাতায় বলে – টেস্টি
সালুনটা অনেক মজা হইছে = তরকারিটা দারুন টেস্টি হয়েছে

মাথাই নষ্ট
ঢাকার শ্রেষ্ঠ উপহার বোধ হয় মাথাই নষ্ট। এটা আমার মাথা নষ্ট করে দিয়েছে। এটার কলকাতা প্যারালাল কী হবে ভেবে পাচ্ছি না। মাথা গরম দিয়ে ঠিক ভাবটা আসছে না।

আরও আছে। সম্ভব হলে পরে দেবো।
———————————–
এই সব উদাহরণে শব্দ ও কথা গুলো দুপারেই কমন, কিন্তু ব্যবহার আলাদা। ঢাকার নিজস্ব কিছু শব্দ যার মানে বুঝি সেগুলো এখানে বললাম না। যেমন – পিচ্চি প্যারা। কিন্তু ঢাকার অনেক নতুন কথার মানে এখনও পুরোপুরি বুঝিনি। যেমন – আজাইরা মাইরে-বাপ তারছিড়া ভাদাইম্মা ঘাউরা ঘাড়ত্যারা টাসকি চিকামারা ডলাডলি পামপট্টি হুদাই বাবাখোর হেল্প!

ইউসুফ খান, কলকাতা, ২৬ মে ২০২০

সূত্র: ঢাকাই বুলি: কলকাতার চিঠি, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)


পদ্মাপারের পদবি, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ঈশ্বরচন্দ্র কেন শর্ম্মা, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ঘেটো লেটো নজরুল, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ঈশ্বরচন্দ্র কেন শর্ম্মা, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

বাঁকুড়া থেকে বগুড়া, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

বেশ্যারা প্রস্টিটিউট নয়, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ইত্যাদি প্রভৃতি প্রমুখ. ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

শুবাচ গ্রুপ এর লিংক: www.draminbd.com

All Link

All Links/1

All Links/2 শুবাচির পশ্ন থেকে উত্তর

উৎস: ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পবিলেকশন্স লি.

বাক্য: গঠন-অগঠন/১

বাংলা শব্দের পৌরাণিক উৎস, ড. মোহাম্মদ আমীন

মৌলবাদ ও মৌলবাদী শব্দের অর্থ কী জানতে চাই

বাংলা ভাষার মজা, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পবিলেকশন্স লি.

আল্লাহ শব্দের বাংলা

শুবাচ বিসিএস বাংলা/১

শুবাচির প্রশ্ন থেকে উত্তর/৩২

শুবাচির প্রশ্ন থেকে উত্তর/ ৩৩

বহুল ব্যবহৃত কিছু শব্দের শুদ্ধ বানান/১২ ড. মোহাম্মদ আমীন

ইত্যাদি প্রভৃতি প্রমুখ

বেশ্যারা প্রস্টিটিউট নয়

ঢাকাই বুলি: কলকাতার চিঠি

error: Content is protected !!