ঢেবুয়া তেলধুতি দস্তরখানা

ড. মোহাম্মদ আমীন
সংযোগ: https://draminbd.com/ঢেবুয়া-তেলধুতি-দস্তরখানা/
ঢেবুয়া: দেশি শব্দ। অর্থ: লৌহ বা তাম্র মিশ্রিত একপ্রকার পয়সা। এককালে মুঙ্গেরের বাজারে এক ঢেবুয়াতে অনেক কিছু কেনা যেত। এক টাকাতে ১৮ গণ্ডা বা ১৯ গণ্ডা ঢেবুয়া পাওয়া যেত। অর্থাৎ ১ ঢেবুয়া= ১৮ বা ১৯ গণ্ড।
কাশীনাথ বাবু হাসিতে হাসিতে কহিলেন, আজ্ঞে, তা নয়, সেখানে ঢেবুয়া চলে।”—দেবগণের মর্ত্ত্যে আগমন, দুর্গাচরণ রায়।
তেলধুতি: খাঁটি বাংলা তেলহিন্দি উৎসের ধুতি মিলে তেলধুতি শব্দটি গঠিত।  বাক্যে সাধারণত বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত তেলধুতি শব্দের অর্থ— যে খাটো ধুতি পরে স্নানের আগে তেলা মাখা হয়।
ঠাকুর বলিলেন— ‘তেলধুতি দুখানি সঙ্গে দাও, বরং ও কাপড়গুলি এখন নিয়ে যাও, তোমার কাছে রেখে দেবে. . .।” শ্রীরামকৃষ্ণের সান্নিধ্যে, স্বামী চেতনানন্দ।
দস্তরখানা: ফারসি দস্তর্‌খোয়ান থেকে দস্তরখানা শব্দের উদ্ভব। বিশেষ্যে শব্দটির অর্থ— খাবার টেবিলে যে কাপড় বিছিয়ে দেওয়া হয়, খাবার জায়গায় যে কাপড় বিছিয়ে দেওয়া হয়, টেবিলে পাতবার কাপড়। বর্তমানে ডাইনিং টেবিল নামে খ্যাত টেবিলে যে কাপড় বিছানো হয় তা দস্তরখানার আধুনিক সংস্করণ। দস্তরখানা তার পূর্বের ব্যবহারে আধুনিক যুগেও বহাল। তবে নামটা হারিয়ে ফেলেছে। এখন দস্তরখানা কথাটি খুব কম বলা হয়। বলা হয়— টেবিলক্লথ। ফারসি দস্তরখানার ইংরেজি নাম।
“কিছুক্ষণ পরেই প্রায় আসর-জোড়া দস্তরখানা বিছানো হ’ল।”— মহাস্থবির জাতক (দ্বিতীয় পর্ব), প্রেমাঙ্কুর আতর্থী।
শুবাচে প্রকাশিত অধিকাংশ লেখা পেতে চাইলে ক্লিক করতে পারেন এই সংযোগে: WWW.DRAMINBD.COM.
শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
আমি শুবাচ থেকে বলছি
error: Content is protected !!