তালপুকুর: তালপুকুরে তালগাছ নেই আর

ড. মোহাম্মদ আমীন
সংযোগ: https://draminbd.com/তালপুকুর-তালপুকুরে-তালগ/

সংস্কৃত তাল এবং বাংলা পকুর শব্দের সমন্বয়ে তালপুকুর (তাল+পুকুর) শব্দটি গঠিত। অভিধানমতে, বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত তালপুকুর অর্থ—
  • চারদিকে তালগাছ ঘেরা পুকুর;
  • তালপুকুর নামের পুষ্করিণী;
  • এমন কোনো জলাশয় যা তালপুকুর নামে পরিচিত।
নজরুল লিখেছেন:
“বাবুদের তালপুকুরে
হাবুদের ডাল-কুকুরে
সে কী বাস করলে তাড়া
বলি থাম একটু দাড়া।”
পুকুরের ঐ কাছে না
লিচুর এক গাছ আছে না
হোথা না আস্তে গিয়ে
য়্যাব্বড় কাস্তে নিয়ে
গাছে গো যেই চড়েছি
ছোট এক ডাল ধরেছি,
 
ও বাবা মড়াত করে
পড়েছি সরাত জোরে।
পড়বি পড় মালীর ঘাড়েই,
সে ছিল গাছের আড়েই।
ব্যাটা ভাই বড় নচ্ছার,
ধুমাধুম গোটা দুচ্চার
দিলে খুব কিল ও ঘুষি
একদম জোরসে ঠুসি।
 
আমিও বাগিয়ে থাপড়
দে হাওয়া চাপিয়ে কাপড়
লাফিয়ে ডিঙনু দেয়াল,
দেখি এক ভিটরে শেয়াল! …
 
সেকি ভাই যায় রে ভুলা-
মালীর ঐ পিটুনিগুলা!
কি বলিস ফের হপ্তা!
তৌবা-নাক খপ্তা…!
কথিত হয়, নজরুলের ‘লিচু চোর’ কবিতায় বর্ণিত তালপুকুরটি কুমিল্লার তালপুকুর নামে পরিচিত পুষ্করিণী। ছবিতে দেখুন, কুমিল্লার সেই তালপুকুরটির বর্তমান অবস্থা (দক্ষিণ ও পশ্চিম পাড়)। তালগাছের কোনো চিহ্ন আজ নেই।
“বাবুদের তালপুকুরে তালগাছ নেই আর
চার পাড়ে তার আবর্জনা, গন্ধ হাহাকার।
গাছ পোড়ে পাড়, আলকাতরা সবুজ পাবে কই,
নার্গিস আর বুলবুলি দল বসবে কোথা সই?
তাই হাসে না প্রমীলা আজ, কাজী নজরুল,
সবুজ কেটে মরু বানায় এই মানুষের ভুল।
শাস্তি নিয়ে ছুটে এলো ভাইরাস নাম কোভিড,
                                                                           দেওয়ালে আজ মানবজাতির ঠেকে গেছে পিঠ।”
শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
আমি শুবাচ থেকে বলছি
error: Content is protected !!