ত্রিনিদাদ ও  টোবাগো (Trinidad and Tobago) : ইতিহাস ও নামকরণ

কীভাবে হলো দেশের নাম ( উত্তর আমেরিকা)

ড. মোহাম্মদ আমীন

ত্রিনিদাদ ও  টোবাগো (Trinidad and Tobago)

 স্প্যানিশ শব্দ লা ইসলা ডি লা ত্রিনিদাদ (La Isla de la Trinidad) বাগ্‌ভঙ্গি হতে ত্রিনিদাদ নামের উদ্ভব। এর অর্থ Island of the Holy Trinity

প্রকাশক: পুথিনিলয়। উত্তর আমেরিক।

বা পবিত্র ট্রিনিটির দ্বীপ। পবিত্র আত্মা বলতে, পিতা, পুত্র ও পবিত্র আত্মাÑ এ তিনটাকে বুঝায়। ক্রিস্টোফার কলম্বাস তাঁর তৃতীয় সফল অভিযাত্রার স্মৃতিময় নিবেদনস্বরূপ যিশু খ্রিস্ট ও খ্রিস্টান ধর্মের প্রতি সম্মানস্বরূপ ভূখণ্ডটির নাম ত্রিনিদাদ রাখেন। এরূপ তিনি আরও অনেক এলাকার নাম যিশু খ্রিস্ট বা শিষ্যদের সম্মানে রেখেছেন।

এবা টোবাগো কি দেখা যাক। টোবাগো নামের উৎপত্তি নিয়ে অনেক সংশয় প্রকাশ করলেও আধুনিক গবেষণায় প্রতীয়মান হয়েছে য়ে, স্থানীয় অধিবাসীদের টোবাকো বা তামাক উৎপাদন এবং চুরুট ও চুরুটি হতে ধুম্র উদ্্গীরণ থেকে টোবাগো নামের উদ্ভব হয়েছে। যার স্পেনিশ উচ্চারণ (cabaco, tavaco, tobacco)। টোবাগো নামের ব্যুৎপত্তি নিয়ে আর একটা কিংবদন্তি প্রচলিত আছে। কথিত হয়,  নামটা স্থানীয় অধিবাসীরা এক বিশেষ ধরণের পাইপে করে তামাক পান করতেন। এ পাইপটাকে স্থানীয় ভাষায় বলা হতো টাভাকো( tavaco)।

ইতিহাসবেত্তা ই এল যোশেফ (E. L. Joseph) ত্রিনিদাদ-এর অ্যামেরিনডিয়ান নাম ছিল ইরে (Iere)। এ অর্থ হামিং পাখির দেশ বা ল্যান্ড অব হামিং বার্ড। যা হামিংবার্ড এর আরাওয়াক নাম ইএরেটি বা ইয়েরটি হতে এসেছে। বুমার্ট দাবি করেন, কাইরি (cairi)  অর্থ হামিংবার্ড নয়, টুকুসি( tukusi) অর্থ হামিংবার্ড। অনেকে বলেন, কাইরি বা ইয়েরি (kairi and iere ) শব্দের অর্থ দ্বীপ।

ত্রিনিদাদ ও টোবাগো নামের দুটি দ্বীপ নিয়ে ত্রিনিদাদ এন্ড টোবাগো রাষ্ট্রটির জন্ম। দুটো দ্বীপের মধ্যে ত্রিনিদাদ বৃহত্তম। এটি মোট আয়তনের ৯৫% এবং বাকিটি ৫%। ত্রিনিদাদ এন্ড টোবাগোর মোট আয়তন ৫,১৩১ বর্গকিলোমিটার বা ১,৯৮১ বর্গমাইল। তন্মধ্যে জলীয় ভাগের পরিমাণ প্রায় শূন্য। ২০১৪ খ্রিষ্টাব্দের  হিসাবমতে, জনসংখ্যা ১২,২৩,৯১৬ জন। প্রতি বর্গকিলোমিটাওে জনসংখ্যা ২৫৪.৪ জন। আয়তন বিবেচনায় দেশটির পৃথিবীর ১৭১-তম

প্রকাশক: পুথিনিলয়। ইউরোপ

বৃহত্তম দেশ কিন্তু জনসংখ্যা বিবেচনায় ১৫৯-তম। ২০১৪ খ্রিষ্টাব্দের  হিসাবমতে, দেশটির জিডিপি (পিপিপি) ৪৩.৪১৫ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিছু আয় ৩২,১৩৯ ইউএস ডলার। অন্যদিকে, জিডিপি (নমিনাল) ২৮.৭৮৮ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিছু আয় ২১,৩১০ ইউএস ডলার। মুদ্রার নাম ডলার।

রাজধানীর নাম পোর্ট অব স্পেন। সরকারি ভাষা ইংরেজি এবং ত্রিনিদাদিয়ান ক্রেয়োল ও টোবাগানিয়ান ক্রেয়োল আঞ্চলিক ভাষা হিসাবে স্বীকৃত। জনসংখ্যার মধ্যে ৫৭% ক্রিস্টান, ১৮.১% হিন্দু, ৫.০ মুসলিম, ৭.৩% অন্যান্য এবং ৩.৩% কোনো ধর্মে বিশ্বাসী নন। দেশটির নাগরিকরা ত্রিনিদাদিয়ান, টোবাগোনিয়ান এবং ত্রিনবোগানিয়ান নামে পরিচিত। ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দের  ৩১ আগস্ট যুক্তরাজ্য হতে স্বাধীনতা ঘোষণা করে। ১৯৭৬ খ্রিষ্টাব্দের  ১ আগস্ট রিপাবলিক বা প্রজাতন্ত্র হয়। স্যান ফার্নেনডো বৃহত্তম শহর। ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর রাজধানী পোর্ট অব স্পেন। এর অর্থ স্পেনের বন্দর। ত্রিনিদাদ ও টোবাগো পৃথিবীর একমাত্র দেশ, যে দেশের রাজধানীর নামকরণ করা হয়েছে অন্য একটি দেশের নামে।

ত্রিনিদাদা ও টোবাগো একটি সুন্দর ও ব্যতিক্রমী কিছু বস্তুতে সমৃদ্ধ একটি অসাধারণ দ্বীপ। এখানে একপ্রকার মরিচ পাওয়া যায়। নাম ত্রিনিদাদ মোরুগা স্করপিয়ন মরিচ (Trinidad Moruga Scorpion Pepper)। মরিচটি পৃথিবীর সবচেয়ে ঝাল মরিচ হিসাবে গিনিজ বুক অব রেকর্ডে স্থান পেয়েছে।

প্রকাশক: পুথিনিলয়। আফ্রিকা

এখনও এটির চেয়ে ঝাল মরিচ পাওয়া যায়নি। এখানকার মরিচ ঝাল হলেও মানুষের মন খুব মিষ্টি। খুব উদার মনের নিবিড় হাসিতে তার উৎসব পালন করে। পৃথিবীর জনপ্রিয় কয়েকটি বাদ্যযন্ত্রের মধ্যে স্টিলপ্যান-ড্রাম অন্যতম। এটি এখানে আবিষ্কার হয়েছে। বিশ্বের বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় নৃত্যকলার আবিষ্কারও হয়েছে এখানে।

ত্রিনিদাদের পিচ লেক পৃথিবীতে প্রাকৃতিক আলকতারার (asphalt) সবচেয়ে বড় মজুদ। এ মজুদ এলাকা ৯৯ একর এবং ২৪৬ ফুট গভীর। এখানে পাওয়া গিয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মস্তিষ্ক প্রবাল। ১০ ফুট ঢ১৬ ফুট আয়তন-বিশিষ্ট পৃথিবীর বৃহত্তম মস্তিষ্ক প্রবালটি (brain coral) এ দেশের স্পেসাইডে পাওয়া গিয়েছে। সিএনএন জরিপ অনুযায়ী ত্রিনিদাদের উচ্চারণভঙ্গী (accents) বা স্বরাঘাত ও কথা বলার ধরণ পৃথিবীর ১০-ম যৌন আবেদনময়ী উচ্চারণ। বিখ্যাত উপন্যাস রবিনসনক্রুশো (Robinson Crusoe ) এবং ট্রেজার আইল্যান্ড (Treasure Island ) এ দ্বীপের উপর ভিত্তি করে রচিত। বিখ্যাত চলচ্চিত্র সুইস ফ্যামিলি রবিনসন (Swiss Family Robinson) এখানে চিত্রায়িত হয়েছে।

১৯৭৭ খ্রিস্টাব্দে পৃথিবীতে প্রথম বারের মতো একজন কৃষ্ণাঙ্গ বিশ্বসুন্দরী হন। তার নাম জ্যানেল কমিসিয়ঙ (Janelle Commissiong)। এ কৃষ্ণাঙ্গ ভদ্রমহিলা ত্রিনিদাদের অধিবাসী ছিলেন।নোবেল বিজয়ী সাহিত্যিক ভিএস নাইপল ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর অধিবাসী। তিনি এ দেশের একমাত্র নোবেল পুরষ্কার বিজয়ী। ১০ হাজার বছর আগে ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো দুটোই দক্ষিণ আমেরিকার মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে যুক্ত ছিল।


গ্রেনাডা (Grenada) : ইতিহাস ও নামকরণ

গুয়েতেমালা (Guatemala) : ইতিহাস ও নামকরণ

ইউনাইটেড স্টেটস (United States) : ইতিহাস ও নামকরণ

হাইতি (Haiti) : ইতিহাস ও নামকরণ

হন্ডুরাস (Honduras) : ইতিহাস ও নামকরণ

জ্যামাইকা (Jamaica) : ইতিহাস ও নামকরণ

মেক্সিকো (Mexico) : ইতিহাস ও নামকরণ

নিকারাগুয়া (Nicaragua) : ইতিহাস ও নামকরণ

পানামা (Panama) : ইতিহাস ও নামকরণ

সেন্ট লুসিয়া (Saint Lucia) : ইতিহাস ও নামকরণ

সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস (Saint Kitts and Nevis) : ইতিহাস ও নামকরণ

সূত্র:  কীভাবে হলো দেশের নাম, ড. মোহাম্মদ আমীন, পুথিনিলয়, বাংলাবাজার, ঢাকা।

All Link

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

Knowledge Link

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

আফ্রিকা মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

ইউরোপ মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

এশিয়া মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

error: Content is protected !!