দাবি ব্যাবসা ন্যূনতম নিপীড়িত বিভীষিকা গার্ডিয়ান অদ্ভুত সাহচর্য, দপ্তর, গ্রেপ্তার

 
ড. মোহাম্মদ আমীন
এই পোস্টের সংযোগ: https://draminbd.com/দাবি-ব্যাবসা-ন্যূনতম-নিপ/
 
 
১. দাবি না দাবী
উত্তর: দাবি। এটি আরবি উৎসের বাংলা শব্দ। বিদেশি শব্দ। তাই বানানে ই-কার। বিদেশি উৎসের বাংলা শব্দের বানানে সাধারণত ঈ-কার হয় না। বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত দাবি শব্দের অর্থ— ন্যায্য পাওনার অধিকার ঘোষণা, স্বত্ব, right।  
 
২. ব্যবসা না ব্যাবসা?
উত্তর: ব্যাবসা। তবে মূল বানান ব্যবসায়।  ব্যাবসা বানানটি ব্যবসায় বানানের চলিত রূপ। ব্যাবসা শব্দটি সংস্কৃত  ব্যবসায় হতে উদ্ভূত।  ব্য-তে আ-কার দিলে শেষে য় হবে না। অর্থাৎ ব্যবসায় ও ব্যাবসা উভয় বানান শুদ্ধ।
 
পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি. মূল্য: ৭০০ টাকা
৩. ন্যুনতম না ন্যূনতম?
উত্তর: ন্যূনতম। এটি তৎসম শব্দ। ‍ উচ্চারণ:  নুনোতমো। শব্দটির অর্থ: (বিশেষণে) সর্বনিম্ন।  গঠন: (ন্যূন+তমট)।
 
৪. ব্যবহার না ব্যাবহার?
 উত্তর: ব্যবহার। এটি তৎসম শব্দ। উচ্চারণ: ব্যাবোহার্‌। ব্যবহার থেকে ব্যাবহারিক (ব্যবহার+ইক)। যেমন: ব্যবসায় থেকে ব্যাবসায়িক। ব্যবহার শব্দের অর্থ: আচার, প্রয়োগ—।
 
৫. নিপীড়িত না নীপিড়িত?
উত্তর: নিপীড়িত। বাক্যে বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত নিপীড়িত শব্দের অর্থ—  নির্যাতিত, নিগৃহীত। বানান লিখতে সংশয় হলে ‘পীড়িত’ শব্দটির কথা মনে আনুন। অতঃপর পীড়িত স্বজনের আগে  আস্তে করে একটি নি বসিয়ে দিন।  যা পাবেন সেটি নিপীড়িত।
 
 
৬. বিভীষিকা না বীভিষিকা?
উত্তর: বিভীষিকা। তৎসম শব্দ। উচ্চারণ: বিভিশিকা। অর্থ: (বিশেষ্যে) আতঙ্ক, ভীতিকর ঘটনা। মনে রাখুন: বিভীষণ থেকে বিভীষিকা। তাই ব-য়ে, ই-কার এবং  ভ-য়ে, ঈ-কার। অনুরূপ: বিভীতকী, বিভীষণবাহিনী, বিভীতক।
 
 
 ৭. হত না হতো?
উত্তর: দুটোই শুদ্ধ। সংস্কৃত হত অর্থ (বিশেষণে) নিহত, মৃত, ব্যাহত, বাধাপ্রাপ্ত, লুপ্ত (হতগৌরব), অশুভ, মন্দ (হতভাগ্য), অভাগা (হতভাগা), আশ্চর্য (হতবাক)। বাক্যে ক্রিয়াবিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত হতো অর্থ‘হয়-এর অতীতকালের প্রথম পুরুষের রূপ, ‘হইত’ শব্দের কথ্য রূপ। এর সঙ্গে ‘হত’ শব্দের অর্থগত কোনো সম্পর্ক নেই। সে যদি হত হতো হয়তো পুলিশ মামলা নিত।
 
 
৮. দপ্তর না দফতর?
উত্তর: ফারসি দপ্তর অর্থ— (বিশেষ্যে) কর্মস্থল, কার্যালয়, দফতর, দাপ্তরিক কাগজপত্র গোছা করে বাঁধা বই, কাগজপত্র প্রভৃতির তোড়া (কমলাকান্তের দপ্তর)। অফিসে দপ্তরি থাকে। তাই দপ্তর বানানের মতোই লিখতে হয় দপ্তরি বানান। আবার অফিসই হচ্ছে দফতর। তাই দফতর বানানও লেখা যায়। দপ্তর ও দফতর দুটো সমার্থক ও প্রমিত। 
 
পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
৯. গ্রেফতার না গ্রেপ্তার?
উত্তর: গ্রেপ্তার আর গ্রেফতার দুটোই শুদ্ধ। দুটিই ফারসি উৎসের শব্দ। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে উভয় শব্দ প্রমিত হিসাবে ঠাঁই পেয়েছে। অতএব লিখতে পারেন দুটোই।
 
১০. অদ্ভুত না অদ্ভূত?
 উত্তর: অদ্ভুত= অৎ+ভূ+উত= অদ্ভুত। এখানে বানানের অন্ত্যে অবস্থিত ‘উত’ প্রত্যয়ের প্রভাবে ‘ভূ’ পরিবর্তন হয়ে ‘ভু’ হয়ে গিয়েছে। কিম্ভূত= কিম্+ভূত। কিম্ভূত গঠনে ‘উত’ প্রত্যয়ের উৎপাত ছিল না। তাই ‘কিম্ভূত’ শব্দের ভূত অবিকল রয়ে গিয়েছে।
মনে রাখবেন, বাংলায় অদ্ভুত ছাড়া সব ভূতই ঊ-ভূত।
 
১১. কিম্ভুতকিমাকার না কিম্ভূতকিমাকার?
উত্তর: কিম্ভূতকিমাকার। এর বাংলা আভিধানিক অর্থ বিকট, কুৎসিত, কদাকার বা অদ্ভূত। সংস্কৃতাগত বা সংস্কৃতরূপী শব্দ ‘কিম্ভূত’ ও ‘কিমাকার’ মিলে বাংলা ‘কিম্ভূতকিমাকার’ শব্দ গঠিত। গঠন। ‘কিম্ভূত’ সংস্কৃত ‘কিম ভূত’ হতে এসেছে। এর অর্থ হচ্ছে- কী প্রকার/ কীসের মতো/ কী ধরণের ইত্যাদি। অন্যদিকে কিমাকারের সংস্কৃত রূপ হল ‘কিম আকার’। এর অর্থ- কী তার আকার।  বাংলায় শব্দ দুটি মিলিত হয়ে  কদাকার হয়ে গেল।
 
১২. সাহচর্য না সহচার্য?
উত্তর: সাহচর্য। বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত তৎসম সাহচর্য শব্দটি সহচর শব্দের সঙ্গে য-প্রত্যয় যুক্ত হয়ে গঠিত হয়েছে। তাই ব্যাকরণিক বিধি অনুসারে সহচর শব্দের প্রথম বর্ণ স পরিবর্তন হয়ে সা হয়েছে। অর্থ:  সঙ্গ, সান্নিধ্য, সংস্রব।
 
 
১৩. ছিল না ছিলো?
উত্তর: ছিল। অকারণে ক্রিয়াপদে উচ্চারণ বিধেয় নয়।
 
১৪. গার্ডিয়ান না গার্জিয়ান?
উত্তর: উচ্চারণ গার্ডিয়ান (Guardian), অনেক সময় অনভ্যস্ত কানে জোরের সঙ্গে  দ্রুত বলা /d/ ধ্বনি  হালকা /dʒ/ জ এর মত শোনায়। যেমন schedule এর উচ্চারণ শেজ্যুল বা স্কেজ্যুল এর মতো। ব্রিটেনে প্রকাশিত The Guardian পত্রিকাটিকে “দা গার্ডিয়ান” উচ্চারণ করা হয়।
 
 
১৫. এডুকেশন না এজুকেশন?
উত্তর: Education উচ্চারণ:   eh·djuh·kei·sh’n। এ জুহ কেই শন = এজুকেইশন। এজুকেইশন।  ব্রিটিশ ও আমেরিকান দুই ধরণের উচ্চারণেই এটি এজুকেইশন।
 
১৬. শিডিউল না স্কেজিউল?
 
উত্তর: 1.Schedule American: skeh. Jool =শ্কিজুল। British: seh. Jool= শিজুল। আমেরিকান উচ্চারণ: 
 
 
১৭. এটিটিউড না এটিচিউড?
উত্তর: বাংলাদেশে সাধারণত অ্যাটিচিউড উচ্চারণ করা হয়।
 
১৮: সল্যুশন না সলিউশন?
উত্তর: সলিউশন
 
 
১৯. রিফুজি না রিফিউজি?
উত্তর: দুটোই উচ্চারণ করা হয়।

নিমোনিক

নিমোনিক (Mnemonic) শব্দটি প্রাচীন গ্রিক শব্দ μνημονικός থেকে উদ্ভূত। এর অনুবাদ হতে পারে স্মৃতিসংক্রান্ত, স্মৃতিবিষয়ক, স্মৃতিশাস্ত্রসম্পর্কিত।
 
নিমোনিক শব্দের সঙ্গে নিমোসাইন (Mnemosyne) শব্দের প্রায়োগিক সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। এর অর্থ “স্মৃতিচিহ্ন”। গ্রিক পুরাণে নিমোসাইন হলো মুসার মায়ের নাম। দুটি শব্দই আবার নেমা(Mnema) শব্দটিকে নির্দেশ করে। এর অর্থও স্মৃতি।
শব্দগুলো ‘বিলুপ্তপ্রায় স্মৃতিকে জাগিয়ে তোলা’ কথা প্রকাশে ব্যবহৃত।বাংলায় নিমোনিক শব্দের অর্থ করা হয়েছে: স্মৃতিজাগানিয়া, স্মৃমন্থন (স্মৃতি+রোমন্থন), স্মৃতিসহায়ক।
 
নিমোনিক বাংলা বানান অভিধান ড. মোহাম্মদ আমীনের একটি গ্রন্থ। বাংলা শব্দের বানানের সঙ্গে ব্যুৎপত্তি, ব্যাকরণিক নির্দেশ এবং একই সঙ্গে স্মৃতিজাগানিয়া ইঙ্গিতসূত্র বইটির মূল বিষয়বস্তু।
 
 
সূত্র: নিমোনিক বাংলা বানান অভিধান (প্রকাশনীয়), ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
 
 
error: Content is protected !!