ধবধবে সাদা আর কুচকুচে কালো

ড. মোহাম্মদ আমীন
ধবধব থেকে ধবধবে। ধবধব অর্থ শুভ্রতার ভাব। এটি ধন্যাত্মক অব্যয়। ধবধবে অর্থ (ধন্যাত্মক বিশেষণে) শুভ্র ও উজ্জ্বল। সুতরাং, ধবধবে সাদা অর্থ শুভ্র ও উজ্জ্বল সাদা; সাদা উজ্জ্বল ও আকর্ষণীয়। কোনো কিছু সাদা হলে উজ্জ্বল বা আকর্ষণীয় হবে তা না। যেমন সাদা চুল।
ধবধবে সাদা এমন সাদা যা উজ্জ্বল শুভ্র এবং আকর্ষণীয়। যে সাদা মনকে আকৃষ্ট করে তাই ধবধবে সাদা।
কুচকুচ থেকে কুচকুচে। বাংলা কুচকুচ অর্থ (অব্যয়/বিশেষ্যে) উজ্জ্বল ও গাঢ় কৃষ্ণবর্ণের আভা। কুচকুচে অর্থ (বিশেষণে) গাঢ় ও চকচকে, তৈলচিক্কণ। প্রসঙ্গত, চিক্কণ অর্থ (বিশেষণে) চিকন, মসৃণ, চকচকে; স্নিগ্ধ, শোভন, লাবণ্যময়। যে কালো মসৃণ, চকচকে, স্নিগ্ধ সেটিই কুচকুচে।
সুতরাং, কুচকুচে কালো অর্থ তৈলচিক্কণ, আকর্ষণীয় কালো। কালো সবসময় কুৎসিত নয়। যেমন: কালো চুল। কালো চুলকে আকর্ষণীয় করার জন্য তৈলাক্ত জিনিস দিয়ে কুচকুচে করা হয়।

গৎবাঁধা

গৎবাঁধা কথাটির আভিধানিক অর্থ— নিয়ম বাঁধা, রুটিনমাফিক, একই প্রকার, অভিন্ন, গতানুগতিক প্রভৃতি। এটি একটি সংগীতসম্পৃক্ত শব্দ। ভারতীয় সংগীতে শব্দটির বহুল প্রচলন লক্ষণীয়। ‘গৎ’ শব্দের মূল অর্থ হলো— বাজনার বোল। বোলের ওপর নির্ভর করে যন্ত্র বাজানোর উপযোগী ছন্দোবদ্ধ সংগীতই হলো ‘গৎ’। ‘গৎ’ মূলত খেয়াল গানের অনুকরণে রচিত একটি সংগীত কৌশল। ‘গৎ’-এর মাধ্যমে ধীরগতি ছন্দের খেয়াল চয়নের একটি সুনির্দিষ্ট অনড় নিয়ম আছে। এ নিয়ম সর্বত্র অভিন্ন এবং অপরিবর্তনীয়। এর মাধ্যমে পুরো সংগীত অভিন্নভাবে পরিচালিত হয়। কখনো কোনো হেরফের হয় না। গানের এ দৃঢ় রীতিটি মানুষের নিয়মবদ্ধ গতানুগতিক প্রাত্যহিক জীবনের একঘেয়েমি ও অভিন্নতা প্রকাশে ব্যবহার করা হয়।
——————
error: Content is protected !!