নরওয়ে (Norway) : ইতিহাস ও নামকরণ

কীভাবে হলো দেশের নাম (ইউরোপ)

ড. মোহাম্মদ আমীন

নরওয়ে (Norway)

প্রাচীন নোর্স (Norse)) শব্দ নোরোর (noror) ও ভেগর (veger) এর সমন্বয়ে নররগানিয়া (Nororvegr) শব্দের উদ্ভব।  নরর শব্দের অর্থ নর্দান বা উত্তর ও ভেগর শব্দের অর্থ পথ। সুতরাং নরওয়ে শব্দের অর্থ  উত্তরের পথ। সহজ ভাষায় বলা যায় নরওয়ে মান নর্থওয়ে বা উত্তরের পথ বা উত্তরে আগুয়ান। আবার অনেকে মনে করেন,  প্রাচীন রাশিয়ান শব্দ উরমেন বা মুরমেইন হতে নরওয়ে শব্দের উদ্ভব। ওই ভাষায় নোর্স শব্দটির প্রতিশব্দ নরমানস (Normans) প্রকৃতপক্ষে নর্থমেন (Northmen) হিসাবে উচ্চারিত হতো।

নরওয়ের মোট আয়তন ৩,৮৫,১৭৮ বর্গকিলোমিটার বা ১,৪৮,৭১৮ বর্গমাইল। তন্মধ্যে জলীয় ভাগের পরিমাণ ৫.২%। ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, মোট জনসংখ্যা ৫১,৬৫,৮০২ জন এবং প্রতিবর্গমাইলে জনসংখ্যার ঘনত্ব ১৫.৫। আয়তন বিবেচনায় নরওয়ে পৃথিবীর ৬১-তম বৃহত্তম দেশ কিন্তু জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় ২১৩-তম জনবহুল দেশ। অসলো সুইডেনের রাজধানী ও বৃহত্তম শহর। দাপ্তরিক ভাষা নরওয়েজিয়ান, লুল সামি, উত্তর সামি ও দক্ষিণ সামি। স্বীকৃত আঞ্চলিক ভাষা হচ্ছে কেইন, রোমানি ও স্ক্যানদুরোমানি। সরকারিভাবে নরওয়ের অধিবাসীদের নরওয়েজিয়ান বলা হয়। সরকার পরিচালিত হয় সাংবিধানিক রাজতন্ত্রের আওতায়।১৮২১ খ্রিষ্টাব্দের ১৩ জুলাই নরওয়ের পতাকা গৃহীত হয় এবং কোনোরূপ পরিবর্তন কিংবা বিরতি ছাড়া এখনও সেটিই ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, জিডিপি (পিপিপি) ৩৫১.৬০৩ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিছু আয় ৬৭,৪৪৫ ইউএস ডলার। অন্যদিকে, জিডিপি (নমিনাল) ৪২০.৯৫৮ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং মাথাপিছু আয় ৮০,৭৪৯ ডলার। মাথাপিছু আয় বিবেচনায় সুইডেন পৃথিবীর তৃতীয় ধনী দেশ। মুদ্রার নাম নরওয়েজিয়ান ক্রোন।

নরওয়ে ও সুইডেনকে একত্রে স্ক্যান্ডিনেভিয়া বলা হয়। এটি পৃথিবীর ধনীতম এবং শান্তিতম দেশের একটি। ২০১৪ খ্রিষ্টাব্দে  নরওয়ে পৃথিবীর প্রথম ধনী দেশ হিসাবে বিবেচিত হয়েছিল। ২০,০০০ কিলোমিটার তটরেখার সমৃদ্ধ নরওয়ের জোস্টেডলসব্রিন (ঔড়ংঃবফধষংনৎববহ) উত্তর ইউরোপের বৃহত্তম হিমবাহ (মষধপরবৎ)। এখানে ৪,৫০,০০০ হ্রদ রয়েছে। তন্মধ্যে ২০০টির আয়তন ৪ বর্গমাইল বা ততোধিক। নরওয়ে পৃথিবীর বৃহত্তম তেল রপ্তানিকারক দেশের অন্যতম হলেও এখানে গ্যাসের দাম পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি। প্রতি গ্যালন তেলের দাম ১০.১২ ইউএস ডলার। এ দেশে বেশ্যাবৃত্তি বৈধ হলেও যৌনসেবা ক্রয় নিষিদ্ধ। এর অর্থ মেয়েদের যৌনসেবা প্রদান আইনগত হলেও তা ক্রয় করা পুরুষের জন্য নিষিদ্ধ।

২৪.৫ কিলোমিটার বা ১৫ মাইল দীর্ঘ লেরাডাল রোড ট্যানেল পৃথিবীর দীর্ঘতম রোড ট্যানেল। ২৮৭ মিটার গভীর পৃথিবীর দীর্ঘতম জলগর্ভস্থ ট্যানেলও নরওয়েতে অবস্থিত। ২০১১ খ্রিষ্টাব্দে  নরওয়েতে মাখন সংকট হয়েছিল। এ সময় প্রতি টুকরো মাখন ৫০ ইউএস ডলার দামে বিক্রি হয়েছিল।

ইউরোপের অন্যান্য দেশের মতো নরওয়েতে যেখানে সেখানে অ্যালকোহল পাওয়া যায় না। কেবল ভিনমনোপলেট (Vinmonopolet) স্টোরে অ্যালকোহল পাওয়া যায়। প্রতি শহরে দুই একটি ভিনমনোপলেট রয়েছে। রবিবার খাদ্যের দোকানসমূহ বন্ধ রাখা হয়। তবে ওইদিন যদি কাউকে খাদ্য কিনতে হয় তাহলে গ্যাস স্টেশনে যাওয়ার প্রয়োজন হয়। গ্যাস স্টেশনে শনিবার খাদ্য বিক্রির অনুমতি আছে। নরওয়েতে খাদ্যের দাম পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি। এখানে খাদ্যের দাম এত বেশি যে, সুইডেন সীমান্তের নিকটে অবস্থানকারী নরওয়েবাসী নিজের দেশ ছেড়ে সুইডেন থেকে খাদ্যসামগ্রী ক্রয় করে। প্রতিবছর এরূপ সীমান্ত বাণিজ্যের আর্থিক পরিমাণ ২ বিলিয়ন ইউএস ডলার। অনেক নরওয়েবাসী ভ্রমণে বের হওয়ার সময় সঙ্গে করে মুদি সামগ্রী নিয়ে যায়। টিভির মালিককে প্রতিবছর ৪৮০.৬৬  ইউএস ডলার প্রদান করতে হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ডাকোটা, মিনেসোটা এবং উইসকনসিনে বসবাসকারী নরওয়ে বংশদ্ভুদ লোকের সংখ্যা নরওয়েতে বসবাসকারী নরওয়েজিয়ানের সংখ্যার চেয়ে বেশি। তন্মধ্যে মিনিসোটায় বাস করে সবচেয়ে বেশি। এ জন্য মিনিসোটাকে নরওয়ের বেসরকারি বা আনফিসিয়াল রাজধানী বলা হয়।

নরওয়েকে অনেক সময় মধ্যরাতের সূর্যের দেশ বলা হয়। কারণ উত্তরাঞ্চলীয় সুমেরুবৃত্ত এলাকায় গ্রীষ্মকালে মে মাসের শেষ দিক হতে জুলাই মাসের শেষদিক পর্যন্ত সূর্য কখনও দিগন্তের নিচে নামে না। অন্যান্য এলাকায় ২০ ঘণ্টা সূর্যের আলো থাকে। শীতকালে ঘটে এর উল্টো ঘটনা। ২০০৮ খ্রিষ্টাব্দে  নরওয়ে একটি পেঙ্গুইনকে নাইট উপাধি প্রদান করে। আমাজান বন রক্ষার জন্য নরওয়ে ২০০৮ খ্রিষ্টাব্দে  ১ বিলিয়ন ইউএস ডলার দান করে।

নরওয়ের কারাগারে প্রতেক হাজতির ইন্টারনেটের ব্যবস্থা আছে। তারা ওখানে প্রায় স্বাধীনভাবে চলাফেরা করে। সবচেয়ে উচ্চ নিরাপদ কারাগারের প্রতিটি কক্ষে রয়েছে পাঁচ তারকা হোটেলের সুযোগ-সুবিধা। নরওয়ের রাজার পদিব নরওয়েস কিং, কিং অব নরওয়ে নয়। এর অর্থ তিনি দেশের মালিক, দেশ তার মালিক নন। নরওয়ের রাজা পঞ্চম অলাভ সবসময় সাধারণ মানুষের মতো পাবলিক পরিবহনে যাতায়াত করতেন এবং সে জন্য তিনি টিকেট ক্রয় করতেন। ১৮১৪ থেকে ১৯০৫ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত দু দেশ একই রাজ্যভুক্ত ছিল। ২০১৭ খ্রিষ্টাব্দে  নরওয়েতে প্রথম সম্পূর্ণ ডিজিটাল রেডিও চালু হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর হতে এ পর্যন্ত কেবল ১০ জন পুলিশ অফিসার খুন হয়।

গাড়ি চালানোয় কাউকে প্রভাবিত করার সময় ধরা পড়লে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাকে ৩০ দিন জেল, এক বছরের জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স বাতিল এবং বার্ষিক মোট আয়ের ১০% জরিমানা গুণতে হয়। ওই দেশে গাড়ি চালানোকে পরিবেশ দুষণে সহায়ক একটি কর্ম বলে মনে করা হয়। যদিও যে কেউ নিজের ইচ্ছায় গাড়ি চালাতে পারে। নরওয়ের টন্ডহেইম শহর ইউরোপের প্রথম বেতার (wireless)) শহর। গড়ে নরওয়েজিয়ানের পুস্তক ক্রয়ে পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় করে । প্রতিবছর তার পুস্তক ক্রয়ে ৫০০ ক্রোনার বা ৭৬ ডলার ব্যয় করে। প্রতিবছর নরওয়েতে ২০০০ এর অধিক পুস্তক প্রকাশিত হয়। নতুন কোনো বই প্রকাশ হলে নরওয়ে সরকার ১০০০ বই ক্রয় করে দেশের বিভিন্ন পাঠাগারে প্রদান করে। নরওয়ের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন পৃথিবীর যে কোনো দেশের নাগরিকদের জন্য ফ্রি।

পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহত্তম সার্বভৌম তহবিল নরওয়েয়ের। নরওয়ে সরকার তেল বিক্রির সমুদয় অর্থ সঞ্চয় করে রেখেছে। এর পরিমাণ ট্রিলিয়ন ডলারের অধিক হবে। স্যামন মাছ রপ্তানিতে নরওয়ে বিশ্বে প্রথম। নরওয়ে তার বৈদ্যুতিক শক্তির ৯৮-৯৯% পায় জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে। জলবিদ্যুৎ থেকে জাতীয় বিদ্যুৎ উৎপাদনের হার বিবেচনায় এটি বিশ্বে সর্বোচ্চ। ১২ বছরের কম বয়স্ক শিশুদের বিজ্ঞাপনে ব্যবহার নরওয়ে ও সুইডেনে অবৈধ।


লিথুয়ানিয়া (Lithuania) : ইতিহাস ও নামকরণ

লুক্সেমবার্গ (Luxemburg) : ইতিহাস ও নামকরণ

মাল্টা (Malta) : ইতিহাস ও নামকরণ

মোনাকো (Monaco) : ইতিহাস ও নামকরণ

মন্টিনেগ্রো (Montenegro) : ইতিহাস ও নামকরণ

নেদারল্যান্ডস (Netherlands) : ইতিহাস ও নামকরণ

সূত্র:  কীভাবে হলো দেশের নাম, ড. মোহাম্মদ আমীন, পুথিনিলয়, বাংলাবাজার, ঢাকা।

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

Knowledge Link

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

 

error: Content is protected !!