নামকরণ: পাগলাপুল কাকরাইল পরীবাগ সূত্রাপুর : স্থানের নাম কীভাবে হলো

ড. মোহাম্মদ আমীন
সংযোগ: https://draminbd.com/নামকরণ-পাগলাপুল-কাকরাইল/
ড. মোহাম্মদ আমীন
 পাগলাপুল
একসময় ঢাকা ছিল নদীর শহর। লতার মতো ইতঃস্তত ছড়িয়ে ছিল অসংখ্য নদী আর খাল। ভেনিসের মতো সৌন্দর্যে ঢাকা ছিল অপরূপ। এখন ঢাকায় কোনো নদী নেই। সব নদী-নালা মানুষের দেওয়া মাটির নিচে চাপা পড়ে গেছে। সপ্তদশ শতকে ঢাকায় বর্তমান পাগলাপুল নামক স্থান দিয়ে পাগলা নামের একটি নদী প্রবাহিত ছিল। নদীটি পাগলের মতো যখন যেদিকে ইচ্ছে সেদিক দিয়ে প্রবাহিত হতো বলে নাম ছিল পাগলা নদী। বঙ্গদেশে মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেবের প্রতিনিধি সুবাদার মীর জুমলা (১৫৯১ খ্রি:-১৬৬৩ খ্রি:) যাতায়াতের সুবিধার্থে পাগলা নদীর উপর একটি সুন্দর পুল তৈরি করেন। প্রতিদিন অনেক লোক পুলটি দেখতে আসতেন। পাগলানদীর উপর পুল নির্মাণ করা হয়েছিল। তাই পুলটিকে বলা হতো পাগলাপুল। এভাবে পাগলাপুল হতে পুরো এলাকাটির নাম হয়ে যায় পাগলাপুল।
কাকরাইল
ঊনিশ শতকের শেষ দশকে  ককরোল নামের এক ইংরেজ ঢাকা জেলার কমিশনার হিসাবে নিয়োজিত ছিলেন। ইংরেজ আমলে কমিশনার পদটি ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কমিশনার ছিলেন পুরো প্রশাসনিক বিভাগের প্রভাবশালী কয়েকজন ব্যক্তির অন্যতম। এলাকাবাসী ও জেলাপ্রশাসকসহ অন্যান্য অধস্তন কর্মকর্তৃবৃন্দ কমিশনারকে খুশি করে তার অনুগ্রহ লাভের জন্য রাস্তাসহ বিভিন্ন স্থান ও প্রতিষ্ঠানের নামকরণ করতেন। বর্তমানে যেমনটি দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী বা ক্ষমতাশীল কোনো মন্ত্রীর ক্ষেত্রে। আলোচ্য এলাকায় কমিশনার মিস্টার ককরোল-এর নামানুসারে ‘ককরোল রোড’ নামের একটি রাস্তা করা হয়েছিল।   সেই ককরোল রোড থেকে কালক্রমে এলাকাটির নাম হয়ে যায় কাকরাইল।
পরীবাগ
নবাব আহসানউল্লাহর মেয়ে পরী বানুর নামানুসারে এলাকাটির নাম হয় পরীবাগ। বাগ শব্দের অর্থ বাগান, স্থান বা এলাকা। সুতরাং পরীবাগ মানে পরীর বাগ বা পরীর বাগান বা পরীর এলাকা। নবাব আহসানউল্লাহ তাঁর মেয়ের নামে এই বাগান করেছিলেন। তৎকালে ঢাকা ছিল বাগানে বাগানে ভরপুর অতি মনোহর একটি শহর। অনেকের মতে আলোচ্য এলাকায় একটি বিশাল বাগান ছিল। নবাব আহসানউল্লাহর মেয়ে পরীবানুর নামানুসারে বাগানটির নাম রাখা হয় পরীরবাগ। পরীবাগ নামের বাগান থেকে এলাকাটি পরীবাগ নাম ধারণ করে।
সূত্রাপুর: নামকরণ বৃত্তান্ত
 সূত্রাপুর ঢাকার একটি বিখ্যাত এলাকা। সূত্র ও পুর হতে সূত্রাপুর এলাকার নাম। যারা কাঠের কাজ যারা করতেন তাদের বলা হতো সূত্রধর। ‘পুর’ মানে এলাকা বা স্থান। সুতরাং সূত্রাপুর অর্থে কাঠের কাজে নিয়োজিত লোকদের এলাকা। এ এলাকায় এককালে অনেক সূত্রধর পরিবার বসবাস করতেন। তাই এলাকাটি কাঠের কাজের জন্য বিখ্যাত হয়ে ওঠে। এজন্য এলাকাটির নাম হয় সূত্রাপুর। 
টিকাটুলি: নামকরণ বৃত্তান্ত
‘টিকা’ ও ‘টুলি’ হতে টিকাটুলি নামের উদ্ভব। টিকা হচ্ছে কয়লা দিয়ে তৈরি একপ্রকার জ্বালানি। এর আকার ছিল বাতাসার মতো চ্যাপ্টা ও গোলাকার। এটি আগুনে জ্বালিয়ে হুকোর কল্কেতে রাখা তামাকে বসিয়ে হুকা টানা হতো। এবার ‘টুলি’ অর্থ কী তা দেখা যাক। ‘টুল’ হতে টুলি শব্দের উদ্ভব। যারা টুলে বসে ক্রয়-বিক্রিয় করতেন তাদের বলা হতো টুলি। একসময় ঢাকায়  প্রতিঘরে হুকো ছিল। হুকোর তামাক জ্বালানোর জন্য প্রতিদিন শতশত মন টিকা বিক্রি হতো। তাই টিকা ব্যবসায় অনেক লোক জড়িয়ে পড়ে। বর্ণিত এলাকায় টিকা তৈরির অনেক কারখানা ছিল। টিকা তৈরির জন্য এলাকাটি বিখ্যাত ছিল। এখানকার টিকা ব্যবসায়ীরা টুলে বসে টিকা বিক্রি করতেন। অনেকে টুলের মাঝে কাত হয়ে ঘুমিয়ে পড়তেন। এজন্য এলাকাটির নাম হয় টিকাটুলি।
জানা অজানা অনেক মজার বিষয়: https://draminbd.com/?s=অজানা+অনেক+মজার+বিষয়
শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
আমি শুবাচ থেকে বলছি
error: Content is protected !!