না ঘরকা না ঘাটকা-র গল্প

ইউসুফ খান

না ঘরকা না ঘাটকা-র গল্প

মূল হিন্দি প্রবাদটা – धोबी का कुत्ता न घर का न घाट का – ধোবী কা কুত্তা ন ঘর কা ন ঘাট কা।

গাছের গুঁড়ি কুটে তৈরি করা যে পাটাতনের ওপর কাপড় আছড়ে আছড়ে ধোপা কাপড় কাচতো সেটাকে হিন্দিতে বলতো কুতা। এই

ইউসুফ খান

কুতা ঘরে রাখা যায় না, ঘাটে আনতেই হয় কাচার কাজে, আর ঘাটেও ফেলে রাখা যায় না, চুরি হয়ে যাবে এই ভয়ে, তাই ঘরে ফিরিয়ে আনতেই হয়। মানে ঘর এবং ঘাট কোথাও তাকে রাখা যাচ্ছে না। তেমনি যে অপদার্থ ব্যক্তিকে ঘরে রাখা যায় না, এমনকি ঘরের বাইরের সমাজেও রাখা যাচ্ছে না সে হচ্ছে ওই ধোপার কুতা-র মতো, ‘ন ঘর কা, ন ঘাট কা’, যেটাকে বাংলায় লেখা হয় ‘না ঘরকা না ঘাটকা’। সর্বত্র অনাদর পাওয়া মানুষও নিজের সম্পর্কে বলে – আমি তো ধোবী কা কুত্তা ন ঘর কা ন ঘাট কা।

পুকুরে পুকুরে শান বাঁধানো ঘাট চালু হয়ে গেলে এই কুতা-র প্রয়োজন শেষ হয়ে যায়, তখন ধোপা ছাড়া আর কেউ জিনিসটার মানেই বোঝেনা, শব্দটাও হারিয়ে যায়। কিন্তু প্রবাদটা থেকে যায়। লোকে তখন প্রবাদটাতে কুতা-র জায়গায় কুত্তা শব্দটা বসিয়ে দেয় এবং একটা মানেও দাঁড় করিয়ে নেয়। তারপর বিভিন্ন গল্পও তৈরি হয়। একটা গল্প এরকম –
এক ধোপার একটা গাধা আর একটা কুকুর ছিলো (আগেকার দিনে সব ধোপারই একটা করে গাধা থাকতো)। ধোপা তার কাপড়ের গাঁটরি গাধার পিঠে চাপিয়ে ঘাটে নিয়ে যেতো, আবার ঘাট থেকে কাচা কাপড় গাধার পিঠে চাপিয়েই বাড়ি ফিরতো। ফলে ধোপার কাছে গাধার কদর ছিলো বেশি। ধোপার কুকুরের অত দরকার নেই। তাই গাধার চেয়ে কুকুরের যত্ন-আত্তি খাওয়া-দাওয়া একটু কম হতো। কুকুর গাধাকে হিংসে করতো, ধোপার ওপর রাগ করতো। ধোপার বাড়িতে পরপর কয়েকটা রাতে চুরি হতে থাকলেও হিংসেয় কুকুরটা চেঁচাতো না, ধোপাকে জাগাতো না। ধোপা দেখলো কুকুরটা তো আমার ঘাটের কাজে লাগেই না আবার ঘরের কাজেও লাগছে না, না ঘরকা না ঘাটকা। তাই একে পুষে কী লাভ? ধোপা কুকুরটাকে তাড়িয়ে দিলো।
(গল্প গল্পই। এটা অন্যায় গল্প। কুকুর কখনও বেইমান হয় না)

ইউসুফ খান, কলকাতা, ২০২০ জুন ২২

 

সূত্র: না ঘরকা না ঘাটকা-র গল্প, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)


ঢাকাই বুলি: কলকাতার চিঠি, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

পদ্মাপারের পদবি, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ঈশ্বরচন্দ্র কেন শর্ম্মা, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ঘেটো লেটো নজরুল, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ঈশ্বরচন্দ্র কেন শর্ম্মা, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

বাঁকুড়া থেকে বগুড়া, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

বেশ্যারা প্রস্টিটিউট নয়, ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

ইত্যাদি প্রভৃতি প্রমুখ. ইউসুফ খান, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ)

শুবাচ গ্রুপ এর লিংক: www.draminbd.com

All Link

All Links/1

All Links/2 শুবাচির পশ্ন থেকে উত্তর

উৎস: ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পবিলেকশন্স লি.

বাক্য: গঠন-অগঠন/১

বাংলা শব্দের পৌরাণিক উৎস, ড. মোহাম্মদ আমীন

মৌলবাদ ও মৌলবাদী শব্দের অর্থ কী জানতে চাই

বাংলা ভাষার মজা, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পবিলেকশন্স লি.

আল্লাহ শব্দের বাংলা

শুবাচ বিসিএস বাংলা/১

শুবাচির প্রশ্ন থেকে উত্তর/৩২

শুবাচির প্রশ্ন থেকে উত্তর/ ৩৩

বহুল ব্যবহৃত কিছু শব্দের শুদ্ধ বানান/১২ ড. মোহাম্মদ আমীন

ইত্যাদি প্রভৃতি প্রমুখ

বেশ্যারা প্রস্টিটিউট নয়

ঢাকাই বুলি: কলকাতার চিঠি

না ঘরকা না ঘাটকা-র গল্প

Language
error: Content is protected !!