পরিবর্তিত বানান

নবি (আরবি)— অর্থ আল্লাহর প্রেরিত দূত।
কালবৈশাখি (সংস্কৃত )— অর্থ প্রবল ঝড়বৃষ্টি ।
কাহিনি (হিন্দি শব্দ)— অর্থ বৃত্তান্ত, বিবরণ।
পরি (ফারসি শব্দ)— অর্থ রূপকথায় বর্ণিত ডানাবিশিষ্ট সুন্দরী নারী।
পল্লি (সংস্কৃত শব্দ)—অর্থ ক্ষুদ্র গ্রাম, পাড়াগাঁ।
তরি (সংস্কৃত শব্দ)— অর্থ নৌকা।
তরণি (সংস্কৃত শব্দ)— অর্থ তরণী।
তির (ফারসি)— অর্থ ধনুকের সাহায্যে নিক্ষেপ করা হয় এমন অস্ত্র, বাণ, শর।
তিরপল (ইংরেজি)— অর্থ মোটা ও ঘন বুনটের জলনিরোধক কাপড়।
শ্রেণি (সংস্কৃত শব্দ)— অর্থ বিভাগ, ক্লাস।
ছোটো—অর্থ কণিষ্ঠ।
বড়ো (দেশি)—অর্থ বৃহৎ।
লন্ডভন্ড (দেশি)— অর্থ বিপর্যস্ত, তছনছ।
ভান্ডার (সংস্কৃত )— অর্থ বিবিধ বস্তু রাখার ঘর।
বয়সি (বাংলা)— অর্থ বয়সবিশিষ্ট।
পির (ফারসি)— অর্থ মুসলমান সাধুপুরুষ।
উপলক্ষ্য (সংস্কৃত)— অর্থ উদ্দেশ্য, প্রয়োজন।
নিশ্বাস (সংস্কৃত শব্দ)— অর্থ ফুসফুস থেকে নির্গত বায়ু।
লেখাটি সরাসরি কেন অনুমোদন করা হলো না:
তিনি লিখেছেন, “নবী, কালবৈশাখী, কাহিনী, পরী, পল্লী, তরী, তরণী, তীর, শ্রেণী, বয়সী, পীর, ছোট, বড়, লণ্ডভণ্ড, ভাণ্ডার, ত্রিপল, উপলক্ষ, নিঃশ্বাস— বেশ প্রচলিত এই শব্দগুলোর বানানে পরিবর্তন আনা হয়েছে বাংলা একাডেমির আধুনিক বাংলা অভিধানের সর্বশেষ সংস্করণে।” কথাটি ঠিক নয়। সংস্কৃত/তৎসম শব্দের বানান বাংলা একাডেমি পরিবর্তন করতে পারে না। সংস্কৃত বর্ণ আর বাংলা বর্ণ বাংলার ক্ষেত্রে অভিন্ন। বাংলা একাডেমি মূলত ১৯৩৬ খ্রিষ্টাব্দে প্রণীত বাংলা বানান পুস্তিকায় নির্দেশিত বিধি অনুসরণ করেছে।
শুদ্ধীকরণ:
নবি আরবি শব্দ নয়। আরবি উৎসের বাংলা শব্দ। আরবি শব্দ: نبي।
error: Content is protected !!