পাড় ও পার এবং সুন্দর হাতের লেখা

ড. মোহাম্মদ আমীন

পাড় ও পার

‘পার’‘পাড়’ অনেক সময় একই অর্থ বোঝালেও প্রায়োগিক ধরন অনেক ক্ষেত্রে ভিন্ন। নদী, সমুদ্র ইত্যাদির তীর বোঝাতে ‘পার’, কিন্তু পুকুর, দিঘি, সরোবর ইত্যাদির ‘তীর’ অর্থে ‘পাড়’ ব্যবহার করা হয়। আবার ‘পার’ অর্থ, নদীর বিপরীত তীর (নদীর এ-পার ও-পার)। নিষ্কৃতি (পার পাওয়া) অর্থেও ‘পার’ ব্যবহৃত হয়। যেমন: অনেক কষ্টে বিপদ থেকে পার পাওয়া গেল। আবার প্রান্তদেশ(শাড়ির পাড়) বোঝাতেও ‘পাড়’ ব্যবহৃত হয়। সাধারণত বৃহৎ জলাশয়ের তীর ‘পার’ কিন্তু ছোটো জলাশয়ের তীর হচ্ছে ‘পাড়’। যেমন: নদীর পার, সাগরের পার, কিন্তু পুকুরের ‘পাড়’। আসলে কী এ ব্যাখ্য যথার্থ? 

‘পার’ সংস্কৃত শব্দ। সংস্কৃত ‘পার’ বলতে বোঝায় নদীর বিপরীত তীর বা কূল। এছাড়াও শব্দটি আরও বিভিন্ন অর্থ প্রকাশে ব্যবহৃত হয়। যখন বলা হয়, ‘গগন পারে সূর্য হাসে’; তখন এর অর্থ প্রান্তভাগ। যখন বলা হয়, ‘মাঠের পারে মাঠ, তার পারে হাট’; তখন ‘পার’ অর্থ বোঝায় সীমানা। যদি বলা হয়, ‘কৌশলটা কাজে লাগলে পার পাওয়া যাবে’; এখানে ‘পার’ অর্থ প্রতিকার পাওয়া। আবার নিষ্কৃতি, উদ্ধার, রেহাই প্রভৃতি অর্থেও পার লেখা হয়। যেমন: ‘দয়াল পার কর আমারে।’ এখানে পার অর্থ পরিত্রাণ। ‘সপ্ততল ভেদ করি বাণ হল পার, শত্রুরা কম্পমান, রেহাই নাহি আর।’ এখানে ‘পার’ বলতে এক পাশ ভেদ করে অন্য পাশ দিয়ে বের হয়ে যাওয়া। উত্তীর্ণ হওয়া অর্থেও ‘পার’ শব্দ ব্যবহার করা হয়। যেমন: ‘পরীক্ষার কঠিন বৈতরণী কোনও প্রকারে পার করলাম।’ ‘ভবসিন্ধু পার’। নিষ্কৃতি অর্থেও ‘পার’ শব্দের ব্যবহার দেখা যায়। যেমন: ‘বিপদে মোরে রক্ষা করো এ নহে মোর প্রার্থনা।’
‘পাড়’ শব্দের আভিধানিক অর্থ নদীর তীর, প্রান্ত, তট বা কূল, উঁচু জায়গা। সংস্কৃত পার, পাট বা পাটক থেকে শব্দটির উৎপত্তি। ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, পুকুর, জলায়শ বা কুয়োর চারিপাশের বেষ্টনী, খেতের আল প্রভৃতি হচ্ছে ‘পাড়’। পরিধেয় বস্ত্রের প্রান্তভাগ বোঝাতেও ‘পাড়’ শব্দ ব্যবহৃত হয়। এ ‘পাড়’ শব্দটির উৎস সংস্কৃত ‘পট্টি’ থেকে। আবার পায়ের চাপ দেওয়াও পাড়; যেমন ঢেঁকিতে পাড়। পায়ের ‘পাড়’ এসেছে সংস্কৃত ‘পাত্‌’ ধাতু থেকে।

অভিধান অনুসারে নদীর বিপরীত তীর হচ্ছে পার। তাহলে অন্য তীড় পাড়। যদি কেউ বলেন, মমিন নদীর পার দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে, এর অর্থ মমিন নদীর ওপার দিয়ে হেটে যাচ্ছে। আবার যদি বলা হয়, মমিন নদীর পাড় দিয়ে হেটে যাচ্ছে, অর্থ হয় মমিন নদীর এপার দিয়ে হেটে যাচ্ছে। কিন্তু বাংলায় ‘পার’‘পাড়’ শব্দ দুটো এ অর্থে ব্যবহার হয় না। লেখা হয়, এপার থেকে ওপার যাব, কেউ লেখে না এপাড় থেকে ওপার যাব। রবীন্দ্রনাথের ভাষায়, “নদীর এপার কহে ছাড়িয়া নিঃশ্বাস, ওপারেতে সর্বসুখ আমার বিশ্বাস।” ওপরের আলোচনা হতে এটি প্রতীয়মান হয়: নদী বা জলরাশির তীর বোঝাতে ‘পার’ ও ‘পাড়’ শব্দের যে অর্থ দেওয়া হয়েছে তা অস্পষ্ট।

‘সুন্দর হাতের লেখা’ না কি ‘হাতের সুন্দর লেখা’
‘হাতের লেখা’ একটি সমাসবদ্ধ পদরাশি বা (phrase)। যার অর্থ হস্তরেখা। সুতরাং সুন্দর হাতের লেখা অর্থ সুন্দর হস্তরেখা।  জ্যোতিভূষণ চাকীর বাংলা ভাষার ব্যাকরণ [প্রথম প্রকাশ ১৯৯৬, তৃতীয় মুদ্রণ ২০১৩] ২৬৬ পৃষ্ঠায় লিখেছে: “অনেকে টাটকা গোরুর দুধ, সরু জরির পাড় – এই সব পদবন্ধনের জায়গায় গোরুর টাটকা দুধ, জরির সরু পাড় ইত্যাদি লিখতে চান। আমরা মনে করি টাটকা গোরুর দুধ, সরু জরির পাড় ইত্যাদি প্রয়োগই বাগ্‌বিধিসম্মত।”


All Link

বিসিএস প্রিলি থেকে ভাইভা কৃতকার্য কৌশল

ড. মোহাম্মদ আমীনের লেখা বইয়ের তালিকা

বাংলা সাহিত্যবিষয়ক লিংক

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/১

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/২

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন /৩

কীভাবে হলো দেশের নাম

ইউরোপ মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

দৈনন্দিন বিজ্ঞান লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

কীভাবে হলো দেশের নাম

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/১

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/২

বাংলাদেশের তারিখ

ব্যাবহারিক বাংলা বানান সমগ্র : পাঞ্জেরী পবিলেকশন্স লি.

শুদ্ধ বানান চর্চা প্রমিত বাংলা বানান বিধি : বানান শেখা

error: Content is protected !!