পূর্ব-তিমুর বা তিমুর লেস্টে (Timor-Leste) : ইতিহাস ও নামকরণ

কীভাবে হলো দেশের নাম (এশিয়া)

ড. মোহাম্মদ আমীন

পূর্ব-তিমুর বা তিমুর লেস্টে (Timor-Leste)

তিমুর (Timor) ও লেস্টে (Leste) শব্দ সহযোগে তিমুর-লেস্টে নামটি গঠন করা হয়েছে। তাইমুর (Timur) হতে তিমুর (Timor) নামের উদ্ভব। এর অর্থ ইন্দোনেশিয়া ও মালয় এর পূর্বে। পর্তুগিজগণ এর নাম দিয়েছে তিমুর। লেস্টে (Leste) পর্তুগিজ শব্দ। এর অর্থ পূর্ব। সুতরাং তিমুর লেস্টে শব্দের প্রকৃত নাম পূর্ব-পূর্ব। ভূখণ্ডটি একইসঙ্গে ইন্দোনেশিয়া ও মালয়ের পূর্বে তাই এমন বিচিত্র নাম।

তিমুর লেস্টে বা পূর্ব তিমুরের মানচিত্র দেখতে অনেকটা কুমিরের মতো। কেন কুমিরের মতো, সে বিষয় একটি কিংবদন্তি প্রচলিত আছে। অনেকদিন আগে, একটি বয়স্ক কুমির নিজে সাগরের মাঝে ভূখণ্ডে রূপান্তরিত হয়ে দ্বীপটির সৃষ্টি করে। একটি কুমির বিপদের পড়লে একটা মনুষ্য ছেলে কুমিরটাকে সাহায্য করে এবং তার সেবায় কুমিরটি মৃত্যুর হাত থেকে রেহাই পায়। কুমিরটি কালক্রমে বয়স্ক হলে ছেলেটির বসবাসের জন্য সমুদ্রের মাঝে নিজে দ্বীপে পরিণত হয়। কিংবদন্তি মতে, ছেলেটির উত্তরপূরুষগণই তিমুরের আদিবাসী।

তিমুর লেস্টে বা পূর্ব তিমুরের আয়তন ১৫,৪১০ বর্গ কিলোমিটার বা ৫,৭৪৩ বর্গমাইল। তন্মধ্যে জলীয়ভাগ নেই বললেই চলে। ২০১৪ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, দেশটির মোট জনসংখ্যা ১২,০১,৫৪২ এবং জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গকিলোমিটারে ৭৬.২ জন। আয়তনের দিক হতে পূর্বতিমার পৃথিবীর ১৫৯-তম বৃহত্তম দেশ। তবে জনসংখ্যার ও জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় দেশটির অবস্থান যথাক্রমে ১৫৯ ও ১৩২। ২০১২ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে এর জিডিপি (পিপিপি) ২.২৩৪ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিছু আয় ১,৮৪৭ ইউএস ডলার। অন্যদিকে জিডিপি (নমিনাল) ১.২৯৩ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিছু আয় ১,১০৩ ইউএস ডলার। এর মুদ্রার নাম ইউএস ডলার।

পূর্ব তিমুর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার একটি রাষ্ট্র। তিমুর দ্বীপের পূর্ব অর্ধাংশ নিয়ে এটি গঠিত। এর উত্তরে ওয়েটার প্রণালী এবং দক্ষিণে তিমুর সাগর। দ্বীপের পশ্চিম অংশ ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব নুসা তেঙ্গাররা প্রদেশের অন্তর্গত। ১৬শ শতকের শুরু থেকে ১৯৭৫ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত পূর্ব তিমুর পর্তুগিজ উপনিবেশ ছিল। ইন্দোনেশিয়া ১৯৭৬ থেকে ১৯৯৯ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত এটিকে একটি প্রদেশ হিসাবে দাবি করে। ১৯৯৯ খ্রিষ্টাব্দের আগস্ট মাসে পূর্ব তিমুরের জনগণ গণভোটের মাধ্যমে স্বাধীনতার পক্ষে রায় দেয়। পূর্ণ স্বাধীনতা লাভের পূর্ব পর্যন্ত পূর্ব তিমুরকে জাতিসংঘের অধীনে রাখা হয়। ২০০২ খ্রিষ্টাব্দের ২০ মে এটি স্বাধীন প্রজাতন্ত্রে পরিণত হয়। এর নাম রাখা হয় República Democrática de Timor-Leste বা গণপ্রজাতন্ত্রী পূর্ব তিমুর। উত্তর উপকূলে অবস্থিত বন্দর শহর দিলি দেশটির রাজধানী।

তিমুর লিস্টের দাপ্তরিক ভাষা পর্তুগিজ ও টেটাম। তবে ইংরেজি ও ইন্দোনেশিয়ান ভাষাও প্রচলিত আছে। এ দেশের শিক্ষিতের হার খুব কম। তিমুর লেস্টের মুদ্রার নাম ইউএস ডলার। রাজধানী দিলি দেশের প্রধান বন্দর ও বৃহত্তম শহর। অধিকাংশ লোক রোমান ক্যাথলিক। এরপর রয়েছে প্রোটেস্ট্যান্ট মুসলিম, হিন্দু ও বুড্ডিস্ট। ২০০২ খ্রিষ্টাব্দের ২০ মে দেশটি স্বাধীনতা লাভ করে।দেশটি ১৩টি প্রাশাসনিক জোনে বিভক্ত। আবার এগুলো ৬৫টি উপজেলায়, ৪৪৩টি সুকোস এবং ২,৩৩৬টি গ্রাম ও হ্যামলেটসে বিভক্ত। পূর্ব তিমুর পৃথিবীর দরিদ্র দেশের একটি। তবে তিমুর সাগরে তেলের প্রচুর মওজুদ রয়েছে। তেল উত্তোলন করে দেশটি নিজের অবস্থা বদলে নিতে পারে।


মরক্কো (Morocco) : ইতিহাস ও নামকরণ

মরিশাস (Mauritius) : ইতিহাস ও নামকরণ

মোজাম্বিক (Mozambique): ইতিহাস ও নামকরণ

তাইওয়ান (Taiwan) : ইতিহাস ও নামকরণ

তাজিকিস্তান (Tajikistan): ইতিহাস ও নামকরণ

থাইল্যান্ড (Thailand) : ইতিহাস ও নামকরণ

সূত্র:  কীভাবে হলো দেশের নাম, ড. মোহাম্মদ আমীন, পুথিনিলয়, বাংলাবাজার, ঢাকা।

error: Content is protected !!