পৃথিবীর ইতিহাস ও নামকরণ : পৃথিবীর ভবিষ্যৎ আকৃতি ভর গঠন উপাদান

পৃথিবীর ইতিবৃত্ত

ড. মোহাম্মদ আমীন

পৃথিবীর ভবিষ্যৎ

আগামী ১.১ বিলিয়ন বছরের মধ্যে সূর্যের আলোর উজ্জ্বলতা আরো ১০% বৃদ্ধি পেতে পারে এবং আগামী ৩.৫ বিলিয়ন বছরের তা আরও ৪০% বৃদ্ধি পেতে পারে। ৫ বিলিয়ন বছরের মধ্যে সূর্যের আকারের পরিবর্তন হয়ে একটি লোহিত দানবে পরিণত হবে। সূর্যের আকৃতি বৃদ্ধি পাবে প্রায় ১ এইউ বা ১৫,০০,০০,০০০ কি.মি। যা এর বর্তমান পরিধির তুলনায় ২৫০ গুণ বেশি।  লোহিত দানব হিসাবে, সূর্য এই সময় তার ভরের প্রায় ৩০ ভাগ হারিয়ে ফেলবে। ফলে, জোয়ার-ভাটা বিহীন পৃথিবী একটি কক্ষপথে সূর্যকে প্রায় ১.৭ এইউ দূরত্বে প্রদক্ষিণ করবে, এই সময় সূর্য তার সর্বোচ্চ পরিধিতে পরিণত হবে। বেঁচে থাকা বাকি জীব বৈচিত্র্যের বেশিরভাগ সূর্যের বাড়তে থাকা উজ্জ্বলতার কারণে মারা যাবে। তখন উজ্জ্বলতার সর্বোচ্চ সীমা বর্তমান সীমার থেকে ৫,০০০ গুণ বেশি হবে। জোয়ার-ভাটার প্রভাব না থাকায় পৃথিবীর কক্ষপথ এক সময় হ্রাস পাবে এবং সূর্য এটিকে টেনে নিজের দিকে টেনে নিয়ে যাবে। ফলে পৃথিবী সূর্যের পরিমণ্ডলে প্রবেশ করবে এবং এক সময় বাষ্পে পরিণত হবে।

পৃথিবীর আকৃতি

পৃথিবীর আকৃতি অনেকটাই কমলাকার উপগোলকের মতো। ঘূর্ণনের ফলে, পৃথিবীর ভৌগলিক অক্ষ বরাবর এটি চ্যাপ্টা এবং নিরক্ষরেখা বরাবর এটি স্ফীত। নিরক্ষরেখা বরাবর পৃথিবীর ব্যাস মেরু থেকে মেরুর ব্যাসের তুলনায় ৪৩ কিলোমিটার বেশি। তাই, পৃথিবী পৃষ্ঠের উপর পৃথিবীর ভরকেন্দ্র থেকে সর্বোচ্চ দূরত্বটি হলো নিরক্ষরেখার উপর অবস্থিত চিম্বরাজো আগ্নেয়গিরির সর্বোচ্চ শৃঙ্গটি। আদর্শ মাপের উপগোলকের গড় ব্যাস হলো ১২,৭৪২ কিলোমিটার; পৃথিবীর সর্বোচ্চ পরিমাণ বিচ্যুতির মান হল মাত্র ০.১৭%, যা পাওয়া যায় মারিয়ানা খাতে (যা ১০,৯১১ মিটার সমুদ্র পৃষ্ঠতল থেকে নিচে), অন্যদিকে, মাউন্ট এভারেস্টে (৮,৮৪৮ মিটার (২৯,০২৯ ফু) যা সমুদ্র পৃষ্ঠতলের থেকে উঁচুতে) বিচ্যুতির মান ০.১৪%।

পৃথিবীর ভর গঠন উপাদান

পৃথিবীর ভর  প্রায় ৫.৯৭ ী ১০২৪ কিলোগ্রাম (৫,৯৭০ ইয়াটোগ্রাম)। এটি গঠিত যেসব উপাদান দিয়ে গঠিত তন্মধ্যে সর্বাধিক হলো লোহা (৩২.১%), অক্সিজেন (৩০.১%), সিলিকন (১৫.১%), ম্যাগনেসিয়াম (১৩.৯%), সালফার (২.৯%), নিকেল (১.৮%), ক্যালসিয়াম (১.৫%), অ্যালুমিনিয়াম (১.৪%) এবং বাকি ১.২% এর মধ্যে রয়েছে অন্যান্য বিভিন্ন উপাদানের উপস্থিতি। অনুমান করা হয় পৃথিবীর কেন্দ্র অঞ্চলটি প্রধানত (৮৮.৮%) লোহা দ্বারা গঠিত, এর সঙ্গে অল্প পরিমাণে নিকেল (৫.৮%), সালফার (৪.৫%) রয়েছে। অন্যান্য উপাদান রয়েছে ১% এরও কম।


পৃথিবীর ইতিহাস একনজরে : গঠন পরিভ্রমণ নামকরণ সৃষ্টি ও স্থায়িত্ব

পৃথিবীর ইতিহাস ও নামকরণ : চাঁদ চৌম্বকক্ষেত্র বরফ যুগ প্রথম অণুর সন্ধান রোডেনিয়া

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

শুবাচ

 

 

error: Content is protected !!