পেরু (Peru) নামকরণ ও ইতিহাস

ড. মোহাম্মদ আমীন
পেরু (Peru)
পেরু দক্ষিণ আমেরিকার দেশ। এর উত্তরে ইকুয়েডর ও কলম্বিয়া, পূর্বে ব্রাজিল, দক্ষিণপূর্বে বলিভিয়া, দক্ষিণে চিলি এবং পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগর। পেরুর মোট আয়তন ১২,৮৫,২১৬ বর্গকিলোমিটার। তন্মধ্যে জলীয়ভাগ ০.৪১ ভাগ। ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে পেরুর লোকসংখ্যা ৩,১১,৫১,৬৪৩ জন ঘনত্ব ২৩/ বর্গকিলোমিটার। আয়তন বিবেচনায় পেরু পৃথিবীর ২০-তম বৃহত্তম দেশ, কিন্তু জনসংখ্যা বিবেচনায় ৪১-তম। জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় ১৯১তম জনবহুল দেশ। ১৮২১ খ্রিষ্টাব্দের ২৮ শে জুলাই স্পেন সা¤্রাজ্য হতে স্বাধীনতা ঘোষণা করে। ১৮২৪ খ্রিষ্টাব্দের ৯ই ডিসেম্বর দেশটি একীভূত হয় এবং ১৮৬৬ খ্রিষ্টাব্দের ২রা মে স্বাধীনতা স্বীকৃত হয়। পেরুর দাপ্তরিক ভাষা তিনটি এবং সেগুলো হচ্ছে, স্প্যানিশ, কুয়েচুয়া এবং আইমারা । ২০০৭ খ্রিষ্টাব্দের আদমশুমারি মতে পেরুর ৮৪.১% লোক স্পেনিশ ভাষায়, ১৩% লোব কুয়েচা ভাষা এবং ১.৭% লোক আয়মারা ভাষায় কথা বলে। ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে পেরুর জিডিপি (পিপিপি) ৪০৩.৩২২ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিুছ আয় ১২,৬৩৮ ইউএস ডলার। পেরুর মুদ্রার নাম Nuevo sol (PEN) এবং রাজধানী লিমা। পেরু ২৫টি প্রশাসনিক অঞ্চলে বিভক্ত।
পেরুতে ৫৫ রকমের ভুট্টা পাওয়া যায়। হলদে, রক্তিম, সাদা ও কালো ছাড়াও আরও অনেক রঙের ভুটার সমাহারে পেরু ভুটা মৌসুমে রঙিন হয়ে ওঠে। আলু বা পটেটোর আদি জন্মস্থান পেরু। এ দেশে ৩,০০০ ভিন্ন প্রকারের আলু পাওয়া যায়। গর্বিত পেরুবিয়ানরা গান করেন ‘ সই মাস পেরুআনো লা পাপা। আমি আলুর চেয়ে অধিক পেরুবিয়ান। পেরু স্বর্ণ উৎপাদনে পৃথিবীতে ৬ষ্ঠ স্থানের অধিকারী।
১৫৫১ খ্রিষ্টাব্দের মে মাসে প্রতিষ্ঠিত পেরুর স্যান মারকোস বিশ্ববিদ্যালয় আমেরিকার প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়। আধুনিক রকেটের প্রপালশান পদ্ধতির আবিষ্কারক পউলেট পেরুরু অধিবাসী। বিশ্বের সবচেয়ে সেরা ও সুন্দর তুলা পিম ও তানগিস পেরুতে উৎপাদিত হয়। পেরুভিয়ান প্রকৌশলী কার্লোস ভিলাচিচা কোনো মার্কারি ছাড়া বালি হতে স্বর্ণকে পৃথক করার একটি সহজ ও অতি সরল যন্ত্র তৈরি করেন। বায়ুকে দূষণমুক্ত করার কৃত্রিম বৃক্ষের আবিষ্কারকও পেরুভিয়ান।
error: Content is protected !!