প্রবহমান না কি প্রবাহমান, যমজ ও যমজ ফল

ড. মোহাম্মদ আমীন

প্রবহমান না কি প্রবাহমান, যমজ ও যমজ ফল

প্রবহমান না কি প্রবাহমান

বহমান শব্দের সঙ্গে প্র যুক্ত হয়ে গঠিত হয়েছে প্রবহমান। অন্যভাবে, প্রবহমান= প্র+√বহ্+মান। অর্থাৎ, বহ্ ধাতুর সঙ্গে মান যুক্ত হয়ে গঠিত হয়েছে বহমান। তারপর, বহমান-এর আগে প্র যুক্ত হয়ে গঠন করেছে প্রবহমান।
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, প্রবহমান (প্র+√বহ্+মান (শানচ)। এর অর্থ— (বিশেষণে) প্রবাহিত হচ্ছে এমন, চলমান।

সুতরাং, প্রবাহমান বানান ভুল।

মনে রাখুন: এখানে বহমান-এর সঙ্গে প্র যুক্ত হয়েছে।বাহমান -বানানের কোনো শুদ্ধ শব্দ নেই। তাই প্রবাহমানবানানের কোনো শুদ্ধ শব্দ সংস্কৃত ব্যাকরণমতে হতে পারে না।
 
——————————-
প্রবহমান বানানটি আয়ত্তের বিষয়ে ওপরের লেখাগুলো পর্যাপ্ত মনে হলে নিচের লেখাগুলো না-পড়লেও চলবে। কোরোনার যুগে অযথা ঝামেলায় গিয়ে লাভ নেই।
 
স্মর্তব্য: ণত্ববিধান অনুসারে শব্দটির ব্যাকরণগত শুদ্ধ রূপ হয়: ‘প্রবহমাণ’ । তাই গঠনগত দিক থেকে ‘প্রবহমান’ বানানটিও ভুল। কিন্তু অশুদ্ধ হলেও ‘প্রবহমান’ বহুল প্রচলিত এবং নানা অভিধানে স্বীকৃত। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে এটাকে তৎসমে শুদ্ধ বানান বলা হয়েছে। অতএব, প্রবহমান লিখুন, প্রবাহমাননয়।

সূত্র: ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন,  পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি. ড. মোহাম্মদ আমীন।

যমজ ফল

যমজ শব্দের অর্থ একই সঙ্গে একই গর্ভজাত। সে হতে পারে দুজন বা তার বেশি। যত জনই হোক না, একসঙ্গে একই উদর থেকে জন্ম নিলে তাদের যমজ বলা হয়।
একটা ফলের সঙ্গে আর একটা ফলের লেগে যাওয়া পরিণত রূপকে বলা হয় যমজ ফল। ছোটো বেলায় দাদুভাই নিষেধ করতেন খেতে। এমন যমজ ফল খেলে না কি যমজ বাচ্চা হয়। অগ্রাহ্য করে বলতাম, “হোক, আমি খাব।” তারপর বলতেন, “তোমার বাচ্চার হাত-পায়ের আঙ্গুল কলার মতো একত্রে জোড়া লেগে যাবে।” কী সাংঘাতিক! আসলে কী তাই! না, ঠিক নয়। এটি আসলে কুসংস্কার।
 
error: Content is protected !!