ফালতু ফাতরা ফাতর অজগলস্তন

ড. মোহাম্মদ আমীন

ফালতু ফাতরা ফাতর অজগলস্তন

ফালতু: ‘ফালতু /ফাল্‌তু/’ সাজোমায় প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ছুড়ে দেওয়া খুব সাধারণ একটি নেতিবাচক কথা বা গালি। শুধু সাজোমায় নয়, প্রাত্যহিক জীবনেও কথাটির ব্যাপক নেতিবাচক বা বিরক্তি-প্রকাশক ব্যবহার লক্ষণীয়।বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, ‘ফালতু’ শব্দের অর্থ (বিশেষণে) ১. বাড়তি। ২. তুচ্ছ; খারাপ। (বিশেষ্যে) কারাগারে আটক বিশেষ শ্রেণিপ্রাপ্ত (সামাজিক স্বীকৃতির বিবেচনায়) বন্দিকে সহায়তা প্রদান ও জেলখানার বিবিধ কাজে নিয়োজিত ডোরাকাটা পোশাক পরিহিত সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি। অমরকোষ

পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.

অভিধান বলছে, ফালতু অর্থ: তুচ্ছ জিনিস বা ভাঙাচোরা জিনিস বা কোনও কাজে আসে না এমন বস্তু। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান বলছে ‘ফালতু’ আঞ্চলিক শব্দ; বাংলা একাডেমি ব্যবহারিক বাংলা অভিধান বলছে, হিন্দি উৎসের শব্দ। বঙ্গীয় শব্দকোষ অভিধানে হরিচরণ বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, ‘ফালতু’ ‘হিন্দি, মরাঠী’ উৎসের শব্দ। রাজশেখর বসু সম্পাদিত চলন্তিকা: আধুনিক বঙ্গভাষার অভিধান বলছে ‘ফালতু’ ‘হিন্দি, তুর্কি’ উৎসের শব্দ। আবার
উইকিঅভিধানের মতে এটি পোর্তুগিজ উৎসের শব্দ।
অর্থের মতো ‘ফালতু’ শব্দটির উৎসও ফালতু মতের ফাঁদে পড়ে নাজেহাল।

ফাতরা: ‘ফাতরা’ শব্দের আভিধানিক অর্থ অপ্রয়োজনীয়, নিষ্প্রয়োজন, মূল্যহীন, ধাপ্পাবাজ, বাজে, হালকা, খেলো, বাচাল, বিরক্তিকর প্রভৃতি। ‘ফাতরা’ কোনো বিদেশি ভাষা থেকে আসা শব্দ নয়। আমাদের বহুল পরিচিত কলাগাছ থেকে ‘ফাতরা’ শব্দের উৎপত্তি। কলাগাছের পাতা ধরে টান দিলে পাতার সঙ্গে ফড় ফড় শব্দে যে শুকনো বাকল উঠে আসে তাকে ‘ফাতরা’ বলা হয়। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে,  ‘ফালতু’ আঞ্চলিক শব্দ। অর্থ (বিশেষেণে) বাড়তি, তুচ্ছ, খারাপ; (বিশেষ্যে) কারাগারে আটক বিশেষ শ্রেণিপ্রাপ্ত (সামাজিক স্বীকৃতির বিবেচনায়) বন্দিকে সহায়তা প্রদান ও জেলখানার বিবিধ কাজে নিয়োজিত ডোরাকাটা পোশাক পরিহিত সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি। এর আর একটি অর্থ ফাতর।কলাপাতা সংগ্রহের জন্য কলাগাছের পাতা ধরে টান দেওয়া হয় কিন্তু তৎসঙ্গে উঠে আসে অপ্রয়োজনীয় বস্তু ফাতরা। শুধু তাই নয়, এই ‘ফাতরা’ বাচালের মতো অর্থহীন ও ফড় ফড় বিশ্রী শব্দে সৃষ্টি করে।  কলাপাতা একটি প্রয়োজনীয় বস্তু, তবে তার সঙ্গে লেখে থাকা ফাতরা মূল্যহীন। কলাপাতাকে কাজে লাগাতে হলে ‘ফাতরা’ কেটে ফেলতে হয়। ফাতরা পরিষ্কার করা যেমন সময়ক্ষেপক তেমন বিরক্তিকর। ফাতরার এ অপ্রয়োজনীয় অবস্থান ও অবাঞ্ছিত বৈশিষ্ট্যকেই বাংলায় ‘ফাতরা’ শব্দে তুলে ধরা হয়েছে। এ শব্দের মাধ্যমে কলাগাছের ‘ফাতরা’ বড় ভীষণ যত্নে কলাগাছ থেকে আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে নেমে এসেছে।
অজগলস্তন: আজা (ছাগী), গল (গলা) ও স্তন নিয়ে ‘অজাগলস্তন’ শব্দটি গঠিত। অজা বা ছাগীর গলার নিচে যে চামড়া বা মাংসপিণ্ড ঝোলে তা দেখতে অনেকটা স্তনের মতো। তাই ছাগীর গলার নিচে স্তনের মতো ঝুলন্ত মাংসপিণ্ডকে অজাগলস্তন বলা হয়। দেখতে স্তনের মতো হলেও এটি হতে দুধ পাওয়া যায় না। এটি অর্নথক; কোনো উপকার নেই। সেই হেতুতে ‘অজাগলস্তন’ শব্দের আলংকারিক অর্থ হয়েছে (বিশেষণে) নিরর্থক, বাজে, অপ্রয়োজনীয়, অনাবশ্যক।
সূত্র: পৌরাণিক শব্দের উৎস ও ক্রমবিবর্তন, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.

Leave a Comment

You cannot copy content of this page

poodleköpek ilanlarıankara gülüş tasarımıantika alanlarPlak alanlarantika eşya alanlarAntika mobilya alanlarAntika alan yerlerpoodleköpek ilanlarıankara gülüş tasarımıantika alanlarPlak alanlarantika eşya alanlarAntika mobilya alanlarAntika alan yerler
Casibomataşehir escortjojobetbetturkeyCasibomataşehir escortjojobetbetturkey