বাংলায় (প্রাচীনতম) রচিত আদিপুস্তক

প্রাচীনতম বাংলায় রচিত আদিপুস্তক
আধুনিক বাংলা ভাষার পূর্ববর্তী ভাষার নাম ছিল গৌড় অপভ্রংশ এবং গৌড় অপভ্রংশের পূর্ববর্তী ভাষা গৌড়ি প্রাকৃত। গৌড়ি প্রাকৃতের পূর্বে প্রাচীন প্রাচ্য প্রাকৃত ছিল। গৌড় অপভ্রংশ হতে প্রথম মৈথিলি ভাষা পরে উড়িয়া এবং অবশেষে বঙ্গ-কামরূপি ভাষা উৎপন্ন হয়। বঙ্গ-কামরূপি ভাষা দ্বিধাবিভক্ত হয়ে বাংলা ও আসামি ভাষা সৃষ্টি হয়। মাগধি প্রাকৃত-এর প্রাচ্যতর রূপ ছিল গৌড় প্রাকৃত। এ গৌড় প্রাকৃত থেকে গৌড়ি অপভ্রংশের মাধ্যমে খ্রিষ্টীয় সপ্তম শতকে বাংলা ভাষার উৎপত্তি ঘটে। গৌড়ীয় অপ্রভ্রংশ হতে বাংলা ভাষার উৎপত্তি বলে এক সময় বাংলা ভাষাকে গৌড়ীয় ভাষা বলা হত। প্রাচীন প্রাকৃত ভাষা ‘পালি ভাষা’ নামে চিহ্নিত। অতএব আমরা পালিকে বাংলা ভাষার প্রাচীন রূপ বলতে পারি। গৌতম বুদ্ধ রচিত ‘ত্রিপিটক’ প্রাচীনতম বাংলায় রচিত আদিতম পুস্তক। বাংলা লিপি।

দেখুন : শুবাচ/১

শুবাচ/২

শুদ্ধ বানান চর্চা

 

 

error: Content is protected !!