বাংলায় সর্বাধিক— জনপ্রিয়, পঠিত ও উদ্ধৃত আবেগময় পঙ্‌ক্তি; সর্বাধিক পঠিত জনপ্রিয় কবিতা

ড. মোহাম্মদ আমীন

বাংলায় সর্বাধিক— জনপ্রিয়, পঠিত ও উদ্ধৃত আবেগময় পঙ্‌ক্তি; সর্বাধিক পঠিত জনপ্রিয় কবিতা

সংযোগ: https://draminbd.com/বাংলায়-সর্বাধিক-জনপ্রিয়/

শুবাচির প্রশ্ন: বাংলায় সর্বাধিক— পঠিত ও উদ্ধৃত পঙ্‌ক্তি কোনটি?
অনেকে মনে করেন, অনুমান ১৬৫৮ খ্রিষ্টাব্দে কবি আবদুল হাকিম (১৬২০-১৬৯০) রচিত ‘নূরনামা’ কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত বঙ্গবাণী কবিতার নিচের বাণীটি (সপ্তদশ শতক থেকে এ পর্যন্ত সময়ে) বাংলায় সর্বাধিক জনপ্রিয়, পঠিত ও উদ্ধৃত আবেগময় পঙ্‌ক্তি।
“যে সব বঙ্গেত জন্মি হিংসে বঙ্গবাণী।
সে সব কাহার জন্ম নির্ণয় ন জানি।।
দেশী ভাষা বিদ্যার যার মনে ন জুয়ায়
নিজ দেশ ত্যাগী কেন বিদেশ ন জায়।।”
  • বঙ্গবাণী  কবিতার  লাইন চতুষ্টয় বাংলা সাহিত্যের সবচেয়ে বিখ্যাত উদ্ধৃতি।
  • বঙ্গবাণী বাংলা ভাষার প্রশস্তি গেয়ে রচিত প্রথম সুস্পষ্ট বাংলাপ্রেমমূলক কবিতা।
  • বাংলা ভাষা বিরোধীদের বিরুদ্ধে রচিত প্রথম সোচ্চার প্রতিবাদী কবিতা।
  • বাংলা ভাষার প্রশস্তি গেয়ে রচিত সর্বশ্রেষ্ঠ কবিতা।
  • বাংলা ভাষা নিয়ে এর চেয়ে অধিক উদ্ধৃত, আলোচিত ও আবেগময় বাণী আর নেই।
  • এটি বাংলা সাহিত্যের সবচেয়ে শোভন এবং সর্বোত্তম ও সর্বপ্রশংসিত ন্যায্য গালি হিসেবেও খ্যাত।
  • বিস্ময়ের বিষয় , এই কাব্যবাণী এখনো আগের মতো সমান জনপ্রিয়, পঠিত ও উদ্ধৃত।

এ বিষয়ে ভিন্নমত থাকতে পারে এবং তা খুবই স্বাভাবিক। 

এ পর্যন্ত তাঁ লেখা ১০টি কাব্যগ্রন্থের কথা জানা গেছে। নূরনামা তাঁর বিখ্যাত কাব্যগ্রন্থ। অন্যান্য কাব্যগ্রন্থ হলো: 
  • উসুফ-জুলেখা
  • নূরনামা
  • দুররে মজলিশ,
  • চারি মোকাম ভেদ
  • লালমতি
  • লালমোতি সয়ফুল্‌মুল্‌ক
  • নসিহৎনামা
  • কারবালা ও শহরনামা
  • শাহাবুদ্দিননামা
  • হানিফার লড়াই (খণ্ডিত)

মধ্যযুগের প্রখ্যাত কবি আবদুল হাকিম ১৬২০ খ্রিষ্টাব্দে তৎকালীন পর্তুগিজ শাসিত  চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের সুধারামপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। সন্দ্বীপ বর্তমানে চট্টগ্রাম জেলার একটি উপজেলা। তিনি তাঁর রচিত বঙ্গবাণী কবিতার জন্য এখনো বর্তমান যুগের বিখ্যাত কবিদের চেয়েও অনেক জনপ্রিয় ও পরিচিত। তিনি  ফারসি ভাষা থেকেও অনেক কবিতার বঙ্গানুবাদ করেন। তিনি ফার্সি, আরবি ও সংস্কৃৃত ভাষায় পণ্ডিত ছিলেন। জন্মস্থান: ১৬২০ খ্রিষ্টাব্দে পর্তুগিজ শাসনাধীন চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের সুধারামপুর গ্রামে। মাতৃভাষা বাংলা ছাড়াও তিনি ফারসি, আরবি ও সংস্কৃৃত ভাষায় সুপণ্ডিত ছিলেন। আল-কুরআন, আল-হাদিস, ফেকাহ প্রভৃতি শাস্ত্র এবং  রামায়ণ,  মহাভারত ও  পুরাণ সম্পর্কেও তাঁর গভীর পাণ্ডিত্য ছিল। কথিত হয়, তিনি ১৬৯০ খ্রিষ্টাব্দে চট্টগ্রাম জেলার চেরাগি পাহাড়  এলাকায় মারা যান।

কবি আবদুল হাকিমের কাব্যের মূল বিষয় ছিল প্রণয়োপাখ্যান। তন্মধ্যে  ইউসুফ-জুলেখা,  নূরনামা, দুররে মজলিশ, লালমোতি সয়ফুল্‌মুল্‌ক এবং হানিফার লড়াই  খুব জনপ্রিয় ছিল। ইউসুফ-জুলেখা মোল্লা জামি রচিত ফারসি কাব্য ইউসুফ ওয়া জুলায়খা (১৪৮৩ খ্রিষ্টাব্দ ) এবং নূরনামা ফারসি নীতিকাব্য নূরনামাহ্ অবলম্বনে রচিত। ‘যেসব বঙ্গেত জন্মি হিংসে বঙ্গবাণী। সেসব কাহার জন্ম নির্ণয় না জানি।।’ বাংলা ভাষার প্রতি এমন অগাধ শ্রদ্ধাপূর্ণ বক্তব্যের জন্য কবির নূরনামা কাব্যগ্রন্থ বিশেষভাবে প্রশংসিত। দুররে মজলিশ নামের নীতিকাব্যটি ফারসি কবি সাইফুজ জাফর রচিত দুর্‌রুল মজলিশ কাব্যের ভাবানুবাদ।  লালমোতি সয়ফুলমুলক একটি মৌলিক প্রণয়োপাখ্যানমূলক কাব্য। হানিফার লড়াই কাব্যের প্রাপ্ত পান্ডুলিপিটি খণ্ডিত পাওয়া গেছে।

শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
error: Content is protected !!