বাংলা ধ্বনি/ চিহ্নের হিসাব-নিকাশ : অক্ষর ধ্বনি ও বর্ণ

বাংলা ধ্বনি/ চিহ্নের হিসাব-নিকাশ
১. স্বরবর্ণ – ১১টি
২. ব্যঞ্জনবর্ণ – ৩৯ টি
৩. মৌলিক স্বরধ্বনি – ৬ টি (কারও কারও মতে ৭টি)।
৪. দীর্ঘস্বর স্বরধ্বনি – ৭টি
৫. হ্রসস্বর স্বরধ্বনি – ৪ টি
৬. মাত্রাহীন বর্ণ – ১০ টি
৭. অর্ধমাত্রা – ৮ টি
৮. পূর্ণমাত্রা – ৩২ টি
৯. কার – ১০ টি
১০. স্পর্শবর্ণ – ২৫ টি।

বাংলায় অর্ধমাত্রার বর্ণ শেখার নিমোনিক:  ঋণ প্রথা শেখে গাধা ” (অর্ধ-মাত্রার ৮ বর্ণ – ঋ ণ প থ শ খ গ ধ)। 

অক্ষর ও বর্ণ

অক্ষর আর বর্ণ তো এক না। বর্ণ হচ্ছে ধ্বনির নির্দেশক চিহ্ন আর অক্ষর হলো উচ্চারণের একক অর্থাৎ উচ্চারণ করতে যতবার নিশ্বাস নিতে হয় । অ, আ, ক, খ, বর্ণমালাগুলোকে কেন অক্ষর বলে অনেকেই। আমাদের এ দিকে নজর দেওয়া উচিত। অক্ষরের উদাহরণ : বাংলাদেশ= বাং+লা+দেশ্ এখানে বাং, লা, দেশ্ হচ্ছে অক্ষর।

ধ্বনি , বর্ণ , অক্ষর এবং মাত্রা

১) ধ্বনি- মানুষের বাগযন্ত্রের সাহায্যে উচ্চারিত আওয়াজকে ধ্বনি বলে । ২) বর্ণ- বাক প্রত্যঙ্গজাত প্রত্যেকটি ধ্বনি এককের জন্য প্রত্যেক ভাষায়ই লেখার সময় এক একটি প্রতীক বা চিহ্ন (Symbol) ব্যবহৃত হয় । ধ্বনির এ প্রতীক বা চিহ্নকে বলে বর্ণ । যেমন – অ আ ই ঈ ক খ গ । ৩) অক্ষর – বাগযন্ত্রের স্বল্পতম প্রচেষ্টায় যে ধ্বনি বা ধ্বনিগুচ্ছ উচ্চারিত হয় তাকে অক্ষর বলে । উচ্চারণসাধ্য হ্রস্বতম ধ্বনি অক্ষর হিসেবে পরিচিত ; অর্থাৎ স্বরধ্বনি অথবা স্বরধ্বনির সাহায্যে উচ্চারিত ক্ষুদ্রতম শব্দ বা শব্দাংশই হচ্ছে অক্ষর (Syllable) যেমন – ‘কম্পন’ শব্দটিতে দুটি অক্ষর – ‘কম’ ও ‘পন’ । ৪) মাত্রা – বর্ণের মাথায় যে রেখা টানা হয় তাকে বলে মাত্রা । যেমন ক (পূর্ণমাত্রা) খ (অর্ধমাত্রা) ঙ (মাত্রাহীন) । এ হলো বর্ণের মাত্রা । বাংলা বর্ণমালার ৫০ টি বর্ণের মধ্যে পূর্ণমাত্রার বর্ণ ৩২ টি , অর্ধমাত্রার ৮ টি আর মাত্রাহীন বর্ণ রয়েছে ১০ টি ।


মোচ্চারিত শব্দ : শব্দের বানান : শ ষ স /১

সমোচ্চারিত শব্দ : শব্দের বানান : ষ শ স /২

সমোচ্চারিত শব্দ : শব্দের বানান : ষ শ স /৩

বুদ্ধদেব বসুর শোন নদীর কাহিনি

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন : আদেশ বনাম নির্দেশ

নদ ও নদীর আসল পার্থক্য ও নামকরণের প্রকৃত কারণ

যমক : শব্দ য়মক অনুপ্রাস : দাশরথ রায়ের যমক

যমক : শব্দ য়মক অনুপ্রাস : ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের যমক

বঙ্কিমচন্দ্রের কমলাকান্ত : কৌতুক আর কৌতুক : কৌতুকে সয়লাব

অর্ধচন্দ্র : অর্ধেক চাঁদ

শালাশালী পাঠশালা ছাগলশালা কর্মশালা

আলুর দোষ: ধর্ষকেরা বেশি আলু খায় বুঝি

বাংলা পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন ভাষা

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন : অভ্যন্তরীণ আভ্যন্তরীণ আভ্যন্তর আভ্যন্তরিক 

বাংলা বানান : হরদম ভুল এবং ভুল থেকে ফুল

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন : ইক প্রত্যয় : আনুষ্ঠানিক কিন্তু অনুভূমিক কেন

বানান সূত্র ও সন্ধি : শুদ্ধ বানানের ষড়সূত্র

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/১

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/২

কীভাবে হলো দেশের নাম

 

error: Content is protected !!