বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন : দরুন বনাম দারুণ : কী দারুণ দেখতে – – –

ড. মোহাম্মদ আমীন

দরুন বনাম দারুণ
বাক্যে বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত সংস্কৃত ‘দারুণ’ শব্দের অর্থ অত্যন্ত, অতিশয়, মনোহর, খুব সুন্দর, হৃদয়গ্রাহী, চমৎকার; ভয়ানক, ভয়ঙ্কর, নিষ্ঠুর, মর্মান্তিক ইত্যাদি। বাংলায় যে কয়টি বিপরীত অর্থধারক শব্দ রয়েছে তন্মধ্যে ‘দারুণ’ অনত্যম। ‘দারুণ’ পদটি বাক্যে ভালো ও খারাপ উভয় অর্থ প্রকাশেই ব্যবহৃত হয়। যেমন:  “মেয়েটি কী দারুণ!” এ বাক্যে ‘দারুণ’ শব্দের অর্থ হতে পারে— (১) মেয়েটি খুবই চমৎকার। আবার হতে পারে (২) মেয়েটি খুবই ভয়ানক, খুবই নিষ্ঠুর। ঠিক তেমনি, “কী দারুণ দেখতে!” বাক্যে ‘দারুণ’ শব্দের অর্থ হতে পারে— (১) দেখার বিষয়টি খুবই সুন্দর, অথবা (২)  দেখার বিষয়টি অত্যন্ত মর্মান্তিক।

তবে ‘দারুণ’ শব্দের পর বিশেষ্য সম্পর্কিত  বিবরণ থাকলে ‘দারুণ’ শব্দের অর্থ দারুণভাবে পরিষ্কার হয়ে যায়। যেমন: “কী দারুণ দেখতে, চোখ দুটো টানা টানা, যেন শুধু কাছে বলে আসতে; / কী দারুণ দেখতে ঠোঁট দুটো ভেজা ভেজা, যেন শুধু বলে ভালোবাসতে।” গানের পঙ্‌ক্তি-দুটোর  উভয় ‘দারুণ’ দিয়ে কেবল চমৎকার, সুন্দর, মনোহর প্রকাশ করা হয়েছে। ‘দারুণ’ তৎসম শব্দ। তাই বানানে ণত্ব-বিধান প্রযোজ্য। এজন্য ণত্ববিধি অনুসারে ‘দারুণ’ বানানে ‘মূর্ধন্য-ণ’। 

‘দরুন’ শব্দটি ফারসি হতে বাংলায় এসেছে। বাক্যে অব্যয় হিসেবে ব্যবহৃত ফারসি ‘দরুন’ শব্দের অর্থ  কারণ, জন্য, নিমিত্ত, হেতু ইত্যাদি। বিদেশি বলে এ শব্দে ণত্ব-বিধান প্রযোজ্য নয়। তাই ‘দরুন’ বানানে ‘দন্ত্য-ন’। যেমন : পথচারীর অসর্তকতার দরুন রাস্তায় দুর্ঘটনার হার বেড়ে গেছে। ‘দারুণ’ ও ‘দরুন’ শব্দের বানানে অনেকে প্রায়শ ভুল করে ফেলেন। ভুল যাতে না হয় সে বিষয়ে সতর্ক থাকা আবশ্যক।

দন্ত বনাম দন্ত্য
‘দন্ত’ শব্দের অর্থ দাঁত। বাক্যে শব্দটি বিশেষ্য পদ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। অন্যদিকে, বাক্যে বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত ‘দন্ত্য’ অর্থ দাঁতসম্বন্ধীয় বা দাঁতের সাহায্যে উচ্চারিত। ইংরেজিতে যাকে বলা হয় dental.


ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ সমগ্র লিংক

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

শুদ্ধ বানান চর্চা /৪

 

error: Content is protected !!