বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন : দিন দীন আর দ্বীন 

ড. মোহাম্মদ আমীন

“ইসলাম আমার দীন।”
ইসলাম “দীন” হবে কেন? “আপনি দীন মানে কি জানেন?”
তিনি বললেন, ধর্ম।
বললাম, বাক্যে বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত সংস্কৃত ‘দীন’ শব্দের অর্থ দরিদ্র, করুণ, নিঃস্ব, নীচ, অনুদার এবং বিশেষ্যে দরিদ্র বা দুঃখী ব্যক্তি। সহজ কথায় এবং আপনার ভাষায় ফকিন্নি। আপনার ধর্ম ইসলাম, আমারও। ইসলাম দরিদ্র হবে কেন, কেন হবে করুণ, নিঃস্ব, নীচ এবং অনুদার? নিজের ধর্মকে এত ছোটো মনে করা আদৌ কোনো ধার্মিকের লক্ষণ নয়।
তিনি রেগে গিয়ে “দীন মানে ধর্ম” বলেই পাশের দেরাজ থেকে বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান নিয়ে পাতা উলটাতে শুরু করলেন। কয়েক মিনিট পর মুখটা ফ্যাকাশে করে হতাশ গলায় বললেন, তাই তো, দীন মানে তো ফকিন্নি।
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে দিন শব্দের দুটি পৃথক ভূক্তি রয়েছে।প্রথম ভুক্তিমতে, ‘দিন’ যখন সংস্কৃত; তখন শব্দটির অর্থ সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত সময়, দিবস, দিবা, চব্বিশ ঘণ্টাকাল, অহোরাত্র, আয়ু (দিন আমার ফুরিয়ে এল।) সময় (দিন থাকতে চলে এসো, দেরি করো না।), কাল (সুদিন) প্রভৃতি। দ্বিতীয় ভূক্তিমতে, ‘দিন’ যখন আরবি, তখন শব্দটির অর্থ ধর্ম। যেমন : তিনি দিনদার মানুষ। ইসলাম আমার দিন। হিন্দু পৃথিবীর প্রাচীনতম দিন।
অন্যদিকে, বাক্যে বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত সংস্কৃত ‘দীন’ শব্দের অর্থ দরিদ্র, করুণ, নিঃস্ব, নীচ, অনুদার এবং বিশেষ্যে দরিদ্র বা দুঃখী ব্যক্তি।
অতএব, ভুলেও বলবেন না “ইসলাম আমার দীন”, বলুন, “ইসলাম আমার দিন”।
‘দিন’ আলোর স্ফুরণ আর সূর্যের কিরণ,
‘দীন’ হীনতার লজ্জা, ব্যর্থতার ক্রন্দন।
অনেকে লেখেন, দ্বীন। এটি ভুল শব্দ এবং অপ্রয়োজনীয়। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে ‘দ্বীন’ শব্দটি আমার চোখে পড়েনি। হয়তো শব্দটি অপ্রয়োজনীয় বিবেচনায় অভিধানে স্থান দেওয়া হয়নি।
—————————————————————————————————————————————————————-
error: Content is protected !!