বাংলা শব্দের পৌরাণিক উৎস সম্পূর্ণ বই, এক মলাটে বাংলা শব্দের পৌরাণিক উৎস পিডিএফ

ড. মোহাম্মদ আমীন

বাংলা শব্দের পৌরাণিক উৎস

পঞ্চম অধ্যায়
এ ঐ ও ঔ

একচ্ছত্র
‘একচ্ছত্র’ শব্দের আভিধানিক অর্থ প্রবল প্রতাপ, প্রভাবশালী, একাধিপত্য প্রভৃতি। এর ব্যুৎপত্তিগত অর্থ হলো যাতে একের ছত্র রয়েছে। যার প্রায়োগিক ও আভিধানিক অর্থ যাতে কেবল একজন রাজার অধিকার বিদ্যমান। অন্য কথায় বলা যায়, ছত্র মানে ছাতা। সুতরাং একচ্ছত্র মানে একটা ছাতা। এ ছাতা বা ছত্রের সঙ্গে প্রাচীনকালে ব্যবহৃত ছত্রের ইতিহাস-ঐতিহ্য অবিচ্ছেদ্যভাবে জড়িত। একসময় ছাতা ছিল ক্ষমতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক। রাজা বা সম্রাটগণই তখন ছাতা ব্যবহার করতেন। ফলে রাজশক্তি ও ছাতা সমার্থক বিবেচিত হতো। রাজশক্তির প্রতীক ছিল ছাতা এবং একচ্ছত্র দ্বারা কোনো রাজশক্তির একক প্রভাব বা আধিপত্যকে প্রকাশ করা হতো। একচ্ছত্র শব্দের বর্তমান প্রচলিত অর্থ ঠিক আগের মতো না-হলেও মূল অর্থ কিন্তু অভিন্ন রয়ে গেছে। আগে শব্দটি দিয়ে রাজাদের একক আধিপত্য প্রকাশ করা হতো। এখন শব্দটি কোনো স্থান বা বিষয়ে কারও প্রবল প্রতাপ, এককাধিপত্য প্রভৃতি প্রকাশের জন্য ব্যবহার করা হয়। যেমন বাংলা সাহিত্যে রবীন্দ্রনাথের একচ্ছত্র প্রভাব রয়েছে। রাষ্ট্রপতি-শাসিত দেশে রাষ্ট্রপতিই নির্বাহী ক্ষমতার একচ্ছত্র অধিকারী।

একাডেমি
একাডেমি বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত একটি বহুল প্রচলিত শব্দ। সাহিত্য, শিল্প, বিজ্ঞান, সংস্কৃতি, গবেষণা প্রভৃতির চর্চা ও গবেষণাকেন্দ্র প্রভৃতি প্রকাশের জন্য একাডেমি শব্দটি ব্যবহার করা হয়। গ্রিক একাডেমিয়া শব্দ থেকে একাডেমি শব্দের উৎপত্তি। গ্রিক কিংবদন্তীর বিখ্যাত চরিত্র বিবেকবান ও জাতীয় বীর হিসাবে সর্বমান্য একাডেমস্-এর সম্মানে তাঁরই নামানুসারে প্রতিষ্ঠিত বিশাল একটি জলপাই বাগানের নাম ছিল ‘একাডেমিয়া’। একাডেমিয়া ছিল নিরপেক্ষতা, বিবেক, শান্তি ও সমঝোতার প্রতীক। এ একাডেমিয়া (অশধফবসরধ) হতে বাংলা একাডেমির উৎপত্তি। পৃথিবীর প্রায় প্রত্যেক দেশে একাডেমি শব্দটি অভিন্ন অর্থে প্রচলিত। সে হিসাবে এটি একটি সর্বভাষিক শব্দ। তবে একাডেমিয়া শব্দটির বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তার একটি ঐতিহাসিক কারণ রয়েছে। খ্রিস্টপূর্ব ৩৮৭ অব্দে গ্রিক দার্শনিক প্লেটো এথেন্সের এক জলপাই বাগানের পাশে দর্শন চর্চার জন্য ‘একাডেমিয়া’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেন যা একাডেমিয়া শব্দটিকে ক্রমশ বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় করে তোলে।

একুশ বনাম একুশে
অনেকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস/শহিদ দিবস বোঝাতে একুশ লেখেন। এটি কি যথার্থ? একুশ মানে ২১; এটি একটি সংখ্যা; কিন্তু একুশে মানে কোনো মাসের নির্দিষ্ট তারিখ। ভাষা-দিবসের তারিখটি বাঙালির নিকট এতই পরিচিত যে, একুশে বললেই একুশে ফেব্র“য়ারিই ভেসে ওঠে। কিন্তু একুশ একটি সংখ্যা মাত্র। সুতরাং একুশ আর একুশের তফাত রয়েছে। ভাষা-দিবসের কথা প্রকাশে লিখুন একুশে, একুশ লিখবেন না।

এবং
বাংলা ভাষায় বহুল প্রচলিত এ শব্দটির অর্থ আর, অধিকন্তু, এমন, আরও প্রভৃতি। ‘এবং’ শব্দটি সংস্কৃত হতে আগত। ‘এবং’ শব্দের সমার্থক শব্দ ‘ও’ ফারসি, এবং ‘আর’ হিন্দি শব্দ। ‘এবং’ একটি অব্যয় পদ। এক বাক্যের সঙ্গে আর এক বাক্যের বা বাক্যাংশের সংযোগ প্রকাশে ‘এবং’ শব্দটি ব্যবহৃত হয়। অবশ্য অনেক সময় নিশ্চয়তা প্রকাশেও ‘এবং’ শব্দের ব্যবহার দেখা যায়। যেমন আমি যাব এবং যাবই। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে ‘এবং’ শব্দের মূল অর্থ : প্রকার, এ প্রকার, এ প্রকারের, উপমা, সদৃশ্য, অনুরূপ প্রভৃতি। কিন্তু বাংলায় এসে শব্দটি এবংবিধ/এবম্প্রকার প্রভৃতি অর্থ ধারণ করে। তবে এখন ‘এবং’ শব্দটি তার মূল ও আদি অর্থ হারিয়ে সম্পূর্ণ অন্য অর্থ ধারণ করে দিব্যি বাংলা ভাষায় রাজত্ব করে চলছে প্রবল প্রতাপে।

এলাহি কাণ্ড
‘এলাহি কাণ্ড’ বাগ্ভঙ্গিটির অর্থ বিরাট ব্যাপার, মহা ধুমধাম প্রভৃতি। আরবি ‘ইলাহি’ শব্দের বাংলা রূপ এলাহি। বাঙালি মুসলমান সমাজে চিঠিপত্র, হিসাবের খাতাপত্র প্রভৃতির শীর্ষে একসময় ‘এলাহি ভরসা’ লেখার ব্যাপক প্রচলন ছিল। এখনও লেখা হয়। আরবি ‘ইলাহি’ শব্দের অর্থ আমার আল্লাহ্। ‘ইলাহ্’ শব্দ থেকে ইলাহি। ‘ইলাহ্’ শব্দের অর্থ উপাস্য অর্থাৎ আল্লাহ্। আরবি ‘ইলাহি’ ও হিন্দি ‘ভরসা’ মিলে তৈরি হয়েছে শুভ-কামনা-সূচক শব্দ ইলাহি ভরসা। এলাহি ভরসার ন্যায় তৈরি হয়েছে এলাহি কাণ্ড, এলাহি কারখানা, এলাহি ব্যাপার প্রভৃতি বাগ্ভঙ্গি। তবে শব্দগুলোতে এলাহি বা ভরসার কোনো অস্তিত্ব বিন্দুমাত্র নেই। বরং যে আয়োজনটা বিশাল কিংবা যা করা সাধ্যাতীত সে ব্যাপারগুলোই এখানে ‘এলাহি’ শব্দ দিয়ে প্রকাশ পেয়েছে। প্রকৃতপক্ষে ‘এলাহি কাণ্ড’ বাগ্ভঙ্গিতে এলাহি শব্দটি উপাস্য অর্থের পরিবর্তে বিশাল বা অসাধ্য হয়ে উঠেছে। এটি একটি মনস্তাত্ত্বিক পরিবর্তন। হিন্দুদের অবতার রাম বা রাঘব-এর ক্ষেত্রেও এমন দেখা যায়। যেমন রামধনু, রামছাগল, রামদা, রাঘববোয়াল প্রভৃতি। বাংলার বিভিন্ন শব্দে তারা দেবত্ব, বীরত্ব, মহত্ত্ব প্রভৃতি হারিয়ে বিশালত্বের প্রতীক হয়ে উঠেছে এ সকল শব্দে।

 

শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/

error: Content is protected !!