বিলাত এল যেভাবে: বিলাত বিলাতি বিলিতি

ড. মোহাম্মদ আমীন
আধুনিক বাংলা অভিধানে পৃথক ভুক্তিতে দুটি বিলাত দেখা যায়। একটি আরবি উৎসের বিলাত ( وِلاَيَة/Wiliaat) এবং আরেকটি তদ্ভব বা খাঁটি বাংলা বিলাত। আরবি উৎসের বিলাত অর্থ (বিশেষ্যে):  ইংল্যান্ড; ইউরোপ; বিদেশ।  অন্যদিকে, সংস্কৃত বিলয় থেকে উদ্ভূত বিলাত অর্থ: অনাদায়ি টাকা। তবে, আমাদের আলোচ্য বিষয় আরবি উৎসের বিলাত।
 ইংল্যান্ড, ইউরোপ বা বিদেশ অর্থদ্যোতিত আরবি  ‘বিলাত ( وِلاَيَة)’ শব্দটি  উপমহাদেশে  ইংল্যান্ড অর্থে সমধিক ব্যবহৃত হতো। যেমন: বিলাত ফেরত, বিলাতি বেগুন, বিলাতি মদ, বিলাতি মেম, বিলাতি যন্ত্র ইত্যাদি।  ইংল্যান্ড অর্থে বিলাত শব্দটা যখন বহুল প্রচলিত ছিল তখন বাঙালির কাছে ‘বিলাত’ বলতে শুধু ইংল্যান্ড নয়, পুরো ইউরোপকেই বোঝাত। এখন অবশ্য,  ‘বিলাত’ শব্দটি আগের মতো বহুল প্রচলিত নয়। ইংল্যান্ডকেও আর বিলাত বলা হয় না, ইংল্যান্ডই বলা হয়।

তবে, বাঙালির বিলাত শব্দটি বিলাত বা ইংল্যান্ড হতে আসেনি। এসেছে আরবি হতে।  আরবি: وِلاَيَة বা ফার্সি: ولایت (ওয়েলায়ত) শব্দটি উর্দুতে Vilayet নামে ভুক্ত হয়। অর্থাৎ আরবি ‘ওয়ালাত (وِلاَيَة)’ শব্দটি ফারসি, উর্দু ও হিন্দি ভাষায় আরবি ‘ওয়াও’ বর্ণের উচ্চারণজনিত কারণে বিলায়ত হয়ে যায়।  বাংলা ভাষায়

ড. মোহাম্মদ আমীন

এসে ‘বিলায়ত’ আরও বিকৃত হয়ে ‘বিলাত’ রূপ ধারণ করে। আরবি ওয়ালাত শব্দের মূল অর্থ ওয়ালি বা গভর্নর-শাসিত দেশ বা প্রদেশ। এক সময় মিশর, ইরান-সহ অনেক দেশ ছিল আরবদের ‘ওয়ালাত’। শব্দটি বিদেশ অর্থেও ব্যবহৃত হতো। তুর্কি সাম্রাজ্য বিভিন্ন Vilayet এ বিভক্ত ছিল। এই Vilayet থেকে বাংলা ভাষায় বিলাত তথা বিলিতির জন্ম যা অবাঙালিদের মুখে উচ্চারিত ‘ বিলাইতি ‘। ভারতের মুসলমান রাজত্বের প্রথম দিকে ভারতীয় মুসলমানগণ পারস্য ও মধ্য এশিয়ার দেশসমূহকে ‘বিলায়ত’ বলত। তাদের কাছে ওইসব এলাকার অধিবাসীরা ছিল আহলে বিলায়ত বা বিদেশি লোক।

ভারতে ব্রিটিশ শাসনামলে ব্রিটিশ প্রভাবের মূলত ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর কারণে আকস্মিকভাবে শব্দটির অর্থ পাল্টে যায় এবং বিলায়ত ভারতীয়দের কাছে হয়ে পড়ে ইংল্যান্ড বা ইউরোপ। কিন্তু কেন এমন হলো?
সপ্তদশ শতক হতে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর অনেক সদস্য ব্রিটিশ বোঝাতে “Old blighty” বা “Blighty” নামের একটি  অপশব্দের ( Slang word) ব্যবহার করতে শুরু করে।  বুয়র যুদ্ধ, প্রথম বিশ্বযুদ্ধ এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অপশব্দটি  ইংরেজ সেনাবাহিনীতে আরও জনপ্রিয় হয়ে পড়ে। প্রশ্ন  আসতে পারে, কেন নিজের দেশ সম্পর্কে ব্রিটিশ বাহিনীতে এই অপশব্দটি চালু হয়? পূর্বে  উল্লেখ করা হয়েছে, বিলাত শব্দের একটি অর্থ বিদেশ।  ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর সদস্যদের প্রায় সময় নিজের দেশে ছেড়ে অধিকাংশ সময় বিদেশে অবস্থান করতে হতো। এটি তাদের ভালো লাগত না। কিন্তু থাকতে বাধ্য হতো। তাই ইংল্যান্ডের বাইরে থাকুক বা ইংল্যান্ডের নিজের দেশকে বা নিজেদের বাহিনীকে আরবি উৎসের শব্দটিকে বিকৃত করে “Old blighty” বা “Blighty” নামে পরিচয় দিয়ে বিদেশে অবস্থানের বিরুদ্ধে তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করত।

উপমহাদেশে বিলাত শব্দের ব্যবহার: বাংলা একাডেমির বাংলা ভাষার বিবর্তনমূলক অভিধান অনুযায়ী কৃষ্ণদাস কবিরাজ ১৫৮০ খৃষ্টাব্দে শব্দটা প্রথম সাহিত্যে ব্যবহার করেন- “রাজ-বিলাত সাধি খায় নাহি রাজভয়।” ১৭৭৩ খ্রিষ্টাব্দে মেয়র্স কোর্টে ‘বিলাত’ ব্যবহার হয় ‘বিনিয়োগ করা মূলধন’ বোঝাতে।

প্রকাশক: পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.

১৯৮৯ খ্রিষ্টাব্দে ক্যালকাটা গেজেটে শব্দটা ‘ইয়োরোপ’ বোঝাতে  ১৭৯২ খ্রিষ্টাব্দে ‘ইংল্যান্ড’ বোঝাতে ব্যবহার করা হয়েছে।  ইংল্যান্ড থেকে সদ্য ফেরত আসা ব্যক্তিকে বিংশ শতকেও বলা হতো বিলাতফেরত।  বিভিন্ন লেখকের লেখাতেও শব্দটির ব্যবহার লক্ষণীয়। যেমন: “বিলাতি বহুত চিজ বেস কিম্মতের।” – রামপ্রসাদ সেন । ” তাঁহারা বিলাতি ছাড়া কিছুই ব্যবহার করেন না। ” – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (১৮৮৩)। এছাড়া বিলাত শব্দটি নিয়ে গঠিত হয়েছে অনেক জনপ্রিয় শব্দ। যেমন: বিলিতি বোল (ইংরেজি কথা), বিলিতি কুল (উৎকৃষ্টজাতের কুল বা বরই), বিলিতি বেগুন ( টম্যাটো ), বিলিতি মাটি (সিমেন্ট), বিলাতি অক্ষর(ইংরেজি বর্ণ), বিলিতি মদ (বিদেশি মদ), বিলাতি কাপড় প্রভৃতি। 

বিলাত/বিলেত/বিলায়েত শব্দটি শব্দটি প্রধানত ইংল্যান্ড ও ইউরোপ বোঝাতে ব্যবহৃত  হলেও দেশে  উৎপাদিত  উচ্চমানের বস্তু বোঝাতেও তার আগে শব্দটি লাগিয়ে দেওয়া হতো। যেমন:  ‘বিলিতি বেগুন (টম্যাটে)’, ‘বিলিতি জল (মদ) প্রভৃতি। কারো সাহেবসুলভ আচরণকেও  বলা হতো, বিলাতিয়ানা। 
বিলাত, বিলাতি ও বিলিতি  শব্দের ব্যুৎপত্তি এবং আভিধানিক অর্থ নিচে দেওয়া হলো:
বিলাত: বি. ১ ইংল্যান্ড (বিলাতফেরত)। ২ ইউরোপ। ৩ বিদেশ।, বি. অনাদায়ি টাকা।, বি. অনাদায় (বিলাত বাকি)। [আ. ফা. বিলায়ত্]।, বি. 1 ইংল্যাণ্ড; 2 ইয়োরোপ। [আ. ফা. বিলায়াত্]। ̃ ফেরত, ̃ ফেরতা বিণ. ইংল্যাণ্ড বা ইয়োরোপ ঘুরে এসেছে এমন (বিলাতফেরত ডাক্তার)। বিলাতি, (কথ্য) বিলিতি বিণ. বিলাতে উত্পন্ন বা প্রচলিত; বিলাত থেকে আমদানি হয়ে এদেশে প্রচলিত। বিলাতি-য়ানা বি. বিলাতি চালচলন। বিলাতি বেগুন বি. টম্যাটো। বিলাতি মাটি বি. সিমেণ্ট।
বিলাতি:বিণ. ১ বিলাতে উৎপাদিত। ২ বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়েছে এমন ।, বি. বাংলাদেশ-সহ পৃথিবীর প্রায় সব দেশে ব্যাপকভাবে চাষ করা হয়। এমন মসৃণ খাঁজযুক্ত রসালে উপবৃত্তাকার (কাঁচা অবস্থায় সবুজাভ ও পাকা অবস্থায় লালচে) শীতকালীন সবজি বা তার শাখান্বিত লোমশ বর্ষজীবী বীরুৎশ্রেণির উদ্ভিদ (আনি, মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকা), টম্যাটো, টক বেগুন , tomato।, বি. নির্মাণকাজে ব্যবহৃত বিশেষ প্রক্রিয়ায় উৎপন্ন অগ্নিপক চুনাপাথর প্রভৃতির চূর্ণ যা জলের সংমিশ্রণে জমাট বেঁধে পাথরের মতো শক্ত হয়ে যায়, সিমেন্ট।
বিলিতি: বিণ. “বিলাতি-র আঞ্চলিক রূপ।
সূত্র: বাংলা শব্দের পৌরাণিক শব্দের উৎস, ড. মোহাম্মদ আমীন, পুথিনিলয়।
[উৎস : (১) হরেন্দ্রচন্দ্র পাল : বাঙলা সাহিত্যে আরবী-ফারসী শব্দ, ঢাকা, বাঙলা ও সংস্কৃত বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে রেনেসাঁস প্রিন্টার্স, ১৯৬৭
(২) হরিচরণ বন্দোপাধ্যায়, বঙ্গীয় শব্দকোষ, নতুন দিল্লি, সাহিত্য অকাদেমী, ১৯৬৬]
error: Content is protected !!