ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র : গণ্ড নিয়ে গন্ডগোল

ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র
ড. মোহাম্মদ আমীন
গন্ডগোল নিয়ে গন্ডগোল 
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত ‘গন্ডগোল’ শব্দের অর্থ গোলমাল, বিশৃঙ্খল, বিবাদ, ঝগড়া, কোলাহল প্রভৃতি। একই অভিধানমতে, হিন্দি ‘ঠান্ডা’ (ঠ-য়ে দন্ত্যন) শব্দের অর্থ বিশেষণে—শীতল, স্নিগ্ধ, শান্ত, শীতলকারী এবং বিশেষ্যে হিম, শৈত্য প্রভৃতি।
 
‘ঠান্ডা’ তৎসম শব্দ নয়, তাই শব্দটির বানান নিয়ে তেমন গন্ডগোল নেই।কেননা, অতৎসম শব্দের বানানে মূর্ধন্য-ণ ব্যবহার হয় না। তবে ‘গন্ডগোল’ শব্দের অর্থের মতো এর বানান নিয়েও যথেষ্ট ‘গন্ডগোল’ আছে। সংস্কৃত ‘গণ্ড’ এবং ফারসি ‘গোল’ শব্দের মিলনে গন্ডগোল শব্দটি জন্মগ্রহণ করেছে। সংস্কৃত ‘গণ্ড(স. গম্+ড)-এর ফারসি গোল (ফা. গল ﻏﻝ) শব্দের সঙ্গে জাত-বেজাত বিবেচনাহীন অসম মিলনই ‘গন্ডগোল’ শব্দের গন্ডগোলের মূল কারণ।
অথচ গণ্ডকূপ, গণ্ডগাত্র, গণ্ডগ্রাম, গণ্ডদেশ, গণ্ডমালা, গণ্ডমূর্খ, গণ্ডশিলা, গণ্ডস্থল প্রভৃতি শব্দ নিয়ে কোনো গন্ডগোল নেই— সবটাই সংস্কৃত শব্দ। কিন্তু গন্ডগোল অসংস্কৃত। সংস্কৃত ‘গণ্ড’ ফারসি ‘ গোল’-এর সঙ্গে মিলিত হওয়ার পর সৃষ্ট ‘গন্ডগোল’ উচ্চবংশীয় বলে পরিচিত ‘মূর্ধন্য-ণ’ হারিয়ে এবং তৎসমত্ব চ্যুত হয়ে গন্ডগোলের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।
ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
error: Content is protected !!