ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র: শব্দের আদিতে /ব্য/ ও /ব্যা/ এর প্রয়োগ

শব্দের আদিতে /ব্য/ ও /ব্যা/ এর প্রয়োগ
ড. মোহাম্মদ আমীন
১. শব্দের আদিতে /ব্য/ এর প্রয়োগ (বি+অ= ব্য)
/বি-/ উপসর্গের পর /অ/-বর্ণ দিয়ে শুরু শব্দ সন্ধিবদ্ধ হয়ে /ব্য/ হয়। যেমন: বি + অগ্র = ব্যগ্র; বি +অঙ্গ = ব্যঙ্গ। তেমনি: ব্যক্ত, ব্যক্তি, ব্যঙ্গাত্মক, ব্যঙ্গোক্তি, ব্যজন, ব্যঞ্জন, ব্যঞ্জনা, ব্যতিক্রম,ব্যতিব্যস্ত, ব্যতিরেক, ব্যতিহার, ব্যতীত, ব্যত্যয়, ব্যপদেশ, ব্যবচ্ছিন্ন, ব্যবচ্ছেদ, ব্যবধান, ব্যবসায়ী, ব্যবস্থা, ব্যবস্থাপক, ব্যবহার, ব্যবহারিক, ব্যবহৃত, ব্যভিচার, ব্যয়, ব্যর্থ, ব্যষ্টি, ব্যস্ত।
ব্যতিক্রম: /বি-/ উপসর্গ দিয়ে শুরু হয়নি এমন কিছু শব্দের বানানের শুরুতে /ব্য/ দেখা যায়। যেমন: ব্যথা, ব্যথিত, ব্যথী।
২. শব্দের আদিতে /ব্যা / এর প্রয়োগ (বি+আ= ব্যা)
/বি-/ উপসর্গের পর /আ/ বর্ণ দিয়ে শুরু শব্দ সন্ধিবদ্ধ হলে /ব্যা/ হয়। যেমন: বি+ আকুল = ব্যাকুল; বি+ আঘাত = ব্যাঘাত। তেমনি: ব্যাকরণ, ব্যাখ্যা, ব্যাদান, ব্যাধি, ব্যাপক, ব্যাপার, ব্যাপী, ব্যাপৃত, ব্যাপক, ব্যাপ্ত, ব্যাপ্তি, ব্যায়াম, ব্যাহত।
ব্যতিক্রম:/বি-/ উপসর্গযোগে গঠিত নয় এমন কিছু শব্দের বানানে /ব্যা/ দেখা যয়। যেমন: ব্যাঘ্র, ব্যাঙ, ব্যাজস্তুতি, ব্যাটা, ব্যাধ, ব্যামো, ব্যারাম, ব্যাস ইত্যাদি।

বিদেশি শব্দের বানানে অবিকল্প /ব্যা/:

বিদেশি শব্দের বানানে অবিকল্প /ব্যা/ হয়, /ব্য/ হয় না। যেমন: ব্যাংক, ব্যাগ, ব্যাজ, ব্যাট, ব্যাটারি, ব্যাডমিন্টন, ব্যান্ড, ব্যান্ডেজ, ব্যাপটিস্ট, ব্যানার, ব্যারাক, ব্যারিস্টার, ব্যালট, ব্যালে, ম্যাগাজিন, ম্যান, ফ্যান, ক্যালসিয়াম ইত্যাদি।

মনে রাখুন: ব্যবহারিক শব্দের বানানে /ব্যা/ ও /ব্য/ দুটিই শুদ্ধ। একসময় অভিধানে দুটো শব্দই ভুক্তি হিসেবে ছিল। যেমন: ব্যবহারিক, ব্যাবহারিক। তবে, ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে প্রকাশিত বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে একমাত্র ‘ব্যাবহারিক’ বানানকে ভুক্ত করা হয়েছে। ‘ব্যবহারিক’ বানানকে স্থানই দেওয়া হয়নি।
অতিরিক্ত: 
ই + অ = ্য বা; বি + অ = ব্য।
যেমন : বি + অর্থ = ব্যর্থ, বি + অস্ত = ব্যস্ত ইত্যাদি।
ই + আ = ্যা বা বি + আ = ব্যা।
যেমন : বি + আপক = ব্যাপক, বি + আহত = ব্যাহত ইত্যাদি। তেমনি ব্যথাও।
ব্যথা নিমোনিক:  ব্যথা বানানে আকার নেই। কারণ ব্যথা অনুধাবন করা গেলেও আকারহীন নিরাকার। তাই ব্যথা বানানে আ-কার দিতে  নেই অধিকন্তু ব্যথাকে ব্যাথা লিখলে বেশি লাগে।অযথা একটা আ-কার দিয়ে বেশি ব্যথা পেতে যাবেন কেন?
সূত্র:  ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.  
——–

All Link

বিসিএস প্রিলি থেকে ভাইভা কৃতকার্য কৌশল

ড. মোহাম্মদ আমীনের লেখা বইয়ের তালিকা

বাংলা সাহিত্যবিষয়ক লিংক

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/১

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/২

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন /৩

কীভাবে হলো দেশের নাম

ইউরোপ মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

দৈনন্দিন বিজ্ঞান লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

কীভাবে হলো দেশের নাম

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

error: Content is protected !!