ব্রাজিল ( Brazil) নামকরণ ও ইতিহাস

ড. মোহাম্মদ আমীন

ব্রাজিল ( Brazil)
ব্রাজিলের সরকারি নাম ফেডরেটিভ রিপাবলিক অব ব্রাজিল। এর পূর্বে আটলান্টিক মহাসাগর অবস্থিত। চিলি ও ইকুয়েডর ছাড়া দক্ষিণ আমেরিকার বাকি সবগুলো দেশের সঙ্গে এর সীমান্ত রয়েছে। ব্রাজিলের পূর্বভাগ আটলান্টিক মহাসাগর দ্বারা বেষ্টিত। এর উপকূলীয় ভাগের দৈর্ঘ প্রায় ৭,৪৯১ কিমি (৪,৬৫৫ মা)। ব্রাাজিলের উত্তরে রয়েছে ভেনেজুয়েলা, গায়ানা, সুরিনাম এবং ফ্রান্সের সামুদ্রিক দেপার্ত্যমঁ ফরাসি গায়ানা। উত্তর-পশ্চিমভাগে কলম্বিয়া; পশ্চিমে বলিভিয়া ও পেরু; দক্ষিণ-পশ্চিমে আর্জেন্টিনা ও প্যারাগুয়ে, এবং দক্ষিণে উরুগুয়ে অবস্থিত। ব্রাজিলীয় সীমানায় আটলান্টিক মহাসাগরের বেশকিছু দ্বীপপুঞ্জ অবস্থিত। ১৮২২ খ্রিষ্টাব্দের ৭ সেপ্টেম্বর ব্রাজিল ইউনাইটেড কিংডম অব পর্তুগাল, ব্রাজিল ও অ্যালগারভস হতে স্বাধীনতা ঘোষণা করে। ১৮২৫ খ্রিষ্টাব্দের ২৯ আগস্ট স্বাধীনতা স্বীকৃতি পায়। ১৮৮৯ খ্রিষ্টাব্দের ১৫ নভেম্বর ব্রাজিল প্রজাতন্ত্রে পরিণত হয়। ১৯৮৮ খ্রিষ্টাব্দের ৫ অক্টোবর বর্তমান সংবিধান গৃহীত হয়। দক্ষিণ আমেরিকার মোট আয়তনের ৪৭.৩% একা ব্রাজিলের অন্তর্ভুক্ত। জীববৈচিত্র্য বিবেচনায় এটি পৃথিবীর ১৭-তম আকর্ষণীয় দেশ। ব্রাজিলের আয়নত ৮৫,১৫,৭৬৭ বর্গকিলোমিটার। তন্মধ্যে জলীয় ভাগের পরিমাণ ০.৬৫%।
বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম দেশ হিসেবে রাশিয়া, কানাডা, চীন, ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরেই ব্রাজিলের অবস্থান। কানাডা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পর এটি আমেরিকা মহাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম দেশ। ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, ব্রাজিলের জনসংখ্যা ২০,৪৪,৫১,০০০ এবং প্রতি বর্গমাইলে জনসংখ্যা ২৩.৮%। আয়তন ও মোট জনসংখ্যা বিবেচনায় ব্রাজিল পৃথিবীর ৫ম বৃহত্তম দেশ। তবে জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় এটি পৃথিবীর ১৯০-তম জনবহুল দেশ। এটি দক্ষিণ আমেরিকার একমাত্র পর্তুগিজভাষী দেশ এবং বিশ্বের সর্ববৃহৎ পর্তুগিজভাষী রাষ্ট্র। খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীর দিক হতে ব্রাজিল পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ।
২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে ব্রাজিলের জিডিপি(পিপিপি) ৩.২৫৯ ট্রিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিছু আয় ১৫,৯৪১ ইউএস ডলার। জিডিপি (পিপিপি) বিবেচনায় ব্রাজিল পৃথিবীর ৭ম দেশ। অন্যদিকে, ব্রাজিলের জিডিপি(নমিনাল) ১.৯০৩ ট্রিলিয়ন ইউএস ডলার এবং মাথাপিছু আয় ৯,৩১২ উইএস ডলার। জিডিপির আয় বিবেচনায় ব্রাজিল পৃথিবীর ৮ম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হলেও মাথাপিছু আয় বিবেচনায় এর স্থান ৭৪-তম। ব্রাজিলের মুদ্রার নাম রিয়াল এবং রাজধানী ব্রাসিলিয়া। বিলোনিয়ারের সংখ্যা বিবেচনায় এটি পৃথিবীর নবম ধনী রাষ্ট্র। ১৫০ বছর আগে ব্রাজিল ছিল পৃথিবীর প্রথম কফি রপ্তানিকারক দেশ। ১৯২০ এর দশকে ব্রাজিল একাই পৃথিবীর ৮০ ভাগ কফি উৎপাদন করত। এখন কফি রপ্তানিতে ব্রাজিল তৃতীয়।
 
ব্রাজিল দক্ষিণ আমেরিকার একমাত্র পর্তুগিজ উপনিবেশ। ব্রাজিলে মোট আটটি নদী নিষ্কাশন ব্যবস্থা অবস্থিত, যার সবকটি-ই আটলান্টিক মহাসাগরে এসে শেষ হয়েছে। আমাজান জঙ্গলের ৬০% ব্রাজিলে এবং পৃথিবীর মোট রেনফরেস্টের ২৫% ব্রাজিলে অবস্থিত। উত্তর হতে দক্ষিণ প্রান্ত পর্যন্ত এর দৈর্ঘ্য ২৮০০ মাইল। এটি দক্ষিণ আমেরিকা ও ল্যাটিন আমেরিকার বৃহত্তম দেশ। ব্রাজিলের অভ্যন্তরে ব্রাজিল-প্যারাগুয়ে সীমান্তে অবিস্থত ৭.৭ কিলোমিটার লম্বা এবং ১৯৬ মিটার উঁচু ইতাইপু ড্যাম পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম জলবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র।

বলিভিয়া

error: Content is protected !!