ভাষা আন্দোলন নিয়ে রচিত প্রবন্ধ

বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার যৌক্তিকতা প্রমাণে রচিত প্রথম প্রবন্ধ
১৯৪৩ খ্রিষ্টাব্দে মাসিক ‘মোহাম্মদী’ পত্রিকায় প্রকাশিত আবুল মনসুর আহমদের নিবন্ধটি বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার সপক্ষে যুক্তি প্রদর্শন করে প্রকাশিত প্রথম প্রবন্ধ হিসেবে স্বীকৃত।
ভাষা সমস্যার উপর মহিলা রচিত প্রথম প্রবন্ধ
‘আজাদ’ পত্রিকার ‘মহিলা মাহফিলে’ ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ৫ই অক্টোবর প্রকাশিত আয়েষা বেগম বিরচিত ‘ভাষা সমস্যা’ শীর্ষক প্রবন্ধটি বাংলা ভাষা সমস্যা স¤পর্কে কোনো মহিলা লিখিত প্রথম প্রবন্ধ।
রাষ্ট্রভাষা বিষয়ক প্রথম প্রবন্ধ পর্যালোচনা
পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা এবং অন্যান্য প্রসঙ্গে লিখিত কয়েকটি প্রধান প্রবন্ধের প্রথম পর্যালোচনা প্রকাশিত হয় ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের অগাস্ট মাসে। ভারতীয় কম্যুনিস্ট পার্টির মুখপত্র ‘স্বাধীনতা’ পত্রিকায় প্রবন্ধ পর্যালোচনাটি প্রকাশিত হয়।
বাংলা ভাষার রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় রচিত প্রথম প্রবন্ধ
আবদুল হক রচিত ‘বাংলা ভাষা বিষয়ক প্রস্তাব’ বাংলা ভাষার রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সপক্ষে যুক্তি প্রদর্শন করে রচিত প্রথম প্রবন্ধ। প্রবন্ধটি দুই কিস্তিতে যথাক্রমে ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ২২ ও ২৯শে জুন দৈনিক ‘ইত্তেহাদ’ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। আবদুল হক রচিত এবং ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ৩০ শে জুন দৈনিক ‘আজাদ’ পত্রিকায় প্রকাশিত ‘পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা’ নামক প্রবন্ধটি বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সপক্ষে প্রকাশিত দ্বিতীয় প্রবন্ধ। আবদুল হক রচিত এবং ‘ইত্তেহাদ’ পত্রিকায় ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ২৭ জুলাই প্রকাশিত ‘উর্দু রাষ্ট্রভাষা হলে” প্রবন্ধটি বাংলা ভাষার রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সপক্ষে লেখা তৃতীয় প্রবন্ধ। দৈনিক ‘আজাদ’ পত্রিকায় ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ২৯ জুলাই প্রকাশিত ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ রচিত ‘পাকিস্তানের ভাষা সমস্যা’ প্রবন্ধটি বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সপক্ষে রচিত চতুর্থ প্রবন্ধ।
মহিলার ছদ্মনামে বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় রচিত প্রথম প্রবন্ধ
বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সপক্ষে রচিত চতুর্থ প্রবন্ধ আবদুল হক বিরচিত ‘পূর্ব পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা’। মিসেস এম এ হক ছদ্মনামে সাপ্তাহিক বেগম পত্রিকার ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ৩ আগস্ট সংখ্যায় প্রবন্ধটি প্রকাশিত হয়। প্রবন্ধটি মহিলাদের এতই অনুপ্রাণিত করে যে, অনেক মহিলা এবিষয়ে লিখতে শুরু করেন।
ভাষা আন্দোলনের উপর লিখিত প্রথম গ্রন্থ
১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ১৫ই সেপ্টেম্বর তমদ্দুন মজলিসের সাধারণ স¤পাদক আবুল কাশেম স¤পাদিত ও মজলিস প্রকাশিত ‘পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা- বাংলা না উর্দু’ নামক গ্রন্থটি ভাষা সমস্যার উপর রচিত প্রথম প্রবন্ধ গ্রন্থ। গ্রন্থটিতে কাজী মোতাহার হোসেন, আবুল মনসুর আহমদ এবং আবুল কাশেমের লেখা তিনটি প্রবন্ধ সংকলিত হয়। বইটি প্রকাশ হলে কেনার মতো ৫ জন লোকও পাওয়া যায়নি। গ্রন্থটির পৃষ্ঠা সংখ্যা কম ছিল বলে অনেক এটিকে পুস্তিকা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। পুস্তকটিতে আবুল কাশেম সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করেন যে, পূর্ব পাকিস্তানের অফিস আদালতের ভাষা বাংলা হবে। উর্দু ও ইংরেজি হবে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় ভাষা। উল্লেখ্য, ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দের ১ সেপ্টেম্বর আবুল কাশেমের নেতৃত্বে ঢাকায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘তমদ্দুন মজলিস’ গঠিত হয়।

ভাষা আন্দোলন ও একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে কবিতা

error: Content is protected !!