ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ’-এর বাংলা বানান: ভুল আর ভুল: অধ্যক্ষের বাংলা বানান: প্রশ্নপত্রে ভুল

ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ’-এর বাংলা বানান: ভুল আর ভুল: অধ্যক্ষের বাংলা বানান: প্রশ্নপত্রে ভুল

ড. মোহাম্মদ আমীন

‘ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ’-এর বিজ্ঞপ্তির বাংলা বানান
শুদ্ধীকরণ:
  • এতদ্বারা>এতদ্দ্বারা [এতদ্বারা= এত+দ্বারা। ‘এত’ অর্থ অতিরিক্ত, বিশাল বা বেশি পরিমাণ। সুতরাং ‘এতদ্বারা’ কথার অর্থ হয়: অতিরিক্ত দ্বারা, বিশাল দ্বারা বা বেশি পরিমাণ দ্বারা। এমন অর্থ হাস্যকর। এতদ্দ্বারা= এতদ্‌+দ্বারা। ‘এতদ্’ অর্থ এটা, ইহা বা এর সুতরাং ‘এতদ্দ্বারা‘ অর্থ: এর দ্বারা, এটার দ্বারা, ইহার দ্বারা বা এর দ্বারা।]
  • স্কুল ও কলেজ-এর> ‘স্কুল এন্ড কলেজ’-এর [প্রতিষ্ঠানের নাম বিবেচনায়]
  • সকল ছাত্রীদের>ছাত্রীদের [বাংলায় একই পদের জন্য একই বাক্যে একাধিক বহুবচন বাহুল্য।]
  • স্কুল ও কলেজ> স্কুল এন্ড কলেজ
  • বিঃদ্রঃ>বি.দ্র. [বিসর্গ (ঃ) কোনো যতিচিহ্ন নয়, এটি বাংলা বর্ণমাালার একটি স্বাধীন বর্ণ, এর নিজস্ব উচ্চারণ আছে। পদান্তে অবস্থিত বিসর্গ বর্ণের উচ্চারণ: হ্্। যতিচিহ্ন হিসেবে ব্যবহৃত কোলন ( : ) বা সংক্ষেপণচিহ্নের (.) স্থলে বিসর্গ বিধেয় নয়।]
  • করতে>করার
  • যোগাযোগঃ>যোগাযোগ: [বিসর্গ (ঃ) কোনো যতিচিহ্ন নয়, এটি বাংলা বর্ণমাালার একটি স্বাধীন বর্ণ, এর নিজস্ব উচ্চারণ আছে। পদান্তে অবস্থিত বিসর্গ বর্ণের উচ্চারণ: হ্্। যতিচিহ্ন হিসেবে ব্যবহৃত কোলন ( : ) বা সংক্ষেপণচিহ্নের (.) স্থলে বিসর্গ বিধেয় নয়।]

বাংলা আমার ভালো নেই: ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ

‘ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ’-এর অধ্যক্ষ জনাব কামরুন নাহার স্বাক্ষরিত বাংলায় লেখা তিন পঙ্‌ক্তির একটি বিজ্ঞপ্তির কিছু ভুল বানান ও অসংগতি নিচে দেওয়া হলো:
১. ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ> ‘ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ’ ( একাধিক পদবিশিষ্ট নামে একক উদ্ধৃতিচিহ্ন বিধেয়)
২. ১২ এপ্রিল> ১২ই এপ্রিল (বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান)
৩. “বৈসাবি”> ‘বৈসাবি’ ( উদ্ধৃতি না হলে উদ্ধৃতিচিহ্ন বিধেয় নয়; এখানে একক উদ্ধৃতিচিহ্ন বিধেয়।)
৪. উপলক্ষেউপলক্ষ্যে (‘লক্ষ্য’ থেকে ‘উপলক্ষ্য’।)
৫. ক্লাশক্লাস
৬. গ্রহনেরগ্রহণের
৭. প্রধানগনপ্রধানগণ
৮. শাখা প্রধানগণ (সকল)> শাখা প্রধান (সকল)/ শাখা প্রধানগণ
৯. নুন>নূন (নাম, নিবন্ধনের অবিকল হবে। একই বিজ্ঞপ্তির অন্য দু-স্থানে লেখা হয়েছে ‘নূন’। )

ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ

ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ’-এর  বাংলা প্রশ্নপত্রের অর্ধাংশে ৩৫ ভুল।  দেশব্যাপী খ্যাত একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এমন ভুল অবিশ্বাস্য। এত ভুল এবং অবহেলা সহজে মেনে নেওয়া যায় না।
ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেণির বাংলা প্রথম পত্র (সৃজনশীল) পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের (অর্ধাংশ) বানান-বিষয়ক কিছু ভুল ও অসংগতি উপযুক্ত বিধির আলোকে চিহ্নিত পাশে শুদ্ধ বা সংগত রূপটি দেওয়া হলো। এগুলোকে কেন ভুল বা অসংগত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে তার ব্যাখ্যা নিচের সংযোগ হতে জেনে নিতে পারেন। কোনো প্রশ্ন থাকলে আশা করি তার উত্তর ওখানে পেয়ে যাবেন। প্রসঙ্গত, এটি প্রশ্নপত্রটির অর্ধাংশ।

বাংলা আমার ভালো নেই: ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ

‘ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ’-এর দশম শ্রেণির একটি প্রশ্নপত্রের (বাংলা ২য় পত্র সৃজনশীল) কিছু ভুল বানান ও অসংগতি বাংলা ব্যাকরণ, বাংলা একাডেমি প্রমিত বাংলা বানানের নিয়ম, বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান এবং গ্রাহ্য প্রচলনের আলোকে চিহ্নিত করে তার শুদ্ধ রূপ যৌক্তিকতা-সহ নিচে দেওয়া হলো।
১. এস.এস.সি> এসএসসি [ডিগ্রির সংক্ষেপণে ডট বা বিন্দু বর্জনীয়।]
. ২০২২ইং> ২০২২ খ্রি./ খ্রিষ্টাব্দ [ইং বা ইংরেজি নামের কোনো বর্ষপঞ্জি নেই। এর নাম গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি। বাংলায়: খ্রিষ্টাব্দ, সংক্ষেপে: খ্রি.। খ্রিষ্টাব্দ (খ্রিষ্ট+অব্দ) ব্যক্তিনাম খ্রিষ্ট-এর সঙ্গে সংস্কৃত অব্দ মিলে গঠিত; অর্থ (বিশেষ্যে) খ্রিষ্টের জন্মের বৎসর থেকে পরিগণিত অব্দ, সাল।]
৩. বিষয়ঃ> বিষয়: [বিসর্গ (ঃ) যতিচিহ্ন নয়, বাংলা বর্ণমাালার একটি স্বাধীন বর্ণ, এর নিজস্ব উচ্চারণ আছে। শব্দের শেষের বিসর্গ বর্ণের উচ্চারণ: হ্। তাই যতিচিহ্ন হিসেবে ব্যবহৃত কোলনের 🙂) স্থলে বিসর্গ বর্ণের ব্যবহার বিধেয় নয়।]
৪. ঘন্টা> ঘণ্টা [ঘণ্টা {√ঘণ্ট্+অ+আ(টাপ)} তৎসম শব্দ। ব্যুৎপত্তিগত বানান ‘ঘণ্টা’। তৎসম শব্দে ট ঠ ড ঢ-য়ের পূর্বে যুক্ত নাসিক্যবর্ণ ণ হয়। বাংলা একাডেমি প্রমিত বাংলা বানানের নিয়ম, অনুচ্ছেদ: ২.৭।]
৫. মিশ্রন> মিশ্রণ [মিশ্রণ= √মিশ্র্+অন। ণত্ববিধিমতে, ণ অপরিহার্য।]
৬. দূষনীয়> দূষণীয় [ দুষণীয়= √দূষি+অনীয় ণত্ববিধিমতে, ণ অপরিহার্য।]
৭. যে কোন> যে-কোনো/ যেকোনো [ একক শব্দ। যে-কোনো বাংলা শব্দ; অর্থ অনির্দিষ্ট কিছু। প্রমিত রূপ ‘যে-কোনো’। ‘কোন’ শব্দটি যখন সর্বনাম হিসেবে ব্যবহৃত হয় তখন এর অর্থ- কী, কে, কোনটি (কোন দিন, কোনটি চাই, কোন জন)। এটি কোনও বা কোনো শব্দের সমার্থক নয়। যেমন: ‘‘আপনি কোন দেশে থাকেন”- বাক্যে একই অর্থ প্রকাশের জন্য ‘কোনও’বা ‘ কোনো’ পদ ব্যবহার করা যাবে না। বাক্যে সর্বনাম ও বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত ‘কোনো’ শব্দের অর্থ- অনির্দিষ্ট বা অনির্ধারিত একজন লোক বিষয় বা বস্তু, কে বা কী (কোনো বিষয়), বহুর মধ্যে একটি বা একজন। এখানে ‘কোনো’ অপরিহার্য ছিল।]
৮. লেখো ঃ > লেখো: {প্রাগুক্ত: ৩]
৯. যে কোন> যে-কোনো/ যেকোনো [প্রাগুক্ত: ৭]
১০. একটি বিষয় পত্র> একটি বিষয়ে পত্র [বাক্য অনুযায়ী ‘বিষয়’ বানানে এ-বিভক্তি দেওয়া সমীচীন ছিল।]
১১. লেখোঃ> লেখো: [প্রাগুক্ত: ৩]
১২. যে কোন> যে-কোনো/ যেকোনো [প্রাগুক্ত: ৭]
১৩. ভাবসম্প্রসারন> ভাবসম্প্রসারণ [ভাব+সম্প্রসারণ= ভাবসম্প্রসারণ। ণত্ববিধিমতে, ‘সম্প্রসারণ’ বানানে ণ অপরিহার্য। তাই ‘ভাবসম্প্রসারণ’ বানানেও ণ অপরিহার্য।
১৪. করোঃ> করো: [প্রাগুক্ত: ৩]
১৫. যে কোন> যে-কোনো/ যেকোনো [ প্রাগুক্ত: ৭]
১৬. একটি বিষয় প্রতিবেদন রচনা > একটি বিষয়ে প্রতিবেদন রচনা [বাক্য অনুযায়ী‘ বিষয়’ বানান হওয়া উচিত ছিল: বিষয়ে।]
১৭. করোঃ> করো [প্রাগুক্ত: ৩]
১৮. মনে করো তুমি রাকিব। দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার বরিশাল অঞ্চলের প্রতিনিধি।> মনে করো তুমি রাকিব, দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার বরিশাল অঞ্চলের প্রতিনিধি। [মাঝখানে দাঁড়ি দেওয়ায় বাক্যটি আদর্শ বাক্যের অপরিহার্য শর্তাবলি ধরে রাখতে পারেনি। বাক্য একটি রেখে কমা হওয়া উচিত ছিল।]
১৯. প্রকাশ উপযোগী> প্রকাশ-উপযোগী/ প্রকাশোপযোগী [সমাসবদ্ধ পদগুলো একসঙ্গে বসে, অথবা বিশেষ প্রয়োজন হলে মাঝখানে হাইফেন দেওয়া যায়। যদি এমন প্রচলন থাকে। বাংলা একাডেমি প্রমিত বাংলা বানানের নিয়ম, অনুচ্ছেদ: ৩.১]
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভুলে ভুলে সয়লাব: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ও রেজিস্ট্রারের বাংলা বানান: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভুল আর ভুল
নটর ডেম কলেজ ভুল আর ভুল: নটর ডেম কলেজের বাংলা বানান: নটর ডেম কলেজের অধ্যক্ষের বাংলা বানান
বাংলা একাডেমির গ্যাঁড়াকলে প্রমিত বাংলা বানান (পর্ব ১০ ১১)
বাংলা একাডেমির গ্যাঁড়াকলে প্রমিত বাংলা বানান/৩

You cannot copy content of this page

poodleköpek ilanlarıankara gülüş tasarımıantika alanlarPlak alanlarantika eşya alanlarAntika mobilya alanlarAntika alan yerler
Casibomataşehir escortjojobetbetturkey