ভুল আর ভুল থেকে ফুল; সংগৃহীত বনাম সংগ্রহীত; অসাধারণ ভুল, উচিত তফাত দারুণ

ড. মোহাম্মদ আমীন

ভুল আর ভুল থেকে ফুল; সংগৃহীত বনাম সংগ্রহীত; অসাধারণ ভুল, উচিত তফাত দারুণ

ভুল আর ভূল

মূর্খ ভুঁইমালী ভূপতি ভূথনাথ ভূতপূর্ব ভূমিকম্পের সময় ভুল লিখতে গিয়ে ভুল করে ভুল বানানে ভূগোল, ভূমি ও ভূরি বানানের ভূ বসিয়ে ভূমধ্যসাগরের ভূত হয়ে গেল। তাই তার ভীতু ছেলেমেয়েরা ভুলেও ভুল বানান লিখতে ভূমিষ্ঠ, ভূষণ, ভূতত্ত্ব ও ভূত বানানের ভূ দেয় না। তারা সবাই ভুঁইয়ার মতো ভুল বানানে ভুঁই, ভুজ, ভুক্ত, ভুঁড়ি, ভুট্টা ও ভুসি বানানের ভু দিয়ে ভুবনের ভূখণ্ডে বসে ভুনাখিচুড়ি খায়। এজন্য তারা ভূয়োদর্শী হিসেবে ভূয়িষ্ঠ ও ভূয়সী শংসা পায়। ভুল বানানে ভূতের ভূ দিয়ে ভূত হতে চায় কে?

সংগৃহীত না কি সংগ্রহীত

সংগ্রহীত ভুল শব্দ। এরূপ বানানের কোনো শব্দ অভিধানে নেই। ব্যাকরণমতে এমন শব্দ হতে পারে না। সংগ্রহ অর্থ— (বিশেষ্যে) জোগাড়, আহরণ, সংকলন। সংগ্রহকারীকে বলা হয় সংগ্রহীতা। এটি ব্যক্তি বা বস্তু নয়। সংগ্রহীতা যা সংগ্রহ করে তা সংগৃহীত। এটি বস্তু, লেখা ইত্যাদি।
সংস্কৃত সংগৃহীত অর্থ— (বিশেষণে) সংগ্রহ করা হয়েছে এমন, আহরণ করা হয়েছে এমন, জোগাড় করা হয়েছে এমন। যা সংগ্রহ করা হয়েছে তাই সংগৃহীত।
 
 
যতই গালি দিন, আমি পড়ে যাব; পড়ে পড়ে শিখব। শিখে শিখে জানব। জেনে জেনে দেখব। আমীন স্যার বলেন, প্রজ্ঞায় যাঁরা দীন, আচরণে তাঁরা হীন।বিবেচনা যাঁর ক্ষীণ, আচরণে তিনি হীন।

অসাধারণ কয়েকটি ভুল

শুবাচে অনেকে লিখছেন— উচিৎ, তফাৎ, দারুন, ধরণ (প্রকার অর্থে)। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, শব্দগুলির প্রমিত বানান হচ্ছে যথাক্রমে: উচিত, তফাত, দারুণ এবং ধরণ।
 
ভুল সবসময় ভুল  (প্রমিতা দাশ লাবণী)
‘কুন করো’ আর ‘খুন করো’ কী এক? প্রেমে হলেও!
ভুল সবসময় ভুল। কিন্তু জনাব Musharraf Khanলিখেছেন, প্রেমের চিঠির ভুল বানান দোষণীয় (দূষণীয়) নয়। হ্যাঁ, প্রেমের চিঠির ভুল বানান দূষণীয় নয়, যদি প্রেমটাও ভুল এবং দূষণীয় হয়। প্রেমের চিঠির ভুল বানান দূষণীয় নয়, যদি প্রেরক-প্রাপক উভয়ে বানানজ্ঞানে দুর্বল হয়। প্রেমের চিঠির ভুল বানান দূষণীয় নয়, যদি প্রেরক-প্রাপক কারো ভালোমন্দ জ্ঞান এবং শুদ্ধ-ভুল বিবেচনা বোধ না থাকে। প্রেমের চিঠির ভুল বানান দূষণীয় নয়, যদি তাদের খান-খানা, বধূ-বঁধু, স্ত্রী-ইস্ত্রি, বলদ-বলদ (উচ্চারণ বলদো), চাল-ছাল, ভাল-ভালো, dear-deer, দোষণীয়-দূষণীয়, নারী-নাড়ি, শালা-সলা, মুশা-মশা, দিন-দীন প্রভৃতি শব্দের পার্থক্য ধরার মতো জ্ঞান না থাকে। ‘প্রেমে নাকি কোনো ভুল নেই’, অথচ তারা তাদের ছেলেমেয়েটিকে সবার আগে প্রেমে বাধা দেয়। এমন যারা বলেন তারাই হয়তো প্রেম করেন এবং শেষপর্যন্ত তাদেরকে প্রেমের ভুলের শিকার হয়ে ‘প্রেম করা আমার ছিল ভুল’ বলে বলে চিৎকার করে কাঁদতে দেখা যায়।
 
ভুল সবসময় ভুল।তাই ভুলমাত্রই দূষণীয়। নানা অজুহাত তোলে যারা বানান বা কোনো ভুলের পক্ষে কথা বলেন, তারা পক্ষান্তরে ভুলকে উৎসাহিত করে। প্রেমের চিঠির ভুল বানান দূষণীয় নয়, এই অজুহাতে শুবাচ প্রেমীদের কেউ যদি ভুল বানানে পোস্ট দেওয়াও দূষণীয় নয় মনে করে বসেন, তা কী আদৌ উচিত হবে? ভুল সবসময় দূষণীয়। আমি একজন শুবাচপ্রেমী। ভুল দেখলে ভালো লাগে না। অবশ্য আমারও ভুল হয়। এটি আমার অজ্ঞতা।
যতই গালি দিন, আমি পড়ে যাব; পড়ে পড়ে শিখব। শিখে শিখে জানব। জেনে জেনে দেখব। আমীন স্যার বলেন, প্রজ্ঞায় যাঁরা দীন, আচরণে তাঁরা হীন।বিবেচনা যাঁর ক্ষীণ, আচরণে তিনি হীন।
 
 
error: Content is protected !!