ভেঙে মোর ঘরের চাবি: এখানে চাবি অর্থ কী? চাবি ভেঙে কীভাবে নিল? তালা কোথা

ড. মোহাম্মদ আমীন 
 
সংযোগ: https://draminbd.com/ভেঙে-মোর-ঘরের-চাবি-এখানে-চ/
 
 ‘ভেঙে মোর ঘরের চাবি নিয়ে যাবি কে আমারে?’ এখানে চাবি শব্দের অর্থ কী? চাবি ভাঙলে তালা তো থেকেই যাবে, নিয়ে যাবে কীভাবে? এসব প্রশ্নের উত্তর খোঁজার আগে জেনে নেওয়া আবশ্যক আধুনিক অভিধানসমূহে তালাচাবি শব্দের কী অর্থ দেখানো হয়েছে এবং আগে শব্দদুটি কী অর্থ ব্যবহৃত হতো। কেনই বা রবীন্দ্রনাথ চাবি শব্দটি ব্যবহার করেছেন?
 
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, সংস্কৃত তলক থেকে উদ্ভূত তালা অর্থ বাক্স কপাট প্রভৃতি আটকানোর জন্য ব্যবহৃত চাবি
Dr.AMIN
ড. মোহাম্মদ আমীন
দিয়ে খোলা যায় এমন সরঞ্জামবিশেষ; ইংরেজিতে lock। যা আগে বঙ্গের বিভিন্ন  এলাকায় চাবি নামে পরিচিত ছিল। অর্থাৎ অধুনা তালা= পূর্বেকার চাবি। অন্যদিকে, পোর্তুগিজ উৎসের বাংলা পারিভাষিক শব্দ চাবি অর্থ তালা বন্ধ করা ও খোলার শলাকা, যন্ত্রাদি চালু বা বন্ধ করার কাঠিবিশেষ (গাড়ির চাবি), ঘড়ির কাঁটা ঘোরানো বা দম দেওয়ার হাতল।  আধুনিক চাবি হলো এমন একটি শলাকা, যা দিয়ে তালা খোলা হয় কিংবা ঘড়িতে দম দেওয়া হয়।  
 
একদল মনে করেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শুধু কবিতার ছন্দে মিল দেওয়ার জন্য আধুনিক তালাকে চাবি হিসেবে উল্লেখ করেছেন। কারো কারো মতে, গানে বর্ণিত চাবি  আধুনিক চাবি (key) শব্দের সমার্থক। তাদের মতে, রবীন্দ্রনাথ যখন গানটি লিখেন, তখন বঙ্গদেশের অনেক এলাকায় আধুনিক তালা (lock) অর্থে চাবি (key) শব্দটি ব্যবহৃত হতো। শুধু তাই নয়, অনেক অভিধানে তালা ও চাবি সমার্থক দেখানো হয়েছে।
অন্য একদল বলেন, এটি একটি আধ্যাত্মিক গান। এখানে চাবি বলতে ঘড়িতে দম দেওয়ার জন্য যে চাবি ব্যবহার করা হয় তা কথা বলা হয়েছে। যে চাবি দিয়ে দম দেওয়া হয় সেটি বন্ধ হয়ে গেলে বা ভেঙে গেলে কিংবা হারিয়ে গেলে মানুষ মোহহীন হয়ে যাওয়ার প্রেরণা পায়, পার্থিব লোভলালসা শূন্য হয়ে যায়। মানুষের আত্মা পরমাত্মার সান্নিধ্যে চলে যায়। ফলে মোহান্ধ মানুষ মোহমুক্ত হতে পারে।  এখন দেখা যাক: কোনটি সঠিক এবং কেন।
 
ছন্দমিল: “রবীন্দ্রনাথ ছন্দের মিল রক্ষা করার জন্য তালাকে চাবি হিসেবে উল্লেখ করেছেন।” এমন যারা দাবি করেন তাদের সিংহভাগই তালা ও চাবি শব্দের উৎপত্তি-ব্যুৎপত্তি সম্পর্কে জ্ঞাত নন। তারা কেবল শব্দটির বর্তমান অর্থ বিবেচনায় এমন মন্তব্য করে থাকেন। রবীন্দ্রকালীন শব্দটির অর্থের কথা চিন্তা করেন না। রবীন্দ্রনাথের শব্দভান্ডার এত দীন ছিল না যে, ছন্দমিলের জন্য চাবি শব্দের ওপর নির্ভর করতে হবে। শুধু রবীন্দ্রনাথ নয়, নজরুল, সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত  এবং শরৎচন্দ্র-সহ আরও অনেকে তালা অর্থে চাবি শব্দটি ব্যবহার করেছেন।  শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ও সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত ছন্দের মিল-অমিল অনাবশ্যক সত্ত্বেও গদ্যে বর্তমান তালা অর্থে ব্যবহৃত  চাবি শব্দটি ব্যবহার করেছেন। শরৎচন্দ্র লিখেছেন: “সমস্ত অলংকার লৌহ-সিন্ধুকে পুরিয়া চাবি দিল।”  এখানে স্পষ্টতই চাবি অর্থে আধুনিককালের তালাকে নিদেশ করা হয়েছে।
 
অতএব, রবীন্দ্রনাথ  ছন্দের প্রয়োজনে চাবি শব্দটির ব্যবহার করেছেন- এমন মন্তব্য  হাস্যকর বলা যায়। তাহলে কেন ব্যবহার করেছেন?
 
তালা অর্থ চাবি:  রবীন্দ্রনাথের লেখায় আঞ্চলিক বহু শব্দ স্থান পেয়েছে। এটি আঞ্চলিকতার ছাপ নয়, বরং অঞ্চলের প্রতি আন্তরিক অনুভূতির আধ্যাত্মিক প্রকাশ। যা সাধারণ মানুষের মনে সহজে দাগ কাটে। রবীন্দ্রনাথ বাংলাদেশে বহু দিন ছিলেন। তাই তাঁর লেখায় বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের অনেক শব্দ পাওয়া যায়। যেমন: ‘চোখের আলোয় দেখেছিলেম চোখের বাহিরে’। বাংলাদেশের নওগাঁ জেলার মানুষেরা আধুনিককালের তালাকে  চাবি আর চাবিকে ছুরান বলতেন। এখনও বলন। এখনও গাঁয়ের বহু মানুষ কথ্য ভাষায় বলে, “সাইকেলে চাবি মেরে দিস”। প্রকৃতপক্ষে গানটিতে চাবি ভেঙে নিয়ে যাওয়ার অর্থ তালা ভেঙে নিয়ে যাওয়া।
 
আমরা সাধারণভাবে এখন যাকে তালা শব্দে জানি,  নদীয়া ও পশ্চিম বঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চলে তাকে চাবি বলা হতো।   রবীন্দ্রনাথ পশ্চিম বঙ্গে বেড়ে উঠেছেন। তাই সেই অঞ্চলের ভাষার সঙ্গের তাঁর ঘনিষ্টতা এবং কবিতায় তার প্রভাব পড়া খুবই স্বাভাবিক। শুধু তাই নয়, নাটোর, জয়পুরহাট-সহ উত্তরবঙ্গের অনেক এলাকায় এখানো তালা অর্থে চাবি শব্দটি ব্যবহার করা হয়। উল্লেখ্য, নদীয়া ও পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন  এলাকা এবং উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চলে বর্তমানে যাকে  চাবি বলা হচ্ছে তাকে ‘ছুড়ান’ বলা হয় এবং এই ‘ছুড়ান’ দিয়েই চাবি ( বর্তমানে তালা) খোলা হয়।  কুষ্টিয়াতেও তালা অর্থে চাবি ব্যবহার করা হতো।  শুধু তাই নয়, পশ্চিমবঙ্গের অধিবাসী নজরুলও বর্তমান তালা অর্থে চাবি শব্দটি ব্যবহার করেছেন। তিনি লিখেছেন: 
তব মসজিদ-মন্দিরে প্রভু নাই মানুষের দাবি
মোল্লা-পুরুত লাগায়েছে তার সকল দুয়ারে চাবি!”
 
 সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত তাঁর ছিন্নমুকুল কবিতায় লিখেছেন
‘ভয়-তরাসে ছিলো যে সবচেয়ে
সেই খুলেছে আঁধার ঘরের চাবি।’
 
এসব আলোচনা থেকে প্রতীয়মান হয় যে, গানে ব্যবহৃত চাবির অর্থ অর্থ ছিল বর্তমানে ব্যবহৃত তালা। ধরে নিলাম চাবি শব্দের অর্থ তালা না বুঝিয়ে বর্তমানে ব্যবহৃত চাবি ধরে নিলেও  গানের কথাটি ভুল নয়।  গানটা গীতবিতানের পূজা অধ্যায়ে আছে। তাই সিংহভাগ লোক দাবি করে এটা আধ্যাত্মিক গান। গানাটির প্রথম তিন পঙ্‌ক্তি
ভেঙে মোর ঘরের চাবি নিয়ে যাবি কে আমারে
ও বন্ধু আমার!
না পেয়ে তোমার দেখা, একা একা দিন যে আমার কাটে না রে ॥
 
আধ্যাত্মিকতা: অধ্যাত্মিক জগতে আমারে মানে ব্যক্তিকে, ব্যক্তির সত্তাকে, নিজের সত্তাকে, আত্তাকে।  নিয়ে যাওয়া মানে মারা যাওয়া, পার্থিব জগৎ হতে নির্মোহ হওয়া; পরমেশ্বরের সঙ্গে মিলন। পার্থিব জগৎ হতে তখনই দূরে যাওয়া যায়, যখন নির্মোহ হওয়া সম্ভব হয়। এটি তখনই ঘটে যখন দেহ নামক ঘড়ির দম বা নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। ঘড়ির দম দেওয়া হয় চাবি দিয়ে। চাবি যদি ভেঙে ফেলা হয় তাহলে আর দম দেওয়ার কোনো সুযোগ থাকে না। তখন মানুষের আত্মা পরমাত্মার সঙ্গে বিলীন হয়ে যায়। অধিকন্তু, আধ্যাত্মিক মন সবসময়  স্রষ্টার কাছে চলে যেতে চায়, কিন্তু মোহ বাধা সৃষ্টি করে‌। এখানে কবি তাঁর আত্মার ঘর থেকে মোহকে বের করে চাবিটাকে একেবারেই ভেঙে দেওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন।  কারণ, চাবি থাকলে আবারও তা দিয়ে ঘর খোলা যাবে, দম দেওয়া যাবে। মোহ আবারও আত্মার ঘরে প্রবেশ করে আত্মাকে মোহময় করে দেবে।
 
একটি চাবি মাইরা দিলা ছাইড়া
জনম ভরে চলিতেছে
মন আমার দেহ ঘড়ি সন্ধান করি
কোন মিস্ত্রি বানাইয়াছে
————————
শুবাচ গ্রুপের সংযোগ: www.draminbd.com
শুবাচ যযাতি/পোস্ট সংযোগ: http://subachbd.com/
আমি শুবাচ থেকে বলছি
 
— — — — — — — — — — — — — — — — —
— — — — — — — — — — — — — — — — —
Spelling and Pronunciation
HTTPS://DRAMINBD.COM/ENGLISH-PRONUNCIATION-AND-SPELLING-RULES-ইংরেজি-উচ্চারণ-ও-বান/
error: Content is protected !!