মধুচন্দ্রিমা, প্রমিত ভাষা, ফাউ, চিনি, সিন্ধু

ড. মোহাম্মদ আমীন

মধুচন্দ্রিমা, প্রমিত ভাষা, ফাউ, চিনি, সিন্ধু

চিনি অর্থ sugar, চিনি অর্থ জানি

একটি শব্দের একাধিক অর্থ থাকতে পারে। যেমন: বল অর্থ ফুটবল, বল অর্থ শক্তি, বল অর্থ বক্তব্য। তেমনি চিনি শব্দেরও একাধিক অর্থ আছে। প্রথমত চিনি অর্থ: আখ বিট প্রভৃতি উদ্ভিদের নির্যাস থেকে উৎপন্ন কেলাসিত মিষ্ট পদার্থবিশেষ, sugar। চিনি শব্দের আর একটি অর্থ জানি, know। বাক্য ও বক্তার উদ্দেশ্যের ওপর শব্দের অর্থ নির্ভর করে। এজন্য শব্দার্থ সুনির্দিষ্ট নয়, পদার্থ সুনির্দিষ্ট। রবীন্দ্রনাথের ভাষায়: “আমি চিনি গো চিনি তোমারে ওগো বিদেশিনী- – -।” এখানে চিনি অর্থ sugar চিনি নয়, জানি চিনি।

ফাউ

প্রশ্ন: আমরা আম কিনতে গেলে, গাছের মালিক কিছু আম বেশি দেয়। যেমন, ৪০ কেজি আম কিনলে ৮ কেজি আম বেশি দেয় বা বলে ৪৮ এ মণ। আসলে এই অতিরিক্ত আম দেওয়াকে আমরা বলি ‘ধলন’ দেওয়া। এর সঠিক ব্যবহার কি হবে? দয়া করে জানাবেন। ধন্যবাদ।
উত্তর: প্রমিত রূপ ফাউ। ফাউ দেশি শব্দ। (বিশেষ্যে) খুচরা বিক্রয়কালে ক্রেতাকে নির্দিষ্ট পরিমাণের অতিরিক্ত যা দেওয়া হয় তা ফাউ। (বিশেষণে) শব্দটির অর্থ অতিরিক্ত, উপরি।

 

চাকরি না কি চাকরী কোনটি সঠিক?

চাকরি। তবে চাকুরি বানানও সঠিক। দুটোই প্রমিত। চাকরি/চাকুরি ফারসি শব্দ। বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত চাকরি/চাকুরি শব্দের অর্থ: নির্দিষ্ট পারিশ্রমিকের বিনিময়ে নিয়মিত কর্মসম্পাদন।বিদেশি শব্দে ঈ-কার বিধেয় নয়।তাই বানানে ই-কার।

মধুচন্দ্রিমা

ইংরেজি honeymoon শব্দের অনুকরণে গঠিত শব্দ। বাংলায় এর অর্থ (বিশেষ্যে) নবদম্পত্তির প্রমোদবিহার। প্রমোদবিহার নির্দিষ্টকালের জন্য হয়।নবদম্পত্তির প্রমোদবিহারের সঙ্গে মধু ও চন্দ্রের আদৌ কোনো সম্পর্ক নেই।এটি honeymoon শব্দের অনুবাদ মাত্র, অনেকে বলেন হনুবাদ। হনুবাদ হলেও জনপ্রিয়তা পেয়ে গেছে সে। অমাবস্যাতেও মধুচন্দ্রিনাম করা যায়, কোনোরূপ মধু ছাড়াই। বরং অমাবস্যার মধুচন্দ্রিমা আরও মধুর হয়। তখন আকাশের তারাদল চন্দ্রালোকিত রাতের চেয়েও বেশি জ্বলজ্বল করে।দেখুন, মধুচন্দ্রিমায় কী প্রয়োজন; কেবল মায়া-আর মমতা:
“এই মধু রাত শুধু ফুল পাপিয়ার/ এই মায়া রাত শুধু তোমার আমার। ( গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার)

প্রমিত শব্দের মানে কী? প্রমিত ভাষা কী?

সংস্কৃত প্রমিত (প্র+√মা+ত) অর্থ— (বিশেষণে) জ্ঞাত, নির্দিষ্ট মানসম্মত, পরিমিত, প্রমাণিত। ইংরেজিতে, standard। প্রমিত ভাষা হলো ভাষার নির্দিষ্ট মানসম্মত একটি আদর্শ রূপ। যাতে পরিমিত বোধ বা সর্ববোধ্য রূপ বজায় রাখার চেষ্টা করা হয়। নির্দিষ্ট মান বজায় রেখে এর রূপ প্রণয়ন করা হয়। তাই এটি মান ভাষা নামেও পরিচিত। কোনো ভাষার নির্দিষ্ট কোনো রূপকে যথাসম্ভব সর্বজনীন বা আদর্শ মানে উপনীত করা হলে তাকে প্রমিত ভাষা বলা যায়। ভাষার গঠন বা রূপ নিয়ে নানাজনের নানা মত থাকে, থাকতে পারে। এর মধ্যে মোটামুটি সর্বাধিকের গ্রহণীয় রূপটি প্রমিত ভাষা বা মান ভাষা। প্রমিত ভাষার সংজ্ঞার্থ নিয়েও ভিন্নমত রয়েছে। আগ্রহ ও সদিচ্ছা থাকলে ভিন্নমতের সমন্বিত মতসমূহের মাধ্যমে বিদ্যমান প্রমিত ভাষাকে ক্রমান্বয়ে আরও প্রমিত এবং আরও সর্বজনীন করার কাজে ব্যবহার করা যায়।

১৬ ডিসেম্বর না কি ১৬ই ডিসেম্বর

বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান (পরিশিষ্ট গ: বাংলা তারিখ ও সময়) মতে ১৬ই (উচ্চারণ: শোলোই) ডিসেম্বর। অনুরূপ ২১শে, ১৯শে, ৩১শে। তবে ১লা, ২রা, ৪ঠা, ৫ই ইত্যাদি। সূত্র: বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান, সম্পাদক জামিল চৌধুরী, পরিবর্ধিত ও পরিমার্জিত সংস্করণের তৃতীয় পুনর্মুদ্রণ, এপ্রিল/২০১৮।

সিন্ধু

সংস্কৃত সিন্ধু অর্থ (বিশেষ্যে) সাগর, সমুদ্র; হে সিন্ধু হে বন্ধু মোর, হে চির-বিদ্রোহী (নজরুল), বিন্দু থেকে সিন্ধু (প্রবাদ)। ভারতীয় উপমহাদেশের একটি বিখ্যাত নদের নাম (সিন্ধুনদ)। রাত্রির দ্বিতীয় প্রহরে গেয় সংগীতের একটি রাগ সিন্ধু নামে পরিচিত।
প্রশ্নটি করেছেন জনাব ইয়াছিন খাঁন সবুজ।
————————————————
error: Content is protected !!