মলডোভা (Moldova) : ইতিহাস ও নামকরণ

কীভাবে হলো দেশের নাম (ইউরোপ)

ড. মোহাম্মদ আমীন

মলডোভা (Moldova)

মল্ডোভার দাপ্তরিক নাম রিপাবলিক অব মল্ডোভা। এটি পূর্ব ইউরোপের একটি স্থলবন্দি দেশ। এর পশ্চিমে রোমানিয়া, উত্তর, পূর্ব ও দক্ষিণে ইউক্রেন। রোমানিয়ার মোলডোভা নদী হতে মোলডোভা নামের উদ্ভব। সম্ভবত গোথিক শব্দ মোল্ডা (mulda) হতে মোলডোভা শব্দের উৎপত্তি। এর অর্থ ধুলো বা কাদা। রোমানিয়ান ভাষায় মোলডোভার উচ্চারণ মোন্দোভা।

মলদোভা প্রাক্তন সোভিয়েত ইউনিয়নের একটি প্রজাতন্ত্র ছিল। প্রাক্তন সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যে ১৫ টি প্রজাতন্ত্র হয়েছে, সেগুলো হচ্ছে: রাশিয়া, ইউক্রেন, জর্জিয়া, বেলরুশিয়া, উজবেকিস্তান, আর্মেনিয়া, আজারবাইযান, কাজাখাস্তান, কিরগিজস্তান, মলদোবা, তুর্কমেনিস্তান, তাজিকিস্তান, লাতভিয়া, লিথুয়ানিয়া ও এস্তোনিয়া।

মোলদোভা নামের উৎপত্তি সম্পর্কে একটি রোমানিয়ান প্রবাদ প্রচলিত রয়েছে। কথিত হয়, বহুকাল আগে ড্রাগোস ভোডা নামের এক যুবক ছিলেন।  তিনি বন্য ষাড় (aurochs) বা বাইশন (wisent) জাতীয় বন্যপ্রানী শিকারের জন্য একদল কুকুর নিয়ে বনে যান। শিকারের সময় মোল্ডা নামের একটি মাদি কুকুর ছাড়া বাকি সবগুলো অজানা কোনো কারণে ক্লান্ত হয়ে শুয়ে পড়ে। মোল্ডায় সবসময় বন্য পশু তাড়িয়ে শিকারের সহায়তা করে আসছিল। বন্যষাড় নদীর জলে লাফিয়ে পড়লে, মোল্ডাও নদীতে ঝাপিয়ে পড়ে। দুর্ভাগ্যবশত মোল্ডা ক্লান্ত হয়ে নদী হতে তীরে আসার সময় জলে ডুবে যায়। অবশেষে, ড্রাগোস বন্যষাড়টিকে ঘায়েল করে মস্তক কর্তন করে নিতে সক্ষম হয়। ড্রাগোস তার প্রিয় কুকুরি মোল্ডার স্মরণে নদীটির নাম রাখেন মোল্ডা রিভার এবং মোল্ডা নদীর তীরবর্তী এলাকার নাম রাখেন মোল্ডেভা বা মোল্ডার জমি। প্রবাদটি সত্য হোক বা মিথ্যা হোক, এটি দেশটিতে বহুল প্রচলিত এবং অধিকাংশ জনগণ তা সত্য বলে মনে করেন। তবে মোলডোভার জাতীয় প্রতীক বাইসনের কর্তিত মস্তক প্রবাদটির গ্রহণযোগ্যতাকে নিঃসন্দেহে জোরালো করেছে। প্রবাদটি জাতীয়ভাবে সত্য মনে না করলে কেন জাতীয় পতীকে বাইসনের খণ্ডিত মস্তক থাকবে!

মল্ডোভার মোট আয়তন ৩৩,৮৪৬ বর্গকিলোমিটার বা ১৩,০৬৭ বর্গমাইল। তন্মধ্যে জলীয়ভাগের পরিমাণ ১.৪ ভাগ।২০১৪ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, জনসংখ্যা ২৯,১৩,২৮১ এবং প্রতি বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যা ১০৫। আয়তন বিবেচনায় মল্ডোভা পৃথিবীর ১৩৮-তম বৃহত্তম দেশ। তবে জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় এটি পৃথিবীর ১০১-তম জনবহুল দেশ। সরকারি ভাষা রোমানিয়ান এবং রাজধানী সিসিনাও। সরকারিভাবে মল্ডোভার অধিবাসীরা মল্ডোভান নামে পরিচিত। ১৯৯০ খ্রিষ্টাব্দে  সোভিয়েত ইউনিয়ন সার্বভৌম এবং ১৯৯১ খ্রিষ্টাব্দের ২৭ আগস্ট স্বাধীনতা ঘোষণা করে।  ১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দের ২৯ জুলাই সংবিধান গৃহীত হয়। ১৯৯০ খ্রিষ্টাব্দের ২৭ এপ্রিল মলডোভার জাতীয় পতাকা গ্রহণ করা হয়।

২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের হিসাবমতে, মল্ডোভার জিডিপি (পিপিপি)১৭.৬৯৩ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং সে হিসাবে মাথাপিছু আয় ৪,৯৭৩ ইউএস ডলার। অন্যদিকে, জিডিপি (নমিনাল) ৬.১৪০ বিলিয়ন ইউএস ডলার এবং মাথাপিছু আয় ১,৭২৫ ইউএস ডলার। মুদ্রার নাম লিউ।মদ উৎপাদনে মল্ডোভিয়ার স্থান বিশ্বে ১২-তম। ৫০০০ বছর পূর্ব হতে মল্ডোভা দ্রাক্ষা ও মদ উৎপাদন করে আসছে। পৃথিবীর বৃহত্তম ভূগর্ভস্থ মদ্য-ভাণ্ডার এ দেশের নিচে লুকানো আছে। মিলেস্টি মিচির (Milestii Mici) ১.৫ মিলিয়ন বোতল মদ্য সংগ্রহ বৃহত্তম ও গুণগত মান হিসাবে বিশ্ব রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। তিরনায়ুকা গ্রামে অবস্থিত  কড়া পানীয় জাদুঘর (Strong Drinks Museum) বিশ্বের বৃহত্তম বোতলাকৃতির ভবন।

সোভিয়েত ইউনিয়নের আমলে মল্ডোভা ছিল সবচেয়ে জনঘনত্ববহুল প্রজাতন্ত্র। এখনও এখানে ২,৫০০ রাশিয়ান সৈন্য এবং ত্রান্সনিস্ত্রিয়ায় (Transnistria) ২২,০০০ টন  গোলাবারুদ রয়েছে। ইমিলা রাকোভিতা (Emil Racovita) গুহা পৃথিবীর বৃহত্তম গুহা। পৃথিবীর ১৫২টি দেশের ওপর পরিচালিত জরিপে দেখা যায়, ইন্টারনেটের গতি বিবেচনায় মল্ডোভা বিশ্বে তৃতীয় স্থানের অধিকারী। মল্ডোভার কঙগ্যাজ (Congaz) ইউরোপের বৃহত্তম গ্রাম। সোভিয়েত ইউনিয়নের আমলে সোরোকা (Soroca) ছিল বিশ্বের জিপ্সিদের রাজধানী। এখানকার প্রাচীন ওক বৃক্ষের বয়স ৬০০ বছর।

পৃথিবীর ৩টি দেশের পতাকা একপাশ অন্যপাশের চেয়ে ভিন্ন। এ তিনটি দেশ হচ্ছে প্যারাগুয়ে, সৌরি আরাবিয়া ও মল্ডোডোভা।


লিথুয়ানিয়া (Lithuania) : ইতিহাস ও নামকরণ

লুক্সেমবার্গ (Luxemburg) : ইতিহাস ও নামকরণ

মাল্টা (Malta) : ইতিহাস ও নামকরণ

সূত্র:  কীভাবে হলো দেশের নাম, ড. মোহাম্মদ আমীন, পুথিনিলয়, বাংলাবাজার, ঢাকা।

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

Knowledge Link

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

 

error: Content is protected !!