মাতৃভাষার সংখ্যা বঙ্গনামের উদ্ভব ও সংস্কৃত ভাষা

মাতৃভাষার সংখ্যা
ইউনেসকো-র সদর দপ্তর প্যারিস থেকে বাংলাদেশের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রেরিত একটি ফ্যাক্স বার্তার ভাষ্যমতে পৃথিবীতে মাতৃভাষার সংখ্যা ছয় হাজার। তন্মধ্যে চিনা, ইংরেজি, রুশ, ফরাসি, ফারসি, স্পেনিস, আরবি, জার্মান, জাপানি, পর্তুগিজ, হিন্দি, উর্দু এবং বাংলা প্রধান ও বহুল প্রচলিত ভাষা। প্রতিবছর প্রায় ৭টি করে ভাষা বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। ভারতে প্রচলিত-অপ্রচলিত মোট ভাষার সংখ্যা ১,৬৫২টি। ভারতে জাতীয় ভাষা হিসেবে স্বীকৃত ও অষ্টম তপসিলভুক্ত ভাষার সংখ্যা ১৮টি।

বঙ্গ বা বাঙ্গলা নামের উৎপত্তি/দেশবাচক শব্দের প্রথম ব্যাবহার
বঙ্গ শব্দের উৎপত্তি স¤পর্কে গবেষকদের অভিমত যে অঞ্চলে ‘বং’ জাতির লোকজন বসবাস করত তা ‘বং’ নামে পরিচিত ছিল। সংস্কৃত বঙ্গ শব্দ হতে ‘বং’ বা ‘বঙ’ নামের উৎপত্তি হয়েছে। ‘বং’ গোষ্ঠীভুক্ত মানুষের বাসভূমি নদীর পূর্বতীর হতে আসামের পশ্চিমাঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। মোগল সম্রাট আকবরের সভাসদ আবুল ফজল ‘আইন-ই- আকবরি’ গ্রন্থে প্রথম দেশবাচক শব্দ ব্যবহার করে এর উৎপত্তি নির্দেশ করেন। তাঁর মতে বঙ্গ-এর সঙ্গে বাঁধ বা জমির সীমাবাচক শব্দ ‘আল’ বা আলি বা আইল প্রত্যয়যোগে বাঙ্গাল/বাংলা শব্দ গঠিত হয়। তবে এখন প্রমাণিত হয়েছে যে, এটি ঠিক নয়।

 

সংস্কৃত ভাষা
প্রাচীন ভারতীয় আর্য ভাষার দুটি রূপ ছিল। যথা কথ্য ও বৈদিক। বৈদিক রূপকে সাহিত্য ও ধর্মচর্চায় ব্যবহার করা হতো। কালক্রমে বৈদিক রূপের সঙ্গে কথ্য রূপের মিশ্রণে ভাষায় অশুদ্ধ ও বিকৃত উচ্চারণ শুরু হয়। অশুদ্ধ ও বিকৃত উচ্চারণের পরিণতি হতে ভাষাকে রক্ষা করে শুদ্ধ ভাষা অক্ষুণ্ন রাখার জন্য তৎকালীন ভাষাবিদ ও বৈয়াকরণগণ ভাষার কতগুলো নিয়ম বেঁধে দেন। কথ্যরূপ ও বৈদিক রূপের সংস্কারের ফলে যে ভাষাটি সৃষ্টি হয়েছে তাকে সংস্কৃত ভাষা বলা হয়। সংস্কৃত শব্দের অর্থ যাকে সংস্কার করা হয়েছে। খ্রিষ্টপূর্ব ৮০০ অব্দের দিকে সংস্কৃত ভাষা বিধিবদ্ধ হতে থাকে এবং খ্রিষ্টপূর্ব ৪০০ অব্দের ব্যাকরণবিদ পাণিনির হাতে এটি চূড়ান্তভাবে বিধিবদ্ধ হয়। সংস্কৃত ভাষা আর্য তথা বৈদিক ভাষার সংস্কারকৃত রূপ। অতএব সংস্কৃত বিদেশাগত আর্যদের ভাষা।
বাংলা ভাষায় সংকলিত না হয়েও বাঙালি জীবনের চিত্র সম্বলিত দুটি প্রাচীন গ্রন্থ
প্রাকৃত ও অপভ্রংশ ভাষার সাহিত্যের সঙ্গে প্রাচীন বাংলার স¤পর্ক ছিল একান্ত নিবিড়। এ প্রসঙ্গে ‘গাথা সপ্তদশতী’ ও ‘প্রাকৃতপৈঙ্গল’ গ্রন্থদ্বয়ের কথা বলা যায়। কাব্য দুটি বাংলাদেশে সংকলিত না হলেও বাঙ্গালি জীবনের চিত্র পরিষ্ফুট।

error: Content is protected !!